• শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১১ ১৪৩০

  • || ১৩ শা'বান ১৪৪৫

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের সংকট হবে না: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে নিমন্ত্রণ বাংলাদেশের গুরুত্ব বুঝায় গুণীজনদের সম্মাননা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে : রাষ্ট্রপতি একুশে পদকপ্রাপ্তদের অনুসরণ করে তরুণরা সোনার বাংলা বিনির্মাণ করবে আজ একুশে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সফর শেষে ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী বরই খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু, কারণ অনুসন্ধান করবে আইইডিসিআর দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিন: প্রধানমন্ত্রী

ছেলেমেয়েরা যেন সমানতালে এগিয়ে যায়–সেই পদক্ষেপ নিয়েছি

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৯ ডিসেম্বর ২০২৩  

দেশকে আরও এগিয়ে নেয়ার প্রত্যাশার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নারী-পুরুষ সবাই সমানভাবে দক্ষ জনগোষ্ঠী হিসেবে গড়ে ওঠবে। ছেলেমেয়ে উভয়েই যেন বিজ্ঞান, তথ্যপ্রযুক্তিসহ সবক্ষেত্রেই অগ্রগামী থাকে– সেই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বেগম রোকেয়া পদক-২০২৩ বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বেগম রোকেয়ার প্রত্যাশা অনেকটাই পূরণ করতে সক্ষম হয়েছি আমরা। এখন আর ইসলাম ধর্মের কথা বলে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে নারীদের কেউ আটকে রাখতে পারবে না।

নারী জাগরণ ও নারীর ক্ষমতায়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আইনমন্ত্রীকে বলেছিলাম, হাইকোর্টে নারী বিচারকের নাম যদি না থাকে, তাহলে কখনো ওই ফাইল সই করে রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠাব না। এ ছাড়া আমার একটা আফসোস রয়ে গেছে। আমার খুব ইচ্ছা ছিল একজন নারীকে চিফ জাস্টিস করে যাব। মাথায় ছিল নাজমুন আরা! কিন্তু আমাদের কনজারভেটিভ এতো বেশি যে, এগুলো ভাঙতে সময় লাগে। সে জন্য তখন চিফ জাস্টিস করতে পারিনি। এ আফসোসটা থেকে গেল।

শেখ হাসিনা উল্লেখ করেন, সবচেয়ে শক্তিশালী দেশে নারী প্রেসিডেন্ট হতে পারেনি, কনটেস্ট করে হেরে যায়। আর ইসলামী সহযোগিতা সংস্থায় (ওআইসি) আমিই একমাত্র নারী সরকারপ্রধান। সেখানে অনেক ‘ব্রাদারের’ মাঝে আমি ‘অনলি সিস্টার’।

বাংলাদেশের নারীরা আর পিছিয়ে নেই জানিয়ে তিনি বলেন, রাজনীতি থেকে খেলাধুলা সবক্ষেত্রে এখন নারীরা সফলতার সঙ্গে কাজ করছে। এ ছাড়া সাংবাদিকতা থেকে শিল্পকলা সবখানেই তারা সফল।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের দেশকে আমরা আরও এগিয়ে নিতে চাই। ২০৪১ সালের বাংলাদেশ হবে স্মার্ট বাংলাদেশ। এক্ষেত্রে নারী-পুরুষ সবাই সমানভাবে দক্ষ জনগোষ্ঠী হিসেবে গড়ে ওঠবে। সবাই প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে উঠতে পারবে, সেই ব্যবস্থা অনুযায়ী সব পরিকল্পনা নিয়ে আমরা এগোচ্ছি।