• সোমবার ২৪ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৯ ১৪৩১

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর: আঞ্চলিক ভূ-রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে ফিলিস্তিনসহ দেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায়

ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে খালের বাঁধ অপসারন

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ বরিশালের গৌরনদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে সরকারী খালে দেওয়া বাধঁ অপসারণ করে দিয়েছে। তিনদিনের মধ্যে ইদ্রিস বেপারীকে খালের সকল বাধঁ নিজ খরচে অপসারন করার নির্দেশ দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আবু আব্দুল্লাহ খান। ১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে এই অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।
স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করে বলেন, গত কয়েকমাস পূর্বে উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের চন্দ্রহার গ্রামের মৃত দেলোয়ার বেপারীর ছেলে ইদ্রিস বেপারী ও তার সহযোগীরা তাদের বসতবাড়ি সংলগ্ন সরকারী খালের একটি অংশ দখলের পর সম্পূর্ন ভরাট করে ফেলে। সে (ইদ্রিস) খালের যে স্থানটি ভরাট করেছে সেখান থেকে চন্দ্রহার ও বংকুরা এলাকার দুই শতাধিক একর ফসলি জমিতে খালের পানি উঠানামা করতো। খালটি ভরাট হয়ে যাওয়ায় বর্তমানে পানি উঠানামা বন্ধ রয়েছে। ফলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে রোপনকৃত আমন ও পানবরজের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়াও শতাধিক পরিবার পানিবন্ধী হয়ে পরেছে। এঘটনার প্রতিকার চেয়ে শতাধিক পরিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আবু আব্দুল্লাহ খান এই অভিযান পরিচালনা করেন। এবিষয়ে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু আব্দুল্লাহ খান জানান, ভুক্তভোগীদের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে খাল ভরাটের সত্যতা মিলেছে। দখলকারীকে ভরাটকৃত মাটি সরিয়ে পানি চলাচলের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য তিনদিনের সময় দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে ভরাটকৃত মাটি সরিয়ে না নিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।