• শুক্রবার   ২০ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৯

  • || ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিবেশবান্ধব: প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন শেখ হাসিনা কক্সবাজার হবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের রিফুয়েলিং পয়েন্ট কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে কউক’র নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে- প্রধানমন্ত্রী ওপেনিংয়ে চতুর্থ সেরা জুটি গড়ে ফিরলেন জয়, তামিমের সেঞ্চুরি সাশ্রয়ী হতে হবে, অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: শেখ হাসিনা দেশের মানুষের শেষ ভরসাস্থল শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির নিরাপদ আশ্রয়স্থল শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ইতিহাসে মাইলফলক: রাষ্ট্রপতি চার দশকেরও বেশি সময় শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আ.লীগ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী টাকা অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী ‌ঢাকায় বসে সমালোচনা না করে গ্রামে ঘুরে আসুন বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছে ফেলতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী আমিরাতের নতুন প্রেসিডেন্টকে রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন শেখ হাসিনাকে স্পেনের সরকার প্রধানের শুভেচ্ছা

নিউমার্কেটে সংঘর্ষ বাঁধিয়ে কক্সবাজারে চাকরি খুঁজছিলেন তারা

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৫ মে ২০২২  

রাজধানীর নিউমার্কেটে সংঘর্ষের সৃষ্টি ওয়েলকাম ও ক্যাপিটেল ফাস্টফুডের দুই কর্মচারী বাপ্পি ও সজিবকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ঘটনার পর তারা আত্মগোপনে চলে যায় এবং কক্সবাজার গিয়ে অবস্থান করে। সেখানে বেশ কিছু হোটেলে চাকরির জন্য সিভি দেয় তারা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য পেয়েছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার (৫ মে) রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সংস্থাটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি আরও জানান, এছাড়াও সংঘর্ষের জেরে কর্মচারী নাহিদকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী সিয়ামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূলত দুই কর্মচারী নিজেদের ‘হিরোইজম, ইগোইজম’ প্রকাশ করার জন্য এবং নিজেদের আধিপত্য দেখানোর জন্য বেশকিছু দুষ্কৃতিকারীকে ফোনের মাধ্যমে খবর দেয়। পরবর্তী সময়ে শিক্ষার্থীদের উসকে দেওয়ার জন্য গুজব ছড়িয়ে সংঘর্ষকে আরও উসকে দেওয়া হয়। নাহিদকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ইমনকে শনাক্ত করা গেলেও তাকে এখনও গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

বুধবার (৪ মে) র‌্যাব-২ এর অভিযানে মোয়াজ্জেম হোসেন সজিব (২৩), মেহেদি হাসান বাপ্পিকে (২১) কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া র‌্যাব ৩ এর অভিযানে মাহমুদুল হাসান সিয়ামকে (২১) গ্রেফতার করা হয়েছে শরীয়তপুর থেকে।

র‌্যাব জানিয়েছে, ১৮ এপ্রিল ইফতার চলাকালে দোকানে বসাকে কেন্দ্র করে ওয়েলকাম এবং ক্যাপিটাল ফাস্টফুডের কর্মচারীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। পরবর্তী সময়ে বাপ্পি এবং সজীব নিজেদের ক্ষমতা দেখানোর জন্য ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের খবর দেয়। বাপ্পি এবং সজীব সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়ে দুষ্কৃতিকারীদের খবর দিয়ে নিয়ে আসে। পরবর্তী সময়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দোকানের কর্মচারীদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

খন্দকার আল মঈন সংবাদ সম্মেলনে জানান, এ হাতাহাতির ঘটনার বিষয়টি উল্টোভাবে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সামনে উপস্থাপন করে তাদের উসকে দেওয়া হয়। বলা হয়- কাপড় কিনতে গিয়ে কর্মচারীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা, হাতাহাতি এবং এক পর্যায়ে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের উপর হামলা করা হয়। এ খবর শুনেই মূলত শিক্ষার্থীরা দোকানে এসে হামলা চালায়।

নিউমার্কেটের সংঘর্ষের ঘটনায় এখন পর্যন্ত পাঁচটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এর মধ্যে রয়েছে দুটি হত্যা মামলা। সংঘর্ষ চলার সময় ইটপাটকেলের আঘাতে কর্মচারী নাহিদ রাস্তার পাশে পড়ে যায়। নাহিদ রাস্তায় পড়ে যাওয়ার পর রড দিয়ে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী সিয়াম প্রথম তাকে আঘাত করে। পরে ইমন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে নাহিদকে কোপায়।

পরবর্তী সময়ে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। র‌্যাব বলছে, ‘সিয়ামের কোনও পলিটিক্যাল পরিচয় নেই। সিয়াম এবং ইমন আঘাত করেছে নাহিদকে। ইটগুলো কোথা থেকে ছোড়া হয়েছিল সে বিষয়গুলো পর্যালোচনা বিষয় রয়েছে। ইমনকে খোঁজা হচ্ছে। আমরা আশা করি তাকে ধরতে পারবো। দেশ ত্যাগ করেছে কিনা এ বিষয়ে কোনও তথ্য নেই।’

এক প্রশ্নের জবাবে কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ‘সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় সিসিটিভির ফুটেজ দেখে খোঁজা হচ্ছে পর্যালোচনা করা হচ্ছে। অনেককে শনাক্ত করা হয়েছে, অধিকাংশ আত্মগোপনে রয়েছে। ‌যারা সাংবাদিকদের উপর আঘাত করেছে তারা বহিরাগত এবং কিছু দোকান কর্মচারীও ছিল।’

নিউমার্কেটে সংঘর্ষের ঘটনায় আরও যারা জড়িত রয়েছে তাদের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে শনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে বলেও জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।