• শুক্রবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৮

  • || ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
প্রশিক্ষিত সামরিক বাহিনী গঠনে বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছি বাংলাদেশ আর পিছিয়ে যাবেনা, এগিয়ে যাবে : প্রধানমন্ত্রী যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত পার্বত্য শান্তিচুক্তির ফলে দীর্ঘদিনের সংঘাতের অবসান ঘটে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিশ্বের ইতিহাসে বিরল ঘটনা: প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ২৪ বছরে পার্বত্য শান্তি চুক্তি করোনা বাড়লে আবারও বন্ধ হবে স্কুল: প্রধানমন্ত্রী গাড়ি না ভেঙে ছাত্রদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরতে বললেন প্রধানমন্ত্রী আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না: প্রধানমন্ত্রী গাড়ি ভাঙচুর-আগুন দিলেই ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী ‘আ’লীগ যখনই সরকার গঠন করেছে দেশের ক্রীড়াঙ্গনের উন্নয়ন হয়েছে’ বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উদ্বোধন ও জয়িতা টাওয়ারের ভিত্তি স্থাপন সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছে ঢাবি: প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ বাংলাদেশকে অব্যাহত সমর্থন দেবে রাজস্ব বোর্ডকে সেবাধর্মী, জনবান্ধব ও করদাতাবান্ধব করেছে সরকার ষড়যন্ত্র থাকবে, তবু দেশ এগিয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণের বিষয়ে জাতিসংঘে প্রস্তাব গ্রহণ মহান অর্জন বৈদেশিক বিনিয়োগে বাংলাদেশের গুরুত্ব দিন দিন বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহে ২৭ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ প্রস্তাব পেয়েছি

ধর্ষণ-বিয়ে ও ভ্রূণ হত্যা, ছাত্রদল নেতার বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০২১  

রাজশাহীর তানোর পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শাহীন সরকার রঞ্জুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের পর বিয়ে ও সম্পর্ক অস্বীকার করে ভ্রূণ হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এসব অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী স্ত্রী। মামলাটি বর্তমানে পিবিআই তদন্ত করছে।

রোববার দুপুরে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সম্মেলনকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে শাহীন সরকারের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী নারী। ঐ ছাত্রদল নেতার বিচারও দাবি করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ওই নারী জানান, তানোর পৌর এলাকায় স্বামী আর দুই সন্তান নিয়ে শাহীন সরকারের বাড়ির পাশে ভাড়া থাকতেন। ঐ সময় শাহীন তাকে প্রায়ই প্রেমের প্রস্তাব দিতেন। তবে তিনি বারবার এড়িয়ে যেতেন। বছরখানেক আগে একদিন ফাঁকা বাড়িতে কৌশলে তাকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন শাহীন সরকার। লোকলজ্জায় তিনি বিষয়টি কাউকে বলতে পারেননি। এরপর শাহীন তার সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করতেন। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এরই মধ্যে একদিন ওই নারীকে শাহীন সরকারের সঙ্গে কথা বলতে দেখেন তার স্বামী। ঐ ঘটনায় তাকে মারধরও করেন। শাহীন সরকার তখন ওই নারীকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দেন এবং স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করেন। এরপর তিনি ওই নারীর বাড়িতে গিয়ে রাত কাটাতেন। কিছুদিনের মধ্যেই অন্তঃসত্ত্বা হন ওই নারী। এরপরও তাকে বিয়ে করছিলেন না শাহীন। ওই নারী বিয়ের জন্য চাপ দিলেও নানা অজুহাতে সময়ক্ষেপণ করতেন।

গত জুনে ওই নারী জ্বরে আক্রান্ত হন। তখন চিকিৎসার নামে তার বাড়িতে একজন গ্রাম্য চিকিৎসক নিয়ে যান শাহীন। ওই চিকিৎসকের দেওয়া ভ্রূণ নষ্ট করার ওষুধে দেন তার পেটের বাচ্চা নষ্ট হয়ে যায়। এর আগেই আদালতে গিয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে ওই নারীকে বিয়ে করেন শাহীন সরকার। কিন্তু বিয়ের রেজিস্ট্রি করেননি।

ভুক্তভোগী নারী আরো জানান, বিয়ের পর পৌর এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে তাকে নিয়ে ওঠেন শাহীন সরকার। দুই মাস সংসার করার পর তিনি বিয়ে রেজিস্ট্রি করার জন্য শাহীনকে চাপ দেন। তখন শাহীন বলেন- এখন লকডাউন চলছে। রেজিস্ট্রি হবে না। লকডাউন শেষে ওই নারী আবার চাপ দিলে বিয়ের কথা অস্বীকার করে তাকে বাড়ি থেকেই তাড়িয়ে দেন শাহীন। এ কারণে বাধ্য হয়ে আদালতে মামলা করেছেন তিনি।

শাহীন সরকার আমার সংসার ভেঙেছে। আমার জীবনটা নষ্ট করে দিয়েছে। আমার বাচ্চা নষ্ট করেছে। আমি তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই- এসব কথা বলতে গিয়ে সংবাদ সম্মেলনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন ভুক্তভোগী নারী।

অভিযোগের বিষয়ে ছাত্রদল নেতা শাহীন সরকার রঞ্জু বলেন, সব অভিযোগ মিথ্যা। ঐ নারী আমাকে প্রেমের জালে ফাঁসিয়েছে। এখন নিজেকে বাঁচাতে মিথ্যা অভিযোগে মামলা করেছে। বিয়ের যে এফিডেভিট সে দেখাচ্ছে সেটাও ভুয়া।