• সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১০ ১৪২৮

  • || ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
করোনায় ভয়াবহ কিছু হবে না: অর্থমন্ত্রী শহীদ আসাদ গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন গণতন্ত্রের ইতিহাসে শহীদ আসাদ দিবস একটি অবিস্মরণীয় দিন শহীদ আসাদ দিবস আজ ‘বাংলাদেশকে আর কেউ অবহেলা করতে পারবে না’ সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত এলে চুপ থাকবে না বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী করোনা: ১২ জেলাকে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সংস্কৃতি গড়তে ডিসিদের প্রতি নির্দেশ ভয়-লোভের ঊর্ধ্বে থাকুন, ডিসিদের প্রধানমন্ত্রী ডিসিদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ২৪ দফা নির্দেশনা ‘শহিদ ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ভিক্ষা করবে আমি দেখতে চাই না’ ওমিক্রনে মৃত্যু বাড়ছে, সচেতন থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সেবা নিতে এসে মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হন: প্রধানমন্ত্রী তৃণমূলের মানুষের জীবনমান উন্নত করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ইসির সক্ষমতা বাড়ানোর প্রস্তাব আওয়ামী লীগের সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন গঠনে গুরুত্ব আরোপ রাষ্ট্রপতির ইসি গঠনে আইনের খসড়া অনুমোদন মন্ত্রিসভায় জঙ্গিবাদ নির্মূলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিকেলে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আ’লীগের সংলাপ নৌকায় ভোট দিয়েই রংপুর মঙ্গামুক্ত: প্রধানমন্ত্রী

পদ্মাসেতু: বিজয়ের মাসেই সম্পন্ন হচ্ছে জয়েন্ট মুভমেন্টের ঢালাই কাজ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৬ ডিসেম্বর ২০২১  

পদ্মা সেতু যান চলাচল উপযোগী করতে ৩টি জয়েন্ট মুভমেন্টের ঢালাই শেষ হয়েছে। বাকি পাঁচটির কাজও চলতি মাসেই সম্পন্ন হচ্ছে। পাশাপাশি চলছে গ্যাসলাইন, ল্যাম্পপোস্ট বসানোর কাজও।

অন্যদিকে, ভাঙনের হাত থেকে সেতু রক্ষায় দুই পাড়ে নদী শাসনের কাজের অগ্রগতি সাড়ে ৮৬ শতাংশ। পদ্মা সেতু নির্ধারিত সময়ে খুলে দিতে শেষ পর্যায়ে কাজ দুর্বার গতিতে চলছে।

৬ দশমিক এক পাঁচ কিলোমিটারের তিনটি মুভমেন্ট জয়েন্টের ঢালাই শেষ। বাকি পাঁচটি শেষ হবে এই বিজয়ের মাসেই। মুভমেন্ট জয়েন্টের অগ্রগতি ৫৯ ভাগ। সেতুর গ্যাস লাইনের কাজ মাওয়া ও জাজিরা দুই প্রান্তেই অগ্রগতি প্রায় ৫০ শতাংশ। আর ৪০০ কেভি বিদ্যুৎ লাইনের অগ্রগতি ৬২ শতাংশ। সেতুর অগ্রগতিতে খুশি পদ্মা পাড়ের মানুষ।

৩০ জুন সেতুটি চালুর লক্ষ্যে চলছে এখন চূড়ান্ত পর্যায়ের কাজ বলে জানান পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম।

মাওয়া প্রান্তে নদী শাসনের কাজ চলছে এক দশমিক আট শূন্য কিলোমিটার এলাকায়। ব্লক ও বালুর বস্তা ফেলার উপযোগী করতে বেড তৈরির পাশাপাশি চলছে ড্রেজিং। জাজিরা প্রান্তে চলছে বাকী এক কিলোমিটার এলাকায় নদী শাসন। নদী শাসনের কাজের অগ্রগতি সাড়ে ৮৬ শতাংশ।