বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
রাজধানীতে `ফইন্নী গ্রুপের` ৬ সদস্য আটক স্পিকারের সঙ্গে সার্বিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাৎ ক্লাসিকোর ভেন্যু পাল্টানোর অনুরোধ লা লিগার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৮ কাউন্সিলর নজরদারিতে যেমন ছিল নবিজির জীবনের শেষ মুহূর্তটি দলের নাম ভাঙিয়ে অন্যায় করতে দেবেন না মেয়র সাদিক কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ বরিশালে জাল-ইলিশসহ ২২জেলে আটক নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
৪২

১৯৭২ সালের পর নাসা যে কারণে চাঁদে যাওয়ার সাহস দেখায়নি

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

১৯৬৯ সালের ২১ জুলাই চাঁদের পিঠে প্রথম পা রাখেন নীল আর্মস্ট্রং। এর ২০ মিনিট পর তার সঙ্গে যোগ দেন অপর মার্কিন নভোচারী এডুইন অলড্রিন। সেই অভিযানের পর ১৯৭২ সাল পর্যন্ত ছয় বার মানুষের পা পড়ে চাঁদের বুকে। এরপর নাসা আর কোনো চন্দ্র অভিযান পরিচালনা করেনি। কিন্তু কেন? এই প্রশ্ন এখনো অনেকের মনে উদয় হয়।

মঙ্গল গ্রহ নিয়ে বিজ্ঞানীরা এখন যতটা আগ্রহী, চাঁদ নিয়ে ঠিক ততটা নয়। পৃথিবীর উপগ্রহটিতে ১৯৫৯ সালে প্রথম নভোযান পাঠায় রাশিয়া। ইসরো’র ‘চন্দ্রযান-২’ ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে চাঁদে আর কোনো অভিযান চালানো হয়নি। তবে দীর্ঘ সময় চাঁদে যাওয়ার অভিযান না চালানোর বিষয়ে এলিয়েন বিশ্বাসীদের দাবি, চাঁদে যারা গিয়েছিলেন তারা এলিয়েনের দেখা পেয়েছিলেন। চাঁদের বুকে তারা এমন কিছু এলিয়েন স্থাপনা দেখেছিলেন যা তাদের মাথা ঘুরিয়ে দেয়।

অ্যাপোলো ১৪ তে চাঁদে যাওয়া নভোচারী এডগার মিশেল এই বিশ্বাসের ওপর খানিকটা ঘি ঢেলেছেন! তিনি অকপটে বলেছিলেন, যখন আমি উপগ্রহটির মাটিতে হাঁটছিলাম তখন আমার মনে হচ্ছিলো আমি একা নই। অনেকেই আমার পিছু নিয়েছে; তবে ঠিক ক’জন তা জানা ছিল না! এমনকি তারা কোথা থেকে কীভাবে আমাদের ওপর নজর রাখছিল তাও জানি না।

 

চাঁদে এলিয়েন স্থাপনা নিয়ে নানা ঘটনা রটেছে

 

চাঁদের পিঠে পা রাখা দ্বিতীয় এডুইন অলড্রিনও জানিয়েছিলেন, চাঁদে যে কেউ আছে তা তিনি প্রতিমুহুর্তে উপলব্ধি করেছিলেন। তিনি বলেন, ‘পরিবেশটা গা চমচমে তো ছিলই! এর মূল কারণ হয়তো কেউ আমাদের পিছু নিয়েছিল। তাছাড়া আমাদের নজরে একটি দু’টি নয়.. একাধিক অচেনা নভোযান চোখে পড়ে!’

অ্যাপোলো ১১ অভিযানকালে তাদের শাটলযানকে ঘিরে বেশকিছু রহস্যময় আলোর বস্তুকে ঘুরতে দেখেন এডুইন অলড্রিন। এই ধরনের আলো তিনি চাঁদের অনেক স্থানেই ঘুরতে দেখেছিলেন। যা দেখে তার মনে হয়েছে এগুলো ব্যাখ্যাতীত সেসব যান, যেগুলোকে আমরা ইউএফও বলে থাকি। যদিও পরের দিকে এই বিষয়ে কথা বলা একদম বন্ধ করে দেন তিনি।

চাঁদে বুদ্ধিমান প্রাণীদের যে অস্তিত্ব রয়েছে তা নাসা জানে। তাদের সঙ্গে যোগাযোগও হয়। এমনটাই বিশ্বাস করেন এলিয়েন বিশ্বাসীরা। অনেকে এও বলেন, একটানা ৬ বারের অভিযানে তারা এলিয়েনের কাছ থেকে হুমকিও পান। আর সেকারণেই চাঁদ নিয়ে পরবর্তীতে আর আগ্রহ দেখায়নি নাসাসহ বিশ্বের কোনো দেশের মহাকাশ সংস্থাই।

এই বিভাগের আরো খবর