• বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ২ ১৪৩১

  • || ০৯ মুহররম ১৪৪৬

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী চীন সফর সংক্ষিপ্ত করে আজ দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-বেইজিং ৭ ঘোষণাপত্র, ২১ চুক্তি সই চীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে শেখ হাসিনা

‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনে ২২-২৩ মার্চ সংসদে বিশেষ অধিবেশন

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২০  

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন উপলক্ষে আগামী ২২ ও ২৩ মার্চ সংসদে বিশেষ অধিবেশন বসবে। আর ১৯ মার্চ শিশু দিবস উপলক্ষে শিশুদের নিয়ে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান শুরু করবে জাতীয় সংসদ।

২২ মার্চ এ অধিবেশন শুরুর আগে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন সংসদ সদস্যরা। এরপর সংসদের বিশেষ এ অধিবেশনে যোগ দেবেন তারা।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদের ‘কার্য উপদেষ্টা কমিটি’র ষষ্ঠ বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠকে নেয়া অন্য সিদ্ধান্তগুলো হুলো- চলমান ষষ্ঠ অধিবেশন আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার পর্যন্ত চলবে। প্রতিদিন বিকাল ৪টায় অধিবেশন শুরু হবে। প্রতি শুক্র ও শনিবার অধিবেশন মুলতবি থাকবে। বিশ্ব ইজতেমার মোনাজাতের জন্য ১২ জানুয়ারিও মুলতবি থাকবে। তবে প্রয়োজনে সময় পরিবর্তন করতে পারবেন স্পিকার।

বৈঠকে জানানো হয়, ষষ্ঠ অধিবেশনে চারটি সরকারি বিলের নোটিশ রয়েছে। তিনটি অনিষ্পন্ন সরকারি বিলও আছে। মোট সাতটি সরকারি বিলের মধ্যে একটি সরকারি বিল পাশের অপেক্ষায়, দুটি কমিটিতে পরীক্ষাধীন এবং চারটি উত্থাপনের অপেক্ষায় রয়েছে। বেসরকারি সদস্যদের নিকট থেকে কোনো বিলের নোটিশ পাওয়া যায়নি। পূর্বে প্রাপ্ত ও অনিষ্পন্ন দুটি বেসরকারি বিল রয়েছে।

এ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য ৮৯টি প্রশ্ন ও মন্ত্রীদের জন্য ২২৭৩টি প্রশ্নসহ প্রাপ্ত মোট প্রশ্নের সংখ্যা ২৩৬২টি।

কমিটির সভাপতি সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। কমিটির সদস্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, তোফায়েল আহমেদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ওবায়দুল কাদের, রাশেদ খান মেনন, হাসানুল হক ইনু, মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, আনিসুল হক, গোলাম মোহাম্মদ কাদের, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এবং নূর-ই-আলম চৌধুরী বৈঠকে অংশ নেন।