• রোববার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১০ ১৪২৯

  • || ২৭ সফর ১৪৪৪

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ বিরোধী অপপ্রচারের সমুচিত জবাব দিন: প্রধানমন্ত্রী ওয়াশিংটন পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী ‘জাতিসংঘ অধিবেশনে সক্রিয় অংশগ্রহণ বাংলাদেশের অবস্থান আরও সুদৃঢ় করেছে’ জাতিসংঘে আজ বাংলায় ভাষণ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু আজ বাংলাদেশি অভিবাসী দিবস জলবায়ু ইস্যুতে ধনী দেশগুলোর অবদান ‘দুঃখজনক’: প্রধানমন্ত্রী আ.লীগ সব সময় জনগণের ভোটেই ক্ষমতায় আসে: প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ বিশ্বশান্তি ও মানবমুক্তির দিকদর্শন: আ.লীগ জাতিসংঘে ১৫ আগস্টের কথা স্মরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী বাণিজ্য সহযোগিতা জোরদারে ঢাকা-নমপেন এফটিএ চুক্তিতে সম্মত দেশে বিনিয়োগ বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল বাইডেনের অভ্যর্থনায় প্রধানমন্ত্রীর যোগদান রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে জাতিসংঘকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহ্বান যুদ্ধ বন্ধ করে শান্তি প্রতিষ্ঠা করুন: প্রধানমন্ত্রী বাইডেনকে বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন : জাতিসংঘের বলিষ্ঠ ভূমিকা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী চলমান বৈশ্বিক সংকট নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বেগ জাতিসংঘে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর আলোকচিত্র প্রদর্শন সাফজয়ী ফুটবলার রূপনা চাকমার জন্য রাঙ্গামাটিতে ঘর নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর নিষেধাজ্ঞা-পাল্টা নিষেধাজ্ঞা বিশ্বজুড়ে গভীরভাবে আঘাত করছে: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ কোনো সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যে নেই: আইএমএফ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৭ আগস্ট ২০২২  

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রাহুল আনান্দ বলেছেন, ‘বাংলাদেশ কোনো সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যে নেই। দেশটির বাহ্যিক অবস্থান এ অঞ্চলের বিভিন্ন দেশের থেকে খুব আলাদা, যার সুফল পায় বাংলাদেশ।’

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) এক অনলাইন সম্মেলনে আইএমএফের এ কর্মকর্তা বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে ব্রিফ করেন। এসময় তিনি এসব কথা বলেন।

রাহুল আনান্দ বলেন, ‘বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ তুলনামূলক কম। সেটা জিডিপির ১৪ শতাংশের কাছাকাছি। বাংলাদেশের ঋণ সংকটের ঝুঁকিও কম। দেশটির এ সংক্রান্ত পরিস্থিতি শ্রীলঙ্কার থেকে অনেক আলাদা। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশকে কোনোভাবেই মেলানো যাবে না।’

আইএমএফের কাছে বাংলাদেশ সরকারের ঋণ আবেদনের বিষয়টি ‘প্রাক-অনুরোধমূলক’ বলেও জানিয়েছেন আইএমএফের এ কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গে রাহুল আনান্দ বলেন, ‘বাংলাদেশের ঋণের অনুরোধটি প্রাক-অনুরোধমূলক (প্রি-এমপেটিভ)। রিজার্ভ কমে যাওয়ার প্রেক্ষিতে দেশটি সম্প্রতি কয়েক দফা মুদ্রার অবমূল্যায়নের সম্মুখীন হয়েছে। তবে রিজার্ভ কমে গেলেও চার থেকে পাঁচ মাসের সম্ভাব্য আমদানি কভার করার মতো মজুত এখনো দেশটির রয়েছে, যা যথেষ্ট বেশি।’