• সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৭ রজব ১৪৪৪

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই মানুষের উন্নতি হয়: প্রধানমন্ত্রী আমি জোর করে দেশে ফিরেছিলাম, আ.লীগ পালায় না: শেখ হাসিনা আজ ১১ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী ১-৭ মার্চ মোবাইলে কল করলেই শোনা যাবে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ পুলিশি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিন: প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস রুখে দিতে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে পুলিশ সারদায় কুচকাওয়াজে প্রধানমন্ত্রীকে অভিবাদন বাংলাদেশ পুলিশ শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করছে প্রধানমন্ত্রীকে বরণে প্রস্তুত রাজশাহী প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় রাজশাহীবাসী, ব্যাপক জনসমাগমের প্রস্তুতি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের মূল চাবিকাঠি ডিজিটাল সংযোগ সাধারণ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী আপনি কি আল্লাহর ফেরেস্তা, ফখরুলকে কাদেরের প্রশ্ন কাউকে সম্প্রীতি নষ্ট করতে দেব না: প্রধানমন্ত্রী আর্থসামাজিক উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল: প্রধানমন্ত্রী বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে কাস্টমের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে একাত্তরে গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি আমার ব্যর্থতা থাকলে খুঁজে বের করে দিন: প্রধানমন্ত্রী

‘ভেস্টিবুলার হাইপোফাংশনে’ জানুন এর লক্ষণ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০২২  

বলিউড অভিনেতা বরুণ ধাওয়ানের জনপ্রিয়তা এখন তুঙ্গে। নাচ ও অভিনয় দিয়ে সারাবিশ্বের মানুষের মনোযোগ কেড়েছেন এই অভিনেতা। সম্প্রতি জানা গেছে, এই অভিনেতা ভেস্টিবুলার হাইপোফাংশনে আক্রান্ত। এই সমস্যার কারণে ভেতরের কানের ভারসাম্যের অংশটি বন্ধ হয়ে যায়।

জানা গেছে, পোস্ট-কোভিডে ভুগছেন তিনি। তারই নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে শরীরে। এ বিষয়ে বরুন ধাওয়ান জানান, জুগজুগ জিয়ো সিনেমা নিয়ে তিনি এতোটাই বেশি ব্যস্ত ও চাপে ছিলেন যে তার প্রভাব পড়ে শরীরে।

তিনি বলেন, ‘মনে হয়েছিল আমি একটি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি। সত্যিই এই সিনেমার জন্য আমি নিজের উপর অনেক চাপ দিয়েছি’।

ভেস্টিবুলার হাইপোফাংশন কি?

এনসিবিআই ওয়েবসাইটের তথ্যমতে, ভেস্টিবুলার হাইপোফাংশন (ইউভিএইচ) হলো এমন একটি ব্যাধি যা শরীরের একপাশে ভেস্টিবুলার ফাংশনের কার্যকারিতা কমিয়ে দেয়।

ইউভিএইচ এর রোগীরা প্রায়শই মাথা ঘোরা, অসিলোপসিয়া, অঙ্গবিন্যাস অস্থিরতা ও হাঁটার ব্যাধির মতো লক্ষণ রিপোর্ট করে।

এসব লক্ষণ রোগীর দৈনন্দিন কার্যকলাপে বাধা সৃষ্টি করে। এছাড়া উপসর্গগুলো ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে পরিবর্তিতও হয়।

লক্ষণগুলো হঠাৎ বা ধীরে ধীরে আসতে পারে আবা হালকা বা গুরুতরও হতে পারে। এমনকি কয়েকদিন থেকে এমনকি সপ্তাহ পর্যন্তও স্থায়ী হতে পারে।

ভেস্টিবুলার হাইপোফাংশন এর লক্ষণগুলো কি কি?

>> মাথা ঘোরা বা ভার্টিগো
>> দুর্বল ভারসাম্য
>> হাঁটতে সমস্যা (বাইরে/ অন্ধকারে)
>> ঝাপসা দৃষ্টি
>> গুরুতর ক্ষেত্রে বমি

ভেস্টিবুলার হাইপোফাংশন এর চিকিৎসা কী?

ব্যায়াম ও ফিজিওথেরাপি এই রোগ থেকে সেরে উঠতে সাহায্য করে। এজন্য একজন ইএনটি সার্জনের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। একই সঙ্গে ফিজিওথেরাপিস্টের পরামর্শ অনুযায়ী চললে এই রোগের লক্ষণগুলো থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

এছাড়া লক্ষণগুলির উপর ভিত্তি করে অসংখ্য ব্যায়াম আছে, ভারসাম্য ব্যবস্থাকে উন্নত করতে ও চলাচলকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে।