• রোববার   ২৪ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ৮ ১৪২৮

  • || ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
নেতাকর্মীদের নজরদারি বাড়াতে বললেন শেখ হাসিনা কুমিল্লার ঘটনা দুঃখজনক, অপরাধীর বিচার হবে: প্রধানমন্ত্রী ‘দেশের সবচেয়ে বড় রপ্তানি পণ্য হবে ডিজিটাল ডিভাইস’ সরকারের ধারাবাহিকতা আছে বলেই উন্নয়ন সম্ভব হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী বিদেশে বিনিয়োগের প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী পূর্বাচলে প্রদর্শনীকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন আজ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কঠোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রদায়িক অপশক্তির তৎপরতা প্রতিরোধের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ‘এমন বাংলাদেশ গড়তে চাই, যেখানে শিশুরা বড় হবে সুন্দর পরিবেশে’ একটা অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বাংলাদেশকে গড়তে চাই: প্রধানমন্ত্রী আমাদের ছোট রাসেল সোনা: শেখ হাসিনা শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন করোনাকালে ১৬০০ ভার্চুয়াল সভায় অংশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে গবেষণার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনের আওতায় ৯৯ শতাংশ মানুষ: প্রধানমন্ত্রী টেকসই স্যানিটেশন জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার পূর্বশর্ত: রাষ্ট্রপতি দেশ বিক্রি করে তো ক্ষমতায় আসবো না: প্রধানমন্ত্রী কৃষিতে ভর্তুকি দিতে বাধা দিয়েছিল বিশ্বব্যাংক: প্রধানমন্ত্রী খাদ্যের অপচয় যেনো না হয় : প্রধানমন্ত্রী অপচয় কমিয়ে সুষম পুষ্টিকর খাবারের অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে

শ্রমিক মজুরিঃ রাজমিস্ত্রির ৯৪০, টাইলস মিস্ত্রির ১,১০৫ টাকা

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০২১  

নির্মাণ ও কাঠশিল্পের জন্য চূড়ান্ত হওয়া ন্যূনতম মজুরির প্রজ্ঞাপনে শ্রমিকদের মজুরির হার নির্ধারণ করা হয়েছে। মাসিক মজুরির পাশাপাশি খাতটির শ্রমিকদের জন্য দিনভিত্তিক মজুরিও নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। 

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, শহরে একজন রাজমিস্ত্রির দৈনিক মজুরি হবে ৯৪০ টাকা এবং গ্রামাঞ্চলে সেই মজুরি হবে ৮৭০ টাকা। টাইলস, মোজাইক মিস্ত্রির দৈনিক মজুরি হবে শহরে ১ হাজার ১০৫ টাকা এবং গ্রামে ১ হাজার ২০ টাকা। আর সাধারণ শ্রমিকের দৈনিক মজুরি শহরাঞ্চলে হবে ৬৮০ টাকা এবং গ্রামে ৬২০ টাকা। 

চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহে প্রজ্ঞাপনটি জারি করা হয়।

সর্বশেষ ২০১২ সালে নির্মাণ ও কাঠশিল্পের শ্রমিকদের ন্যূনতম দৈনিক মজুরি ছিল ৩৭৫ টাকা। বর্তমানে সেটি বেড়ে হয়েছে ৬৮০ টাকা। শহরাঞ্চলের জন্য এটি প্রযোজ্য হলেও গ্রামে মজুরি হবে ৬০ টাকা কম, অর্থাৎ ৬২০ টাকা।

নির্মাণ ও কাঠশিল্পের নতুন মজুরি কাঠামোতে ছয়টি গ্রেড রয়েছে এবং সব গ্রেডেই শহরাঞ্চলে বাড়িভাড়া মূল মজুরির ৪০ শতাংশ এবং গ্রামাঞ্চলে ৩০ শতাংশ। এছাড়া, শহরাঞ্চলে চিকিৎসা ভাতা ৮০০ টাকা এবং যাতায়াত ভাতা ৪০০ টাকা, গ্রামাঞ্চলে সেটি যথাক্রমে ৬০০ এবং ৩০০ টাকা। যদিও সব গ্রেডেই মূল মজুরি শহর এবং গ্রামে একই।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, একজন শ্রমিকের শিক্ষানবিশকাল হবে তিন মাস, কিন্তু সেটি প্রয়োজনে আরও তিন মাস বাড়াতে পারবেন নিয়োগদাতা। শিক্ষানবিশকালে মজুরি হবে মাসিক ১০ হাজার টাকা। দৈনিক ভিত্তিতে সেটি দাঁড়াবে ৫০০ টাকায়। এছাড়া নতুন মজুরিকাঠামো সমন্বয় করার পর একজন শ্রমিক এক বছর কাজ করলে পরবর্তী বছর তাঁর মূল মজুরি ৫ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। পরের বছরও একই হারে বাড়বে।