• সোমবার ২৪ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১০ ১৪৩১

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর: আঞ্চলিক ভূ-রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে ফিলিস্তিনসহ দেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ

‘সানভীস বাই তনি’র কাছে পোশাক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানও সিলগালা

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৬ মে ২০২৪  

দেশি পোশাক পাকিস্তানি বলে বেশি দামে বিক্রি করার অভিযোগে গত সোমবার গুলশানের ‘সানভীস বাই তনি’র শোরুম সিলগালা করেছিল জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। ‘সানভীস বাই তনি’ এলিফেন্ট রোডের যে প্রতিষ্ঠান থেকে পাইকারিতে ওইসব পোশাক সংগ্রহ করেছিল, দু’দিন বাদে সেই প্রতিষ্ঠানও সিলগালা করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির নাম লাখানি কালেকশন।

বুধবার (১৫ মে) এলিফ্যান্ট রোডের সুবাস্তু এরোমা শপিং কমপ্লেক্সে অভিযান চালিয়ে ওই প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে ভোক্তা অধিদপ্তর। সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল এ অভিযান পরিচালনা করেন।

এর আগে, গত সোমবার ‘সানভীস বাই তনি’র শোরুমে অভিযান চালানো হয়। পাকিস্তানি পোশাকের নামে দেশি পোশাক বিক্রি করে প্রতারণা করায় পুলিশ প্লাজা মার্কেটে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করা হয়। পরের দিন (মঙ্গলবার) প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী অধিদপ্তরে উপস্থিত হয়ে ওইসব তথাকথিত পাকিস্তানি পোশাক লাখানি কালেকশন নামে একটি প্রতিষ্ঠান থেকে পাইকারি কেনা হয়েছে বলে জানান। এরপর বুধবার সেই প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে লাখানি কালেকশন তাদের পোশাকগুলো পাকিস্তানি প্রমাণ করার মতো কোনো আমদানি সংক্রান্ত কাগজ বা ক্যাশমেমো দেখাতে পারেনি। এমনকি পোশাকগুলো কোথা থেকে কেনা তারও কোনো তথ্য নেই। দোকানে অন্যান্য পোশাকের কিছু ক্যাশমেমো পাওয়া যায়, যেখানে প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা দেওয়া নেই।

এসব অপরাধে ওই প্রতিষ্ঠানও পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধের আদেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষকে বৃহস্প্রতিবার সকালে অধিদপ্তরে উপস্থিত হয়ে তাদের বিরুদ্ধে কেন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে না তা ব্যাখ্যা করার জন্য বলা হয়েছে।