• বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৩ ১৪৩১

  • || ১০ মুহররম ১৪৪৬

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

বিবাহিত জীবনে অসুখী হয়েও কেন দম্পতিরা একসঙ্গে থাকেন?

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০২৩  

দাম্পত্য কলহ কমবেশি সব সংসারেই হয়। তবে অতিরিক্ত অশান্তি ও মনোমালিন্য সংসার ভাঙনের কারণ হতে পারে। যদিও অনেকের ক্ষেত্রে কাগজ কলমে বিচ্ছেদ না ঘটলেও মনে মনে ঠিকই দম্পতিরা একে অন্যের থেকে দূরে চলে যান।

এমন অবস্থায় অনেক দম্পতিই বিবাহিত জীবনে অসুখী হওয়ার পরও একসঙ্গে বসবাস করার সিদ্ধান্ত নেন পারিপার্শ্বিক বিভিন্ন বিষয়ের কথা চিন্তা করে। যদিও এর পেছনে আছে বেশ কয়েকটি কারণ, চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক-

সন্তানদের দিকে তাকিয়ে

সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অনেক দম্পতিই অসুখী সম্পর্কই টেনে নিয়ে যান। সন্তাদের জন্য বাবা-মার বিচ্ছেদ হতে পারে মর্মান্তিক, এতে শিশুর মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হতে পারে।

এমনকি অনেক শিশুরা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়েও পড়ে। এ কারণে শুধু সন্তানের কথা ভেবে অসুখী সম্পর্কে থেকে একসঙ্গে জীবন কাটান অনেক দম্পতি।

একা থাকতে ভয় পাওয়ায়

বিয়ের পরে কমবেশি সব দম্পতিই একে অন্যের উপর মানসিকভাবে নির্ভর হয়ে পড়েন। একসঙ্গে থাকার কারণে মায়া ও ভালোবাসাও বাড়তে থাকে।

এমন অবস্থায় বিাবাহবিচ্ছেদ দুজনের মধ্যে একাকিত্ব ডেকে আনে, ফলে অনেকেই একা থাকার কষ্ট মেনে নিতে পারেন না। ফলে অসুখী থাকলেও দুজনে একসঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত নেন ও বছরের পর বছর এভাবেই দিন কাটান।

সামাজিক বিব্রত বা লজ্জা এড়াতে

কিছু মানুষ একে অপরের থেকে নিজেদের আলাদা করতে পারে না। কে কী বলবে এই ভেবে তারা বাইরের মানুষের সামনে নিজেদেরকে সুখী দম্পতি হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেন।

তারা ভয় পায় যে অন্যরা তাদের বিবাহবিচ্ছেদের বিষয়ে কথা বলবে। ফলে অন্যদের কাছে ভালো থাকার জন্য হলেও অনেকে আছেন যারা অসুখী বিবাহে থাকতেই পছন্দ করে।

জীবনধারা বা অভ্যাসগত কারণে

কিছু মানুষ তাদের জীবনধারা বা অভ্যাসগত কারণে অসুখী সম্পর্কেও খুশিবোধ করেন। সঙ্গীর উপস্থিতি যত কঠিন বা ভয়ংকর হোক না কেন, তারা অসুখী বিবাহে থাকতে পছন্দ করে।