• সোমবার   ২৭ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৩ ১৪২৯

  • || ২৬ জ্বিলকদ ১৪৪৩

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
স্বপ্নজয়ের পর অপার সম্ভাবনার হাতছানি পদ্মা সেতু: প্রধানমন্ত্রীকে এশিয়ার পাঁচ দেশের অভিনন্দন ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পের সুষ্ঠু বিকাশে কাজ করছে সরকার পদ্মা সেতুর সফলতায় প্রধানমন্ত্রীকে কুয়েতের রাষ্ট্রদূতের অভিনন্দন নতুন প্রজন্মকে প্রস্তত হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী আমরা বিজয়ী জাতি, মাথা উঁচু করে চলবো: প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পরিবারের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: রাষ্ট্রপতি মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণাঞ্চলের উন্নতির জন্য নিজের জীবন দেয়ার ওয়াদা- প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর ওপর হাজারো মানুষের ঢল ‘আছে শুধু ভালোবাসা, দিয়ে গেলাম তাই’ শিবচরের সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী অবশেষে এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ: পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন কংক্রিটের অবকাঠামো নয়, পদ্মা সেতু আমাদের অহংকার: প্রধানমন্ত্রী এ সেতু স্পর্ধিত বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি: প্রধানমন্ত্রী ৪২টি পিলার বাংলাদেশের আত্মমর্যাদার ভিত: প্রধানমন্ত্রী ‘সর্বনাশা’ থেকে ‘সর্বআশা’ পদ্মা পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু পদ্মার বুক চিরে বাংলাদেশের ‘সাহস’ পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেশের জন্য গৌরবোজ্জ্বল ও ঐতিহাসিক দিন

আগৈলঝাড়ায় অভিযান চালিয়ে খালের অবৈধ বাঁধ ও মাছ ধরা চাই অপসারণ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২২  

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় খালের নাব্যতা ফেরাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে রাজিহার-মাগুড়া খালের মধ্যে আড়াআড়ি করে দেওয়া বাঁধ ও মাছ ধরা চাই অপসারণ করেছেন। এই সময় বাঁধ ও মাছ ধরা চাইর মালিককে না পাওয়ায় জরিমানা করা যায়নি। মাছ ধরার চাই ও বাশঁ জব্দ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও মৎস্য অধিদপ্তরের সহযোগীতায় বুধবার বিকেল ৫টায় উপজেলার রাজিহার-মাগুড়া খালের মধ্যে আড়াআড়ি করে দেওয়া বাঁধ ও মাছ ধরার চাই অপসারন করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.সাখাওয়াত হোসেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজিহার বাজার সংলগ্ন খালের মধ্যে রাজিহার গ্রামের মৃত.সাধন চন্দ্র বাড়ৈর ছেলে মতি লাল বাড়ৈ আড়াআড়ি করে বাঁধ দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মাছ ধরে আসছিল। এতে ওই খালের উত্তর দিকের বাশাইল, মাগুরার লোকজন মাছ ধরতে গেলে খালে কোন মাছ পেতনা। এবং খালে আড়াআড়িভাবে বাঁধ দেয়ার কারণে স্রোতের পানি বাঁধাপ্রাপ্ত হয়ে পলি পড়ে খাল ভরাট হয়ে যাচ্ছে। এঘটনা উপজেলা প্রশাসন জানতে পেরে এই অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলম, ইউপি সদস্য সঞ্জয় রায়, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা। ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.সাখাওয়াত হোসেন বলেন, উপজেলার কোথায়ও খালে বাঁধ দিয়ে মাঝ ধরা যাবে না। কেহ ধরলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।