• মঙ্গলবার   ১৬ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৭ মুহররম ১৪৪৪

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
জাতির পিতার মৃত্যু নেই শোক দিবসে বঙ্গভবনে বিশেষ দোয়ার আয়োজন রাষ্ট্রপতির টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যার নির্দেশ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মানবাধিকার কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ জ্বালানি নিরাপত্তা: বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার অবদান রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে পীরগঞ্জে তাণ্ডবের মামলায় ৫১ আসামির আত্মসমর্পণ বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি শেখ কামাল ছিলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী: প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ

বর্ষাকালে বাচ্চাদের যেসব রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেশি ও করণীয়

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৭ জুলাই ২০২২  

বর্ষাকালে বাবা-মায়েদের বিড়ম্বনার শেষ থাকে না। বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট সদস্য আছে, তাদের এই সময় চিন্তা একটু বেশিই থাকে। কারণ বর্ষা মানেই বাচ্চাদের কোনো না কোনো রোগ লেগেই থাকা।

বৃষ্টি, বিশেষ করে জমা পানি থেকে নানা রকম সংক্রমণ ছড়ায়। তাছাড়া আর্দ্র পরিবেশে সহজেই ব্যাক্টেরিয়া-ফাঙ্গাসের বৃদ্ধি হয়। এর ফলে শিশুদের ঠান্ডা লাগা, জ্বর, কাশি, পেটের গোলমাল— কিছু না কিছু চলতেই থাকে। তাই অভিভাবকদেরও এই সময় বাড়তি সতর্ক থাকতে হয়।

চলুন জেনে নেয়া যাক এই সময় বাচ্চাদের মধ্যে কোন রোগগুলো বেশি দেখা যায় এবং আমাদের করণীয় কী কী-

সর্দি-জ্বর

এই সময়ে হাওয়ায় নানা রকম জীবাণু ঘোরাফেরা করে। রোদ-বৃষ্টির ঠান্ডা-গরমে অনেক বাচ্চারই এ সময়ে ঠান্ডা লেগে যায়। বিশেষ করে যাদের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা কম। অনেকের আবার এই সময়ে সাধারণ ফ্লু-ও হয়ে থাকে। জ্বর, ক্লান্তি, গায়ে-হাত-পায়ে ব্যথা, কাশি, গলা ব্যথার মতো উপসর্গ দেখা যায় ফ্লু-এ। তবে অনেকের আবার এর পাশাপাশি পেটের গোলমালও দেখা দেয়।

ডেঙ্গু-ম্যালেরিয়া
 
বর্ষায় মশার উৎপাত বাড়ে। সঙ্গে বাড়ে মশার কামড়ে সংক্রমিত রোগও। ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়ার মতো রোগ বেশি দেখা যায় বর্ষায়। প্রবল জ্বল, মাথাব্যথা, গাঁটে ব্যথা, বমি, পেটের গোলমাল, র‍্যাশের মতো সমস্যা দেখা যায় এই সব অসুখে। সঠিক সময়ে চিকিৎসা, প্রচুর পরিমাণে পানি, পুষ্টিকর খাওয়াদাওয়া করা প্রয়োজন সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য।

খাবার এবং পানি থেকে সংক্রমণ

বর্ষায় পানি বা খাবারের মাধ্যমেও নানা রকম রোগ ছড়ায়, যেমন টাইফয়েড, কোলেরা, জন্ডিস। এই ধরনের জটিল রোগ সহজেই কাবু করে দিতে পারে বাচ্চাদের। সংক্রমিত খাবার বা পানি খেলেই অসুস্থ হয়ে পড়ার ঝুঁকি থাকে। নানা রকম উপসর্গ দেখা যায় এই ধরনের রোগগুলোতে যার প্রভাব দীর্ঘস্থায়ী হয়।

ত্বকের সমস্যা

বর্ষায় ছত্রাকজনিত সংক্রমণ বেড়ে যায়। বিশেষ করে বৃষ্টির পানি বা জমে থাকা নোংরা পানি গায়ে লেগে বাচ্চাদের ত্বকে এ সময়ে নানা রকমের ইনফেকশন বা র‍্যাশ হতে পারে। পায়ের নখে চট করে এই জাতীয় সংক্রমণ হয়ে যায়। তবে বাচ্চাদের একটু পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখলে, শুকনো পোশাক পরালে বা গা-হাত-পা মুছিয়ে দিলে এই ধরনের সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা কমে।

বর্ষায় কীভাবে সুস্থ রাখবেন বাচ্চাদের?

>> বৃষ্টিতে ভিজে গেলে সঙ্গে সঙ্গে গোসল করিয়ে শুকনো করে গা মুছিয়ে দিন। কিংবা ভালো করে গা মুছে শুকনো পোশাক পরিয়ে দিন।

>> হাত-পা নিয়মিত ধোয়ার অভ্যাস করান। খাওয়ার আগে ভালো করে হাত ধুতে শেখান।

>> বাইরের ফুচকা-এগরোল-চাউমিন জাতীয় খাবার এই সময়ে একটু এড়িয়ে চলাই ভালো।

>> সারাদিন পরিমাণ মতো পানি খাওয়ান বাচ্চাদের। শরীরে যেন কোনোভাবেই শুকিয়ে না যায়।

>> খুব বেশি তেল-ঝাল-মশলাওয়ালা খাবার না দেওয়াই ভালো। অতিরিক্ত মিষ্টি জাতীয় খাবার কিংবা প্রসেস করা খাবারও দেবেন না।

>> পুষ্টিকর খাবার দিন। দুপুর বা রাতের খাবারে যেন পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন এবং সবুজ শাক-সবজি থাকে। মৌসুমি ফল খাওয়ান। যাতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মজবুত হয়, সে দিকে নজর দিন।