শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
বরিশালে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উদযাপন আজকের নবীন কর্মকর্তারাই হবেন ৪১ সালের সৈনিক : প্রধানমন্ত্রী ঘুষ-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সজাগ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে দায়িত্বশীল হতে হবে: স্পিকার বয়স্ক বাবা-মাকে না দেখলে জেল চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে যারা ফখরুল-রিজভীসহ ১৩৫ জনের বিরুদ্ধে দুই মামলা আগৈলঝাড়ায় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালন  সবার জন্য উন্মুক্ত থাকছে ‘কনসার্ট ফর ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এসক্যাপ অধিবেশনে যোগ দিতে শেখ হা‌সিনা‌কে আমন্ত্রণ কৃষি আধুনিক হলেই মাথাপিছু আয় বাড়বে: কৃষিমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস আজ মাওলানা ভাসানীর জন্মবার্ষিকী আজ ববি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন : সভাপতি আরিফ-সম্পাদক খোরশেদ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো সুখী সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়ার কাল নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে বললেন ওবায়দুল কাদের ‘ফুড চেইনের মাধ্যমে প্লাস্টিক শরীরে প্রবেশ করছে’ বিশাল জয়ে শুরু কুমিল্লার বঙ্গবন্ধু বিপিএল মিশন টাইম ম্যাগাজিনের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ গ্রেটা থানবার্গ বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে ৩০ কোটি ডলার দেবে এডিবি
২১

সেনা কল্যাণ সংস্থার চারটি স্থাপনা উদ্বোধন

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের প্রতিষ্ঠান সেনা কল্যাণ সংস্থার চারটি স্থাপনা উদ্বোধন করেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানী মহাখালী রেলক্রসিংয়ের পাশে এসকেএস টাওয়ারে অনুষ্ঠান থেকে সুইচ চেপে স্থাপনাগুলো উদ্বোধন করেন।

নতুন চালু হওয়া স্থাপনার মধ্যে রয়েছে ঢাকায় এসকেএস টাওয়ার ও এসকে বিজনেস মার্ট এবং চট্টগ্রামে সেনা কল্যাণ ট্রেড সেন্টার ও সেনা কল্যাণ কনভেনশন সেন্টার।

সুপার শপ, জুয়েলারি, ফ্যাশন পণ্য, রেস্টুরেন্ট, সিনেপ্লেক্সসহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান থাকছে এসকে বিজনেস মার্টে।
অনুষ্ঠানে সেনাপ্রধান বলেন, “সেনা কল্যাণ সংস্থা একটি ব্যবসামুখী সংস্থা। এই প্রতিষ্ঠান থেকে যা আয় হয় সেটা সেনাবাহিনীতে দেওয়া হয় না। তিন বাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্তদের কল্যাণে ব্যয় করা হয়; যা ইনডিরেক্টলি তিন বাহিনীকে সহায়তাই করে।

“সেনা কল্যাণ সংস্থার লভ্যাংশ থেকে শিক্ষা, চিকিৎসা, বিধবা ও অসহায় মানুষের সহায়তা করা হয়ে থাকে। অবসরে যাওয়া সামরিক ব্যক্তিবর্গের পাশাপাশি অসামরিক মানুষও সেই সহায়তা পেয়ে থকেন।”
প্রতিযোগিতার বাজারে নিজেদের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখতে পণ্য ও সেবার মান বাড়ানো এবং দামের বিষয়ে সজাগ থাকার আহ্বান তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সেনা বাহিনী, বিমান বাহিনী ও নৌ বাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের কল্যাণে ৪৭ বছর ধরে চলছে সেনা কল্যাণ সংস্থার কার্যক্রম। রিয়েল স্টেট, ভোজ্য তেল, এলপিজি, আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন খাতে ব্যবসায়িক তৎপরতা আছে সংস্থাটির। সেনাবাহিনী প্রধান পদাধিকারবলে সংস্থার ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান। 

এই বিভাগের আরো খবর