• বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ২ ১৪৩১

  • || ০৯ মুহররম ১৪৪৬

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী চীন সফর সংক্ষিপ্ত করে আজ দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-বেইজিং ৭ ঘোষণাপত্র, ২১ চুক্তি সই চীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রীর চিঠিতে সফলতার পথে আওয়ামী লীগ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১০ ডিসেম্বর ২০১৮  

আর মাত্র ১৯ দিন পর দেশে অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এ নির্বাচনে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতা ধরে রাখতে নির্দিষ্ট পথে এগুচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে দলীয় মনোনয়নবঞ্চিত হওয়া বিদ্রোহী প্রার্থীদের দলের পক্ষে নিয়ে আসা ক্ষমতাসীন দলের সভানেত্রী ও প্রধান শেখ হাসিনাসহ দলের সকল নেতাকর্মী জন্য একটি চ্যালেঞ্জ ছিলো। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে ইতোমধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে সফল হয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার খোলা চিঠিতে সাড়া দিয়ে বিদ্রোহ প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ শুরু করছেন অনেক বিদ্রোহী প্রার্থী। এতেই সফলতার পথে হাঁটছে দলটি। চূড়ান্ত প্রচার-প্রচারণায় নামার আগেই ঘর ঠিক করতে সফল হয়েছেন শেখ হাসিনা। তথ্যমতে, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে এবার আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন থেকে বাদ পড়েন দলের অনেক হেভিওয়েট প্রার্থী। এ নির্বাচনে পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি ও এলাকায় গ্রহণযোগ্যতা এবং বিজয়ের সম্ভাবনা বিবেচনায় নতুন কিছু মুখ বেছে নিয়েছে আওয়ামী লীগ। আর সেখানেই বাদের খাতায় নাম পড়ে গেছেন বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট প্রার্থী। আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, জামালপুর-৫ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও সাবেক ভূমিমন্ত্রী রেজাউল করিম হীরা, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম ও আওয়ামী লীগের অপর সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুর রহমানসহ অনেক নেতাকর্মী। সে সময় মনোনয়নবঞ্চিত এই সকল নেতাদের গণভবনে ডাকেন দলীয়প্রধান শেখ হাসিনা। নেত্রীর কথায় সাড়া দিয়ে এ নির্বাচনে দলের অনেক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন তারা। শুধু এসব প্রার্থী নয়, আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে যেসব প্রার্থী বিদ্রোহ (স্বতন্ত্র) করতে চেয়েছিল সেসব নেতাকর্মীর সাথেও কথা বলেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী। তাতে অনেক প্রার্থী প্রার্থিতা বাতিলে আগ্রহ দেখান। সর্বশেষ গত শনিবার বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হয়েছেন সেইসব নেতাকর্মীদের উদ্দেশে খোলা চিঠি দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিদ্রোহী প্রার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনার কাছে আমার বিশেষ অনুরোধ, ঐক্যবদ্ধ নির্বাচন অনুষ্ঠানের স্বার্থে মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে আপনার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে মহাজোটকে বিজয়ী করার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা গ্রহণ করবেন। আপনার ত্যাগ, শ্রম ও আন্তরিকতা সবকিছুই আমার বিবেচনায় আছে। শেখ হাসিনা ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীদের বলেছেন, বিএনপি জামায়াতের হিংস্র থাবা থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষা করে বাংলাদেশকে টেকসই গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থায় প্রতিষ্ঠার জন্য আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে আমরা সমমনা অন্যান্য রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জোটবদ্ধভাবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমাদের প্রাণপ্রিয় সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে জয়লাভ করে আবারো বাংলাদেশের জনগণের সেবা করার সুযোগ পাবে। সেই বিজয়ের অংশীদার হবেন আপনিও। আমি নিশ্চিতভাবে বলতে পারি, আওয়ামী লীগ যদি ঐক্যবদ্ধ থাকে, তাহলে নৌকা মার্কাকে পরাজিত করার সাংগঠনিক শক্তি কারো নেই। চিঠির কপি ডাকযোগে মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থীদের কাছে পাঠানো হবে। খোদ দলীয়প্রধান শেখ হাসিনার স্বাক্ষরিত চিঠির খবরে উচ্ছ্বসিত মনোনয়নবঞ্চিতরা। ক্ষমতায় আসলে মূল্যায়ন করা হবে এমন প্রতিশ্রুতিতে সন্তুষ্ট তারা। আ.লীগ মতে, নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার খোলা চিঠির কারণে বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থিতা প্রত্যাহার করায় ঘরের মাঠে সফলতা দেখছে আওয়ামী লীগ। তৃণমূলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করলে নৌকার বিজয়ে তেমন বেগ পেতে হবে না বলে মনে করছে দলটি। এদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ-৪ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের কোনো আমেজ ছিল না। মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির (জাপা) রওশন এরশাদ সদর আসনে মনোনয়ন পাচ্ছেন, এটা অনেক দিন আগেই মেনে নিয়েছিল আওয়ামী লীগ। তবে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ব্যবসায়ী নেতা ও ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আমিনুল হক ওরফে শামীম সদর আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে বেশ চমক ও আলোচনার সৃষ্টি করেছিলেন। তবে গত শনিবার দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা খোলা চিঠি দেওয়ায় এক সংবাদ সম্মেলন করে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক হাশেম রেজা বলেন, নেত্রী যে সিদ্বান্ত দিয়েছেন, আমি তা মেনেই নৌকার পক্ষে মাঠে নেমেছি। এখন নেত্রী আমাদের কষ্ট বুঝতে পেরেছেন এবং আগামীতে মূল্যায়ন করার যে ঘোষণা দিয়েছেন তাতেই খুশি। কারণ তিনি উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের নেতা যা বলেন, তাই করেন। আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম আমার সংবাদকে বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে বিদ্রোহী প্রার্থীদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য শেখ হাসিনার খোলা চিঠির গুরুত্ব অনেক বেশি। নেত্রী এই চিঠির কারণে এবার একাদশ নির্বাচনে মনোনয়নবঞ্চিতরা নৌকার পক্ষে কাজ করবে এবং আগামী ৩০ তারিখে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে মাঠে কাজ করবে।