• সোমবার ২৪ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১০ ১৪৩১

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর: আঞ্চলিক ভূ-রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে ফিলিস্তিনসহ দেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ

কেএনএফ নারী শাখার অন্যতম প্রধান সমন্বয়ক সহ দুইজন গ্রেফতার

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০২৪  

দে‌শে-বিদেশে কুকি-চিন আর্মির সামরিক প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং বান্দরবান সদর ও রোয়াংছড়ি জোনের নারী শাখার অন্যতম প্রধান সমন্বয়ক আকিম বমসহ দুই জনকে লাইমী পাড়া থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৫। শুক্রবার (১৭‌ মে) সন্ধ্যা ৬টার দিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য দেন র‌্যা‌ব-১৫ অধিনায়ক লে. কর্নেল এইচ এম সাজ্জাদ হো‌সেন।

তিনি বলেন, র‍্যাব-১৫ বান্দরবান ক্যাম্পের আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার ভোর ৬টার সময় বান্দরবান লাইমী পাড়া থেকে সিয়াম থং বমের মে‌য়ে আকিম বম ও মৃত থন থাম বমের ছেলে লাল সিয়াম লম বমকে (৬০) গ্রেফতার ক‌রে।

র‍্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আকিম বম জানান, ২০২৩ সালে কাল্পা কেউক্রাডং এলাকার রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলে অধ্যয়ন করেন। তখন মাইকেল নামে একটি ছেলের সঙ্গে পরিচয় ও প‌রে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমিক মাইকেলের মাধ্যমেই কেএনএফের ট্রেনিংয়ে যান। ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের শুরু দিকে আকিম ও মাইকেল সন্ধ্যাবেলায় পায়ে হেঁটে কেএনএফের ট্রেনিং সেন্টারের উদ্দেশে রওনা করেন এবং পরদিন ভোর ৫টার দিকে রোয়াংছড়ির গহিন পাহাড়ি জঙ্গলের ট্রেনিং সেন্টারে পৌঁছান। সেখানে পৌঁছানোর পর ভান থার ময় বম নামে কেএনএফের এক নারী কমান্ডারের সঙ্গে পরিচয় হয় এবং ট্রেনিং সেন্টারে তাদের স্বাগত জানান।

knf

তার ভাষ্যমতে, সেখানে অনেক মেয়ে ছিলেন। তবে তাদের বেশিরভাগই মুখে কালি মাখা থাক‌তো। এ কারণে অনেকেই অপরিচিত। এ কা‌লি প্রতি সাত দিন পরপর পরিবর্তন কর‌তো। ট্রেনিং সেন্টারের নাম ছিল কেডিওন (ঈশ্বরের দিকে)। আকিম বমসহ তাদের ব্যাচে ২০ প্রশিক্ষণার্থী ছিল। তাদের প্রশিক্ষণ দিতো ৪-৫ জন এবং প্রশাসনিক কাজের জন্য আলাদা সদস্য নিয়োজিত ছিল।

ট্রেনিংয়ের বিষয়ে আকিম জানান, প্রাথমিকভাবে ভোর ৩টার দিকে ঘুম থেকে উঠে ট্রেনিং শুরু হতো। প্রশিক্ষণ হিসেবে শারীরিক প্রশিক্ষণ, বিশেষ করে মার্শাল আর্ট ট্রেনিং গ্রহণ করতেন। কষ্ট সহ্য করার জন্য তাদের বেত দিয়ে আঘাত করা হতো। এ ছাড়া লাঠি দিয়েও আঘাত ও টর্চার করা হতো, যাতে বিভিন্ন কঠিন পরিস্থিতিতে টিকে থাকতে পারে। আর এই প্রশিক্ষণে প্রধানত তাদের জঙ্গলে পাহাড়ি এলাকায় নিজেদের কীভাবে লুকিয়ে রাখতে হয় সেটা শেখানো হতো। এ ছাড়াও জঙ্গলে বৈরী পরিবেশে কীভাবে টিকে থাকতে হয় সেই প্রশিক্ষণও দিতো।

এসব প্রশিক্ষণ সকাল ১০টা পর্যন্ত চলমান থাকতো। প্রশিক্ষণ চলাকালে সাধারণ খাবারের পাশাপাশি তারা বনের পাখি, কাঠবিড়ালি শিকার ক‌রেও রান্না করে খেতো। তার ট্রেনিংয়ের সময় মেয়েদের একদলে ৫০ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। প্রায় তিন শতাধিক পুরুষ সদস্যও প্রশিক্ষণে ছিল। রুমা এলাকায় আরও দেড় শতাধিক নারী-পুরুষ প্রশিক্ষণরত ছিল বলেও জানান তিনি।