• বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১১ ১৪৩১

  • || ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
ড. ইউনূস কর ফাঁকি দিয়েছেন, তা আদালতে প্রমাণিত: প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না’ অভিন্ন নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার পথ নিয়ে আলোচনা করেছি সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে বহুমাত্রিক করেছে: প্রধানমন্ত্রী অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুই ভূমিহীন ও গৃহহীনদের আশ্রয় দিতে গুচ্ছগ্রাম করেন

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২২ মার্চ ২০২৩  

আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে বিনামূল্যে দুই শতক জমিসহ আধা-পাকা ঘর পেয়েছে আরও প্রায় ৪০ হাজার ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবার।

আজ বুধবার (২২ মার্চ) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে ভূমি- চতুর্থ দফায় এসব ঘর হস্তান্তর করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একই অনুষ্ঠান থেকে তিনি সাত জেলার (মাদারীপুর, গাজীপুর, নরসিংদী, রাজশাহী, জয়পুরহাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গা জেলা) সব উপজেলাসহ সারাদেশের ১৫৯ উপজেলাকে ভূমিহীন-গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা করেন।

আরও দুই জেলার (পঞ্চগড় ও মাগুরা) সব উপজেলাসহ মোট ৫২ উপজেলাকে ভূমিহীন-গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। দেশে এখন সর্বমোট ৯টি জেলা এবং ২১১টি উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ উদ্যোগ হিসেবে দুই শতক জমিসহ পাকা ঘর দিচ্ছে সরকার।

এর আগে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফায় আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে জমির মালিকানাসহ ২ লাখ ১৫ হাজার ৮২৭টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ সরকারের ৪ মেয়াদে ১৯৯৭ সাল থেকে ২১ মার্চ ২০২৩ সাল পর্যন্ত আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে ৫ লাখ ৫৪ হাজার ৫৯৭টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

আশ্রয়ণ ও অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও সংস্থার মাধ্যমে মোট পুনর্বাসন করা হয়েছে সাত লাখ ৭১ হাজার ৩০১ পরিবার। প্রতি পরিবারে গড়ে পাঁচ জন সদস্য ধরে হিসাব করলে মোট উপকারভোগীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৩৮ লাখ ৫৬ হাজার ৫০৫ জন।

চতুর্থ ধাপে এসব ঘর হস্তান্তর উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের লক্ষ্য একই বাংলাদেশে কেউ ভূমিহীন, গৃহহীন থাকবে না।

সাত জেলা ও ১৫৯ উপজেলা ভূমিহীন-গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা করে শেখ হাসিনা বলেন, পর্যায়ক্রমে সকল উপজেলা ভূমিহীন-গৃহহীন মুক্ত করা হবে। ভূমিহীন-গৃহহীন মুক্ত জেলা-উপজেলাগুলোতে প্রাকৃতিক দুযোর্গে সেখানে কেউ নতুন করে ভূমিহীন-গৃহহীন হলে তাদের ঘর করে দেওয়া হবে। এছাড়া এখনো যদি সেখানে কেউ বাকি থাকে তাদেরও ঘর দেওয়া হবে।

উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নয়াপাড়া আশ্রয়ণ কেন্দ্র, সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলার নন্দিরগাঁও ইউনিয়নের নওয়াগাঁও আশ্রয়ণ কেন্দ্র, বরিশাল জেলার বানারীপাড়া উপজেলার বানারীপাড়া পৌরসভার উত্তরপাড় আশ্রয়ণ কেন্দ্রে সংযুক্ত হয়ে উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলেন।

গণভবন থেকে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া।