• সোমবার ২৪ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১০ ১৪৩১

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর: আঞ্চলিক ভূ-রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে ফিলিস্তিনসহ দেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ

২০ হাজার কোটি টাকা বাড়ছে এডিপির আকার

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৬ মে ২০২৪  

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার দুই লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকার প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য পেশ করা হচ্ছে। এটি চলতি অর্থবছরের সংশোধিত এডিপি থেকে ২০ হাজার কোটি টাকা বেশি।
এবার শিক্ষা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের জন্য থোক বরাদ্দ পাঁচ হাজার কোটি টাকা বাড়িয়ে ১৬ হাজার ৮৭২ কোটি ১৬ লাখ টাকা রাখা হচ্ছে। যা মোট এডিপির ৬.৩৭ শতাংশ।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে জানা গেছে, বরাদ্দ কমালেও এবারও পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে সর্বোচ্চ ৭০ হাজার ৬৮৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে, যা মোট এডিপির ২৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

জানা গেছে, পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগ হতে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের এডিপি প্রণয়নের জন্য চলতি বছরের ১৪ মার্চ নির্দেশনা জারি করা হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে সব বাস্তবায়নকারী মন্ত্রণালয় বা বিভাগের নিকট থেকে এডিপির জন্য মোট দুই লাখ ৭৬ হাজার ৪০২ কোটি ৪৬ লাখ টাকার প্রস্তাব পাওয়া যায়।

এতে সরকারি অর্থায়ন এক লাখ ৮৫ হাজার ৩৯১ কোটি ১৯ লাখ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ৯১ হাজার ১১ কোটি ২৭ লাখ টাকা প্রাথমিক চাহিদা পাওয়া যায়।

পরে অর্থ বিভাগ থেকে গত ৬ এপ্রিল আগামী অর্থবছরের এডিপির আকার দুই লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়। এতে জিওবি থেকে এক লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকা (৬২.২৬ শতাংশ) এবং প্রকল্প সাহায্য এক লাখ কোটি টাকা (৩৭.৭৪ শতাংশ) নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, প্রস্তাবিত এডিপির আকার ২০২৩-২৪ বিদায়ী অর্থবছরের মূল এডিপি অপেক্ষা ২ হাজার কোটি টাকা (০.৭৬ শতাংশ) বেশি এবং সংশোধিত এডিপি অপেক্ষা ২০ হাজার কোটি টাকা (৮.১৬ শতাংশ) বেশি।

১৫টি খাতে বরাদ্দ: চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের বরাদ্দের তুলনায় নতুন এডিপিতে সাধারণ সরকারি সেবায় বরাদ্দ বেড়ে ২ হাজার ১১৩ কোটি ৩৬ লাখ টাকা, প্রতিরক্ষায় কমে ৭১০ কোটি এক লাখ টাকা, জনশৃঙ্খলা ও সুরক্ষায় কমে তিন হাজার ৩০৮ কোটি ১৩ লাখ টাকা, শিল্প ও অর্থনৈতিক সেবায় বেড়ে ছয় হাজার ৪৯২ কোটি ১৮ লাখ টাকা, কৃষিতে বেড়ে ১৩ হাজার ২১৯ কোটি ৫৯ লাখ টাকা, বিদ্যুৎ ও জ্বালানিতে কমিয়ে ৪০ হাজার ৭৫১ কোটি ৮৬ লাখ টাকা, পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে কমিয়ে ৭০ হাজার ৬৮৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকা, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়নে কমিয়ে ১৭ হাজার ৯৮৬ কোটি ২১ লাখ টাকা, পরিবেশ, জলবায়ু পরিবর্তন এবং পানিসম্পদে বাড়িয়ে ১১ হাজার ৮৯ কোটি ৪৩ লাখ টাকা, গৃহায়ণ ও কমিউনিটি সুবিধাবলিতে কমিয়ে ২৪ হাজার ৮৬৮ কোটি তিন লাখ টাকা, স্বাস্থ্য খাতে বাড়িয়ে ২০ হাজার ৬৮২ কোটি ৮৮ লাখ টাকা; ধর্ম, সংস্কৃতি ও বিনোদনে বাড়িয়ে তিন হাজার ৪৯১ কোটি ৮৭ লাখ টাকা, শিক্ষা খাতে বাড়িয়ে ৩১ হাজার ৫২৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা, রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তিতে চার হাজার ৭৮৬ কোটি ৯২ লাখ টাকা, সামাজিক সুরক্ষায় কিছুটা কমিয়ে তিন হাজার ৩০৪ কোটি ৪৯ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

সর্বোচ্চ বরাদ্দপ্রাপ্ত ১০ মন্ত্রণালয়: চলতি এডিপি তুলনায় কমলেও স্থানীয় সরকার বিভাগকে ৩৮ হাজার ৮০৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকা বা ১৫.৪০ শতাংশ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগকে ৩২ হাজার ৪২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা বা ১২.৩৯ শতাংশ, বিদ্যুৎ বিভাগকে ২৯ হাজার ১৭৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা বা ১১.২৮ শতাংশ, রেলপথ মন্ত্রণালয়কে ১৩ হাজার ৭২৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা বা ৫.৩১ শতাংশ, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগকে ৪.৪০ শতাংশ বা ১১ হাজার ৩৮৭ কোটি ৬৯ লাখ টাকা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়কে ১২ হাজার ৮৮৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা বা ৪.৯৮ শতাংশ, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগকে ১৩ হাজার ৭৪১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা বা ৫.৩১ শতাংশ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে ১৬ হাজার ১৩৫ কোটি ৫২ লাখ টাকা বা ৬.২৪ শতাংশ, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়কে ৪.০১ শতাংশ বা ১০ হাজার ৩৭৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়কে ৮ হাজার ৬৮৭ কোটি ০৯ টাকা বা ৩.৩৬ শতাংশ বরাদ্দের প্রস্তাব দিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন।

থোক বরাদ্দ : আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয় বা বিভাগ হতে প্রাপ্ত এক হাজার ৮৯৪টি অননুমোদিত নতুন প্রকল্প যাচাই-বাছাই করে আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের এডিপিতে এক হাজার ২২৩টি প্রকল্প অন্তর্ভুক্তির সুপারিশ করা হয়। এসব অননুমোদিত নতুন প্রকল্প পরবর্তী সময়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত হলে বা চলমান প্রকল্পে অতিরিক্ত অর্থের বিশেষ প্রয়োজনীয়তা দেখা দিলে সেসব প্রকল্পে এডিপি হতে অর্থায়ন করা হয়। এ জন্য প্রস্তাবিত এডিপিতে থোক বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৬ হাজার ৮৭২ কোটি ১৪ লাখ টাকা।

স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা/করপোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নের প্রকল্পের বরাদ্দ : আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত এডিপিতে স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা বা করপোরেশনের সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন প্রকল্প ৭৯টি এবং জিওবি ও প্রকল্প সাহায্যের পাশাপাশি সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নের অংশীদারত্ব রয়েছে এমন ১০২টি প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এসব প্রকল্পের অনুকূলে মোট ১৩ হাজার ২৮৬.১৯ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্যে স্থানীয় মুদ্রা ১১ হাজার ৬৯৬.২৪ কোটি টাকা এবং প্রকল্প ঋণ বা অনুদান এক হাজার ৫৮৯.৯৫ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।