• বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১১ ১৪৩১

  • || ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
ড. ইউনূস কর ফাঁকি দিয়েছেন, তা আদালতে প্রমাণিত: প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না’ অভিন্ন নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার পথ নিয়ে আলোচনা করেছি সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে বহুমাত্রিক করেছে: প্রধানমন্ত্রী অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

‘যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা নীতির ফলে জ্বালাও-পোড়াও দলরা সচেতন হবে’

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৫ মে ২০২৩  

 পররাষ্ট্র মন্ত্রী  ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা বিশ্বাস করি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন ভিসা নীতির ফলে জ্বালাও পোড়াও দলরা আরও সচেতন হবে। এ ভিসা নীতি নিয়ে আমাদের কোনো দুশ্চিন্তা নেই।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশে জ্বালাও-পোড়াও চাই না। গতবার তারা ৩ হাজার ৮০০ গাড়ি, ২৭টি বগি জ্বালিয়েছে। জ্বালাও-পোড়াও আর রাস্তা দখল করে আন্দোলন কেউ চায় না। নিয়মতান্ত্রিকভাবে আন্দোলন করলে সরকার সহযোগিতা করবে।

তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা নীতি নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। কেননা প্রধানমন্ত্রী যে ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশন চান। সেটাকেই আরও শক্তিশালী করবে এ নতুন নীতি।

ড. মোমেন বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ বিষয়ে গত ৩ মে আমাকে চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে তিনি বলেছেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশনের অঙ্গীকার লক্ষ্য রেখেই নতুন এ ভিসা নীতি করা হয়েছে। এটা তো ভালোই। আমাদের নীতিকেই তো তারা সমর্থন করেছে।

মন্ত্রী বলেন, এ ভিসা নীতি নিয়ে আমাদের কোনো দুশ্চিন্তা নেই। এর ফলে সম্পর্কে কোনো টানাপোড়েনও হবে না।

মোমেন বলেন, শুধু সরকার চাইলেই ফ্রি ফেয়ার ইলেকশন হয় না। এখানে সব দলের সহযোগিতা প্রয়োজন। আমরা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য যা যা করণীয় সবই করবো।

প্রসঙ্গত, বুধবার (২৪ মে) বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে নতুন ভিসা নীতি ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এ ভিসা নীতির আওতায় বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক নির্বাচন প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য দায়ী বা জড়িতদের ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করবে দেশটি।