• সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১০ ১৪২৮

  • || ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
করোনায় ভয়াবহ কিছু হবে না: অর্থমন্ত্রী শহীদ আসাদ গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন গণতন্ত্রের ইতিহাসে শহীদ আসাদ দিবস একটি অবিস্মরণীয় দিন শহীদ আসাদ দিবস আজ ‘বাংলাদেশকে আর কেউ অবহেলা করতে পারবে না’ সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত এলে চুপ থাকবে না বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী করোনা: ১২ জেলাকে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সংস্কৃতি গড়তে ডিসিদের প্রতি নির্দেশ ভয়-লোভের ঊর্ধ্বে থাকুন, ডিসিদের প্রধানমন্ত্রী ডিসিদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ২৪ দফা নির্দেশনা ‘শহিদ ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ভিক্ষা করবে আমি দেখতে চাই না’ ওমিক্রনে মৃত্যু বাড়ছে, সচেতন থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সেবা নিতে এসে মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হন: প্রধানমন্ত্রী তৃণমূলের মানুষের জীবনমান উন্নত করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ইসির সক্ষমতা বাড়ানোর প্রস্তাব আওয়ামী লীগের সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন গঠনে গুরুত্ব আরোপ রাষ্ট্রপতির ইসি গঠনে আইনের খসড়া অনুমোদন মন্ত্রিসভায় জঙ্গিবাদ নির্মূলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিকেলে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আ’লীগের সংলাপ নৌকায় ভোট দিয়েই রংপুর মঙ্গামুক্ত: প্রধানমন্ত্রী

আগৈলঝাড়া প্রথম সৌরশক্তির মাধ্যমে ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্প শুরু

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২২  

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়নের আরেক ধাপ হল সৌরশক্তির মাধ্যমে কৃষকদের ক্ষেতে পানি দিয়ে ইরি-বোরো ধান চাষ করা। এতে আনন্দ ভাসছে ওই এলাকার সাধারন কৃষকরা। উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের যবসেন মৌজায় ইরি-বোরো ক্ষেতে সৌরশক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পানি দিয়ে ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের সহযোগীতায় এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

যশোর ১-কিউসেক সৌরশক্তি চালিত এলএলপি স্কীমের মাধ্যমে ৪২টি সোলার প্যানেল মাধ্যমে এই সৌরশক্তি নির্মাণ করা হয়েছে। যার প্রতিটি প্যানেলের ক্ষমতা ৩৯৫ ওয়ার্ড। একসাথে ৪২টি সোলার প্যানেল দিয়ে ৭.৫ অশ্বশক্তির মটার দিয়ে ইরি-বোরো ক্ষেতে পানি দেওয়া যাবে। এতে প্রায় ২০০ থেকে ২৫০ একর জমি চাষাবাদ করা যাবে। কৃষকরা বিদ্যুৎতের চেয়ে এই সৌরশক্তির মাধ্যমে চাষবাদ করলে অনেক কম খরচ হবে বলে জানান কৃষি অফিস।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে সৌরশক্তি মাধ্যমে ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্প এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, এই প্রকল্পের কারনে ওই এলাকার কৃষকরা খুশি হয়েছেন। তারা বিদ্যুৎতের চেয়ে কম খরচে ক্ষেতে ইরি-বোরো ধান বপন করতে পারছেন। কৃষক আ.ছালাম মিয়া জানান, সরকারের এই উন্নয়ন কাজকে আমরা সাধুবাদ জানাই। কারন আমাদের খরচ আগের চেয়ে কম হবে। সব সময় পানি পাওয়া যাবে। পানির সংকট হবে না।

এব্যাপারে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মাহবুবা নার্গিস লীনা বলেন, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের সহযোগীতায় আগৈলঝাড়ায় এই প্রথম সৌরশক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্প শুরু করা হয়েছে। এই প্রকল্পে কৃষকদের বিদ্যুৎতের চেয়ে খরচ অনেক কম হবে। ক্ষেতে ধান উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। যার জন্য সরকার এখন সারাদেশে এই প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এতে সরকারের বিদ্যুৎ ব্যবহার কমে আসবে।