• বুধবার   ৩০ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৯

  • || ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর ব্যাংক খাতের পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ১০ ডিসেম্বর বিএনপির মহাসমাবেশ, পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা সংঘাত-দুর্যোগে নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বাড়ে: প্রধানমন্ত্রী সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী জিয়া-খালেদা-তারেক খুনি: প্রধানমন্ত্রী জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল হবে: প্রধানমন্ত্রী দুপুরে সচিবদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ডা. মিলনের আত্মত্যাগ নতুন গতি সঞ্চার করে ডা. মিলন এক উজ্জ্বল নক্ষত্র: রাষ্ট্রপতি মিছিল-মিটিংয়ে আপত্তি নেই, মানুষের ওপর হামলায় সহ্য করবো না ‘যারা গ্রেনেড দিয়ে আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে, তাদের সঙ্গে আলোচনা? যারা উন্নয়ন দেখে না, তারা চাইলে চোখের ডাক্তার দেখাতে পারে- প্রধানমন্ত্রী অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সক্ষম হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে জেলা প্রশাসকের দুই কন্যার বিবাহ সম্পন্ন

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০২২  

বরিশাল প্রতিনিধি: পরিবার ও সমাজ থেকে ৩ বছর আগে বিচ্যুত হয় তানজিলা ও বাক শ্রবন প্রতিবন্ধী সৃষ্টি। পরে তাদের আশ্রয় হয় বরিশালের সামাজিক প্রতিবন্ধী মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে। এবার তাদের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে এই কেন্দ্রেই। কোনো কিছুর কমতি না থাকা জাঁকজমক পূর্ন এই আয়োজনে তিন লক্ষ টাকা করে দেনমোহরে বিয়ে হয়েছে তাদের।

২৯ অক্টোবর,শনিবার তাদের বিয়ের আয়োজন করা হয়।বরিশালের উজিরপুর উপজেলার দক্ষিণ মোড়াকাঠি গ্রামের বাসিন্দা ওবায়দুর মৃধা। বেশ কয়েকদিন আগে বরিশালের সামাজিক প্রতিবন্ধী মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে এসে বাক ও শ্রবন প্রতিবন্ধী সৃষ্টিকে পছন্দ হয় অটো চালক ওবায়দুরের। এরপর পরিবারেরও পছন্দ হলে ঠিক হয় ওবায়দুর ও সৃষ্টির বিয়ে।ওবায়দুর মৃধা বলেন, আমি এবং আমার পরিবার সৃষ্টিকে পছন্দ করেছি। তারপরই বিয়ের আলোচনা হয় এখানকার কর্মকর্তাদের সাথে। সৃষ্টিও আমাকে পছন্দ করেছে। সৃষ্টি বাক ও শ্রবন প্রতিবন্ধী মানে অসহায়। তাই ওকে বেশি ভালো লাগছে।তবে ব্যতিক্রম বিষয় পুনর্বাসন কেন্দ্রের সব কিছু স্বাভাবিক থাকা তানজিলার সাথে বিয়ে হয়েছে বাকপ্রতিবন্ধী আগৈলঝাড়া উপজেলার নগরবাড়ি গ্রামের কৃষক রেজাউল করিম সরদারের সাথে। পারিবারিকভাবেই বিয়েতে সম্মতি দেওয়া হয়েছে।

রেজাউল করিম সরদারের ভাই মো: ফরিদ বলেন, পারিবারিক ভাবেই পছন্দ করা হয়েছে তানজিলাকে। দুজন দুজনকে পছন্দ করার পরই আমরা বিয়ের আলাপ শুরু করি।রেজাউলের বোন চায়না আক্তার বলেন, আমরা এই বিয়ে নিয়ে সবাই খুশি। আমার ভাইয়ের সুখের সংসারই হবে।বিয়ের আয়োজন নিয়ে সন্তুষ্ট তানজিলা ও সৃষ্টি। সবার প্রতি কৃতজ্ঞ তারা।

আবেগাপ্লুত তানজিলা আক্তার বলেন, আমাদের বিয়ে যে এমনভাবে হবে সেটা কখনো প্রত্যাশা করিনি। আমরা অনেক আনন্দিত ও খুশি। তানজিলা ও সৃষ্টির উকিল বাবা হয়েছেন সমাজসেবা দপ্তরের প্রবেশন কর্মকর্তা সাজ্জাদ পারভেজ। জানিয়েছেন রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান সহ সকলের সহযোগিতায় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার কথা।

সাজ্জাদ পারভেজ বলেন, ৩ লক্ষ টাকা করে দেন মোহরে ১৯ বছর বয়সী তানজিলা ও সৃষ্টির বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। ওরা যেন সুখে শান্তিতে থাকে সেজন্য উপহারও দেওয়া হয়েছে। গায়ে হলুদ, মেহেদি পড়া থেকে শুরু করে নিজের মেয়ের বিয়েটা যেমন ভাবে আয়োজন করা যায়, সেভাবেই সব করা হয়েছে।

অন্যদিকে দুইজনের বিয়েকে ঘিরে সাজসাজ রব ও আনন্দঘন পরিবেশ ছিলো পুনর্বাসন কেন্দ্রে। গান বাজনা থেকে শুরু করে কোনো কিছুরই কমতি ছিলো না এখানে। বরযাত্রী সহ আয়োজন ছিলো ৩শ লোকের খাবারেরও।

পুনর্বাসন কেন্দ্রের বাসিন্দা ফাল্গুনী বলেন, তিনদিন আগে থেকেই আমরা নানা আয়োজনে মজা আনন্দ করেছি। বিয়ের পর আমাদের দুই সহচরী আমাদের ছেড়ে চলে যাবে, সেটা কষ্টের।বরিশাল মেট্রোপলিটনের কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন বলেন, এই ধরণের আয়োজনে সকলকে পাশে এসে দাড়ানো ও সহযোগতিার হাত বাড়ানো উচিৎ। এরা সমাজের অংশ, সমাজ থেকে বিচ্যুত নয় বলে মনে করি।বরিশাল জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দিন হায়দার বলেন, তানজিলা ও সৃষ্টি ডিসির মেয়ে। এই নিয়ে চারজন মেয়েকে পুনর্বাসন কেন্দ্রে বিয়ে দেওয়া হয়েছে। সকলে এগিয়ে আসলে এখানের ৩৫ জন মেয়ের জীবন নির্বিঘ্ন হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু হেনা মো: রহমাতুল মুনিম বলেন, এই কেন্দ্রের সামনে সামাজিক প্রতিবন্ধী লেখা থাকলেও এরা সামাজিক প্রতিবন্ধী নয়। এদের সমাজ গ্রহণ করে না, তবে সমাজকে এদের সহজ ভাবে নিতে হবে।
ব্যতিক্রমী এই বিয়ের অনুষ্ঠানে তানজিলা ও সৃষ্টিকে এবং ওবায়দুর ও রেজাউলকে দুইটি সেলাই মেশিন, দুইটি ইজিবাইক সহ নগদ অর্থ উপহার দেওয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানের সাথে বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার আমিন উল আহসান, কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট এর কর কমিশনার তাসনিমা হোসেন লুনা, কর কমিশনার কাজী লতিফুর রহমান, পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন, ভোলার জেলা প্রশাসক মোঃ তৌফিক -ই-লাহী চৌধুরী ও পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান,জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আল মামুন তালুকুদার, বরিশাল সদর উপজেলার চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু, বিসিবির পরিচালক আলমগীর হোসেন আলো প্রমূখ।