• রোববার   ২৬ মার্চ ২০২৩ ||

  • চৈত্র ১২ ১৪২৯

  • || ০৩ রমজান ১৪৪৪

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
গণহত্যা দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা স্বাধীনতা দিবসে যেসব কর্মসূচি নিয়েছে সরকার আমরা যুদ্ধ-সংঘাত চাই না: প্রধানমন্ত্রী গণহত্যা দিবসের স্বীকৃতি আদায়ে সবাইকে ভূমিকা রাখতে হবে ২৫ মার্চ ১৯৭১: রক্ত আর আর্তচিৎকারের ভয়াল রাত যে কোনো অর্জনেই ত্যাগ স্বীকার করতে হয়: প্রধানমন্ত্রী গুণীজনদের হাতে স্বাধীনতা পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত আছে বলেই আজকের উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে বাংলাদেশকে প্লেন চলাচলের কেন্দ্রে পরিণত করতে রোডম্যাপ জরুরি জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকার কাজ করে যাচ্ছে দেশের আবহাওয়া-জলবায়ু দিন দিন চরমভাবাপন্ন হয়ে উঠছে বঙ্গবন্ধুই ভূমিহীন ও গৃহহীনদের আশ্রয় দিতে গুচ্ছগ্রাম করেন ৯১-এর ঘূর্ণিঝড়ে বিএনপি সরকার কোনও ব্যবস্থা নেয়নি: প্রধানমন্ত্রী দুঃখী মানুষের মুখের হাসিই বড় প্রাপ্তি: প্রধানমন্ত্রী ১৯৯১ সালে ঘূর্ণিঝড়ের সময় খালেদা জিয়া ঘুমিয়ে ছিলেন বঙ্গবন্ধুর দেশে কোনো মানুষ ঠিকানাবিহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী আমরা যুদ্ধ ও আগ্রাসন সমর্থন করি না: শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা সাবমেরিন ঘাঁটির যাত্রা শুরু নতুন বাজার খুঁজে বের করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

পর্তুগালে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০২৩  

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযোগ্য মর্যাদায় এবং বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) বাংলাদেশ দূতাবাস প্রাঙ্গণে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদ্‌যাপন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষ্যে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ ও বঙ্গবন্ধু শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এছাড়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

দূতাবাসের প্রথম সচিব আলমগীর হোসেনের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান ও দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও পর্তুগালে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

আলোচনা সভার শুরুতেই রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে পাঠ করে শুনানো হয়।

সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ এবং শিশু দিবসের বিভিন্ন তাৎপর্য তুলে ধরেন। তাছাড়া বঙ্গবন্ধুর জীবন নিয়ে অ্যানিমেশন ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

বঙ্গবন্ধুর জীবন আদর্শ শিশুদের মাঝে উপস্থাপন করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গঠনের অংশীদার হওয়ার জন্য সকলকে উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান।

আলোচনা সভা শেষে শিশুদেরকে সঙ্গে নিয়ে রাষ্ট্রদূত কেক কাটেন এবং চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকল শিশুদের মাঝে উপহার সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। তাছাড়া গত মাসে বাংলাদেশে রেমিটেন্স প্রেরণের অবদান হিসেবে নির্বাচিত ব্যক্তিদের মাঝে উপহার ও সম্মাননা প্রদান করা হয়। সব শেষে দোয়া ও মোনাজাতের মাধ্যমে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।