শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
কলকাতা থেকে দেশে ফিরলেন প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে হিযবুত তাহরীরের আঞ্চলিক প্রধান আটক সরকার আলেমদের সঙ্গে নিয়ে দেশের উন্নয়ন করতে চায়: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী নরসিংদীর এমপি বুবলীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার চালের বাজার অস্থিতিশীল করলে কাউকে ছাড় নয়: খাদ্যমন্ত্রী ভারত মুক্তিযুদ্ধের সময় পাশে ছিল তা ভুলিনি: প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসকদের নৈতিক শিক্ষা খুবই প্রয়োজন: পরিকল্পনামন্ত্রী আ’লীগে অনুপ্রবেশকারী-সন্ত্রাসীদের স্থান নাই: শিল্পমন্ত্রী সামাজিক মাধ্যমে গুজব বন্ধে বিধিমালা হচ্ছে- তথ্যমন্ত্রী শুক্রবারের মধ্যে যান চলাচল স্বাভাবিক হবে: কাদের ঘণ্টা বাজিয়ে খেলার উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তোলা হবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সশস্ত্র বাহিনীকে কাজ করার আহ্বান আজ বরিশালে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে যুদ্ধ জাহাজ সড়ক পরিবহন আইনের অসঙ্গতি দূর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বিএনপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব সৃষ্টি করছে’- কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী
১১৭

সেই সাধনার বর্তমান দিনকাল

প্রকাশিত: ১৩ অক্টোবর ২০১৯  

জামালপুরের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নকারী ডিসি কেলেঙ্কারি ঘটনায় জড়িত সানজিদা ইয়াসমিন সাধনারও শাস্তিমুলক ব্যবস্থার দাবী জানিয়েছে জামালপুরের নানা শ্রেণিপেশার মানুষ। গুঞ্জন উঠেছে, সাধনার শাস্তি না হওয়া এবং সাধনাকে বদলি না হবার পেছনে নাটের গুরু কে?

সাধনার সাথে সাবেক ডিসির যৌন কেলেঙ্কারির ঘটনায় মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি ২৯ আগস্ট সাধনাকে দুই ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে। সেদিনই সাধনা ৫ দিনের ছুটির আবেদন করেন। এর আগে ২৬ আগস্ট অফিসে এসে জ্ঞান হারান সাধনা। ২৭ আগস্ট থেকে ৩ দিনের ছুটির আবেদন করেন তিনি। এই ৩ দিনের ছুটি মঞ্জুর হয় তার। ২৯ আগস্ট অফিসে এসে তিনি ১ সেপ্টেম্বর থেকে ফের ৫ দিনের ছুটির আবেদন করলে ৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবারও ৩দিনের ছুটি মঞ্জুর হয়। এই ছুটি শেষ হবার পর থেকে এখনও অফিসে এসে হাজিরা খাতায় শুধু স্বাক্ষর দিয়ে বাড়ি চলে যান সাধনা।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, সাবেক ডিসি আহমেদ কবীরের নারী কেলেঙ্কারি ঘটনায় তদন্ত রিপোর্টের পর জেলা প্রশাসকের গোপনীয় শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলী ও রদবদল হয়েছে।

গোপনীয় শাখার সিএ কাম ইউডিএ মো. সাখাওয়াত হোসেন প্রশাসনিক পদে পদোন্নতি পাওয়ার পরও মৌখিক নির্দেশে এ পদে রেখেছিলেন। পূর্বের পদে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বদলি করা হয়। অফিস সহকারী মোছা. ফারজানা বেগমকে শিক্ষা কল্যাণ শাখায়, ফরাশম্যান মো. সরোয়ার হোসেনকে ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে পরিচ্ছন্ন কর্মী পদে, জারিকারক হাফিজুর রহমানকে বকসীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে একই পদে ও ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মী পারুল বেগমকে নেজারত শাখায় বদলি করা হয়।

জামালপুরের জেলা প্রশাসক মো. এনামুল হক এ প্রতিবেদককে বলেন, গোপনীয় শাখাকে ঢেলে সাজানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট এখনো হাতে আসেনি। তদন্ত রিপোর্টের কপি পেলে সেখানে নির্দেশনা মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের আরো খবর