• বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৩ ১৪৩১

  • || ১০ মুহররম ১৪৪৬

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

মেঘনায় গোসলে নেমে স্ত্রীর চোখের সামনে ডুবে গেলেন স্বামী

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২৪  

চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনাল এলাকায় মেঘনা নদীতে স্বামী-স্ত্রী একসঙ্গে গোসলে নেমে স্ত্রীর চোখের সামনে তীব্র স্রোতে ডুবে গেলেন স্বামী জহিরুল ইসলাম (৩০)। বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকাল সাড়ে ৭টায় চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনালের পাশে টিলাবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর সেখানে বসবাসরত শতশত মানুষ নদীপাড়ে ভিড় করে। সেখানে স্বজনদের আহাজারি করতেও দেখা গেছে।

এদিকে, খবর পেয়ে ঘটনার পরপরই বিআইডাব্লিউটিএ ও নৌ ফায়ার সার্ভিসের একাধিক ডুবুরিদল নিখোঁজ জহিরুলের সন্ধানে অভিযান শুরু করেছে। কিন্তু ঘটনার তিন ঘণ্টা পরও নিখোঁজ ব্যক্তির কোনো সন্ধান মেলেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নিখোঁজ জহিরের বাড়ি বরিশাল এলাকায়। তিনি তার স্ত্রী ও দু সন্তান নিয়ে মেঘনাপাড়ের টিলাবাড়ি এলাকায়  ভাড়া বাসায় থাকতেন। তবে জহির কখনো অটোরিকশা চালাতেন আবার কখনো লঞ্চ টার্মিনালে বাদাম বিক্রি করতেন।

নিখোঁজ জহিরের ভাই নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ভাই সাঁতার জানতেন। এ জন্য প্রতিদিন এখানে গোসল করেন। বৃহস্পতিবার সকালে তার স্ত্রী মনিরা বেগমসহ গোসল করতে নেমে আর উঠেনি। আমরা ধারণা করছি নদীর তীব্র স্রোতে ডুবে গেছেন তিনি।’

চাঁদপুর নৌ ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ মোসলেম মিয়াজী বলেন, ‘আমরা খবর পেয়ে ডুবুরি দল নিয়ে নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছি। কিন্তু নদীর তীব্র স্রোতে তার সন্ধান করা কষ্ট হচ্ছে। সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত নিখোঁজ জহিরের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।’