• শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
সুযোগ আছে, করোনা সংকটেও বিনিয়োগ আনতে হবে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জাপানের প্রধানমন্ত্রী আবের ফোন করোনায় আরও ৩৩ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৫৪ কামাল বেঁচে থাকলে সমাজকে অনেক কিছু দিতে পারতো: শেখ হাসিনা সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৫০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৯১৮ করোনায় আরও ৪৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৯৫ ঈদ-বন্যা ঘিরে করোনা সংক্রমণের হার বাড়তে পারে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণ, ‘নব্য জেএমবির সদস্য’ আটক করোনায় আরও ৩৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০০৯ ১২ কোটি টাকা আত্মসাত করে গ্রেফতার যমুনা ব্যাংকের ম্যানেজার থানায় বিস্ফোরণে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা নেই : পুলিশ ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ২৯৬০, মৃত্যু ৩৫ হাতের তালু দিয়ে আকাশ ঢাকা যায় না: বিএনপিকে কাদের দেশে একদিনে ৩৭ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৭৭২ সাবরিনার অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে ৪ জনকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫৪, শনাক্ত ২২৭৫ কোরবানি পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৫২০ তিন দিনের রিমান্ডে শারমিন
২২১

১৪০ কোটি টাকা নিয়ে লন্ডনে তারেকের আশ্রয়ে লতিফ সিদ্দিকীর পরিবার

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২০  

দুটি প্রতিষ্ঠানের নামে তিনটি ব্যাংক থেকে অন্তত ১৪০ কোটি টাকা নিয়ে ঋণখেলাপি হয়েছেন সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর স্ত্রী ও ছেলেমেয়েরা। এর আগে বিভিন্ন দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে দল থেকে বহিষ্কার করে আওয়ামী লীগ।

এদিকে অর্থ আদায়ে ব্যাংকগুলো করা মামলায় কোর্টে হাজির না হওয়ার তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। তবে এর মধ্যেই দেশ ছেড়ে পালিয়েছে লতিফ সিদ্দিকীর পুরো পরিবার।

একাধিক সূত্র জানিয়েছে, বিভিন্ন ধরনের প্রতারণামূলক কৌশল অবলম্বন করে বাংলাদেশ থেকে লন্ডনে পাড়ি জমিয়েছে লতিফ সিদ্দিকীর পরিবার। সেখানে তারেক রহমানের সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলেছেন লতিফ সিদ্দিকী।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার হওয়ার পর থেকেই লতিফ সিদ্দিকীর সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেন বিএনপির লন্ডন পলাতক নেতা তারেক। বাংলাদেশ থেকে টাকা নিয়ে বর্তমানে লন্ডনে তারেক রহমানের সঙ্গে ব্যবসা করছেন সাবেক এই মন্ত্রী। এছাড়া সেখানে আশ্রয়ের ব্যবস্থা করে দেয়ার বিনিময়ে বড় একটি অংশ দিতে হয়েছে বিএনপি নেতা তারেককে।

এর আগে দেশে প্রিন্টিং প্রেস ও রিয়েল এস্টেট ব্যবসার জন্য মেজেস্টিকা হোল্ডিংস ও ধলেশ্বরী লিমিটেড কোম্পানি নামে দুটি প্রতিষ্ঠান গঠন করেন লতিফ সিদ্দিকীর পরিবারের সদস্যরা। আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর স্ত্রী লায়লা সিদ্দিকী প্রতিষ্ঠান দুটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এবং ছেলে অনিক সিদ্দিক ও মেয়ে রাইনা ফারজিন পরিচালক পদে আছেন। এবি ব্যাংকের কারওয়ান বাজার শাখা থেকে মেজেস্টিকার নামে ৪০ কোটি ৭২ লাখ এবং ধলেশ্বরীর নামে ১৪ কোটি ৯২ লাখ টাকা ঋণখেলাপি রয়েছে। একই কোম্পানির নামে জনতা ব্যাংক থেকে ৫১ কোটি; পদ্মা ব্যাংক থেকে ধলেশ্বরী কোম্পানির নামে ৩০ কোটি টাকা নেওয়া হয়েছে।

গত বছরের জুনে জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী শীর্ষ ৩০০ খেলাপির যে তালিকা প্রকাশ করেন, তাতে মেজেস্টিকা রয়েছে ২১২ নম্বরে। ওই তালিকায় কোম্পানিটির নামে ঋণ দেখানো হয়েছে ৮৫ কোটি টাকা।

পবিত্র হজ, হযরত মুহাম্মদ (স.), তাবলিগ জামাতকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের কারণে দেশে ও দেশের বাইরে ব্যাপক নিন্দিত হন তিনি। এর জেরে মন্ত্রিসভার সদস্যপদ থেকে এবং আওয়ামী লীগের দলীয় পদ থেকে অপসারিত হন। এরপর সংসদ সদস্যের পদ থেকেও পদত্যাগে বাধ্য হন লতিফ সিদ্দিকী।

সরকারি জমি অবৈধভাবে বিক্রির দায়ে তার বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত বছরের জুনে তাকে কারাগারেও পাঠানো হয়। মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়ার পরই তার ছেলেমেয়েরা ব্যবসা গুটিয়ে নিতে শুরু করেন। জানা গেছে, মেয়ে রাইনা ফারজিন বিদেশে লেখাপড়া করে সেখানেই বসবাস করছেন। ২০১৭ সাল থেকে ব্যাংকের খাতায় তারা ঋণখেলাপি। এদিকে লতিফ সিদ্দিকীকে দেশে ফেরাতে ইন্টারপোলের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে বাংলাদেশ সরকার।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর