• বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৩ ১৪৩১

  • || ১০ মুহররম ১৪৪৬

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

অবকাশে যেসব দিনে হাইকোর্টে চলবে বিচার কাজ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২৪  

রোববার (৪ মার্চ) থেকে শুরু হওয়া প্রায় এক মাসের অবকাশকালীন ছুটিতে হাইকোর্টে বিচারকাজ পরিচালনার জন্য ১১ টি বেঞ্চ গঠন করেছেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। এ বিষয়ে সম্প্রতি হাইকোর্ট বিভাগের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) মো. মিজানুর রহমানের স্বাক্ষরে বিজ্ঞপ্তি সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ মার্চ  রোববার থেকে ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত হাইকোর্ট বিভাগের বিচারকাজ পরিচালনার জন্য প্রধান বিচারপতি ২০২৪ সালের ১০৭ ও ১১১ নং গঠনবিধি অনুসারে অবকাশকালীন বেঞ্চসমূহ গঠন করেছেন।  

এর মধ্যে ৭টি দ্বৈত বেঞ্চ । বাকি ৪টি একক বেঞ্চ।

বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৫ মার্চ, ২৭ মার্চ, ১ এপ্রিল, ২ এপ্রিল, ৩ এপ্রিল, ১৬ এপ্রিল ও ১৭ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত রিট শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি মো.খসরুজ্জামান ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ারের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৪ মার্চ, ২৫ মার্চ,৩১ মার্চ, ১ এপ্রিল,২ এপ্রিল, ৮ এপ্রিল,৯ এপ্রিল, ১৭ এপ্রিল ও ১৮ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত রিট শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৪ মার্চ, ২৭ মার্চ, ১ এপ্রিল,২ এপ্রিল, ৮ এপ্রিল, ১৭ এপ্রিল ও ১৮ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত কোম্পানি আইনের আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি মো.মজিবুর রহমান মিয়ার একক হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৫ মার্চ, ২৭ মার্চ, ২৮ মার্চ, ৩১ মার্চ, ২ এপ্রিল,৩ এপ্রিল, ৪ এপ্রিল,৮ এপ্রিল, ১৭ এপ্রিল ও ১৮ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত দেওয়ানি ও  কোম্পানি আইনের আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি আবু তাহের মো.সাইফুর রহমান ও বিচারপতি শাহেদ নূরউদ্দিনের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৫ মার্চ, ২৭ মার্চ, ২৮ মার্চ,  ৩১ মার্চ, ১ এপ্রিল,২ এপ্রিল ও ৩ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত ফৌজদারি আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি মো.শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি সরদার মো.রাশেদ জাহাঙ্গীরের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৭ মার্চ, ২৮ মার্চ, ১ এপ্রিল,২ এপ্রিল, ১৭ এপ্রিল ও ১৮ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত রিট ও ফৌজদারি আবেদন (দুদক ও মানিলণ্ডারিং ব্যতীত) শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি কাশেফা হোসেন ও বিচারপতি এস এম মনিরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৫ মার্চ, ২৭ মার্চ, ১ এপ্রিল, ৩ এপ্রিল ও ৪ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত রিট আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি ভীষ্মদেব চত্রবর্তী ও বিচারপতি এ কে এম রবিউল হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৪ মার্চ,২৫ মার্চ,২৭ মার্চ, ২৮ মার্চ,৩১ মার্চ, ১ এপ্রিল ও ২ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর সোয়া একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত দেওয়ানি আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি মো.ইকবাল কবির ও বিচারপতি মো.আখতারুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৭ মার্চ, ২৮ মার্চ,  ৩১ মার্চ, ১ এপ্রিল,৩ এপ্রিল,১৫ এপ্রিল ও ১৬ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর সোয়া একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত ফৌজদারি আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি ফাতেমা নজীবের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৪ মার্চ, ২৫ মার্চ, ২৮ মার্চ, ৩১ মার্চ, ১ এপ্রিল,৩ এপ্রিল  ও ৪ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয় একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত দেওয়ানি ও ফৌজদারি আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।

বিচারপতি মো.খায়রুল আলমের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ ২৪ মার্চ, ২৫ মার্চ, ২৭ মার্চ, ২৮ মার্চ, ১ এপ্রিল,২ এপ্রিল, ৩ এপ্রিল,৪ এপ্রিল, ও ১৮ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত অতীব জরুরি বিষয়াদি সংক্রান্ত দেওয়ানি ফৌজদারি আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন।