• শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১১ ১৪৩০

  • || ১৩ শা'বান ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে নিমন্ত্রণ বাংলাদেশের গুরুত্ব বুঝায় গুণীজনদের সম্মাননা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে : রাষ্ট্রপতি একুশে পদকপ্রাপ্তদের অনুসরণ করে তরুণরা সোনার বাংলা বিনির্মাণ করবে আজ একুশে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সফর শেষে ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী বরই খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু, কারণ অনুসন্ধান করবে আইইডিসিআর দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিন: প্রধানমন্ত্রী গাজায় যা ঘটছে তা গণহত্যা: শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ

৫ মাসে তৈরি পোশাক রফতানি বেড়েছে ২.৭৫ শতাংশ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২৩  

চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে নভেম্বর মাসে তৈরি পোশাক (আরএমজি) রফতানি আয় গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ বেড়েছে।

সোমবার (৪ ডিসেম্বর) রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জুলাই থেকে নভেম্বর মাসের মধ্যে তৈরি পোশাক (আরএমজি) রফতানি আয় ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৮৩৫ দশমিক ৬৫ মিলিয়ন ডলারে। গত অর্থবছরের একই সময়ে যা ছিল ১৮ হাজার ৩৩১ দশমিক ২৮ মিলিয়ন ডলার।

তবে জুলাই-নভেম্বর মাসে পূরণ হয়নি পোশাক রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা। এ সময়ে দেশের পোশাক রফতানি লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২০ হাজার ৬৪৯ দশমিক ৯৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই লক্ষ্যমাত্রা থেকে ৮ দশমিক ৭৯ শতাংশ কম পোশাক রফতানি হয়েছে।

তৈরি পোশাক খাতের রফতানি আয়ের মধ্যে ১০ হাজার ৯৮৯ দশমিক ৪২ মিলিয়ন ডলার এসেছে নিটওয়্যার রফতানি থেকে, যা ৮ দশমিক ৬৬ শতাংশ বেড়েছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে নিটওয়্যার রফতানির পরিমাণ ছিল ১০ হাজার ১১৩ দশমিক ৬৫ মিলিয়ন ডলার। তবে চলতি অর্থবছরের জুলাই-নভেম্বর মাসে ১১ হাজার ২৩২ দশমিক ০২ মিলিয়ন ডলার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে নিটওয়্যার রফতানি কম হয়েছে ২ দশমিক ১৬ শতাংশ।

এছাড়া তৈরি পোশাক খাতের রফতানি আয়ের মধ্যে ৭ হাজার ৮৪৬ দশমিক ২৩ মিলিয়ন ডলার এসেছে ওভেন পোশাক রফতানি থেকে, যা গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৪ দশমিক ৫২ শতাংশ কম। গত অর্থবছরের একই সময়ে ওভেন পোশাক রফতানির পরিমাণ ছিল ৮ হাজার ২১৭ দশমিক ৬৩ মিলিয়ন ডলার।

তবে চলতি অর্থবছরের জুলাই-নভেম্বর মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ওভেন পোশাক রফতানি কম হয়েছে ১৬ দশমিক ৬৯ শতাংশ। লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৯ হাজার ৪১৭ দশমিক ৯৫ মিলিয়ন ডলার।

এদিকে সদ্যবিদায়ী নভেম্বর মাসে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় রফতানি আয়ে ঋণাত্মক প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬ দশমিক ০৫ শতাংশ। এ নিয়ে টানা দুই মাস কমলো দেশের মোট রফতানি আয়।

এ সময় রফতানি আয়ের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৭৮৪ দশমিক ৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে, যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ৫ হাজার ৯২ দশমিক ৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আর গত অক্টোবরে রফতানি আয়ে ঋণাত্মক প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৩ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

নভেম্বর মাসে পূরণ হয়নি রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রাও। এ মাসে বাংলাদেশের রফতানি লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ হাজার ২৫৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই লক্ষ্যমাত্রা থেকে ৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ কম রফতানি আয় হয়েছে।