রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৪ ১৪২৬   ০৪ শা'বান ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার করোনায় আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জনসমাগম করবেন না: প্রধানমন্ত্রী অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী আজ থেকে একসাথে দু`জন রাস্তায় হাঁটতে পারবে না জাতির উদ্দেশে আজ ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নিষেধাজ্ঞা অক্ষরে অক্ষরে পালন করুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত করোনা ছোঁয়াচে, এক মিটার দূরত্বে থাকার পরামর্শ টিসিবি-ভোক্তা অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে ১০ দিন গণপরিবহন বন্ধ সারাদেশে যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ সকল বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও বন্ধের নির্দেশ সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ ঘোষণা
১১৪

সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে আসামিকে ধরল পুলিশ!

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০২০  

 

সাত সকালে ক্যাম্পাসে যাচ্ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদালয়ের (জবি) নাট্যকলা বিভাগের এক ছাত্রী। কবি নজরুল কলেজের পেছনের সড়কে আসার পর বাইকে আসা এক বখাটে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে চলে যায়। ওই ঘটনায় মামলা করে মেয়েটি। পরে আশপাশের প্রায় শতাধিক সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে মূল আসামি আনুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

রবিবার সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছেন সূত্রাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াজেদ। উদ্ধার করা হয় ঘটনার সময় ব্যবহৃত মোটরসাইকেল। গ্রেফতার হওয়া আনু খুন, ডাকাতিসহ আরও চার মামলার আসামি বলে জানিয়েছেন কাজী ওয়াজেদ।

সূত্রাপুরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, ঘটনার আগের দিন রাতভর মদপান করে সকালে দূর সম্পর্কের ভাগিনাকে নিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হয় অনু। অনেকটা হিরোইজম ভাব নিয়ে ছুটতে থাকে সাতসকালে। হঠাৎ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রী সামনে পড়লে চলন্ত অবস্থাতেই তার শ্লীলতাহানি ঘটায় তারা।
এই ঘটনায় চুপ করে না থেকে মেয়েটি প্রতিবাদ করায় ধন্যবাদ জানান তিনি। কারণ সে অজ্ঞাতনামা দুজনকে আসামি করে মামলা করেন।

কিভাবে আসামি গ্রেফতার তা জানিয়ে কাজী ওয়াজেদ বলেন, ঘটনার পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ঘটনাটি পুলিশকে জানায়। কিন্তু ঘটনায় জড়িতদের কোনো কুলকিনারা পাওয়া যাচ্ছিলো না। পরে উধ্বর্তন কর্তকর্তারাও সবাই যুক্ত হন ঘটনা উদঘাটনে। কিন্তু কোনোভাবেই রহস্য উদঘাটন করা যাচ্ছিলো না। প্রায় ১০০টি সিসি ক্যামেরা ফুটেজ পর্যালোচনা করা হয়। প্রযুক্তিগত তদন্তে পরে রহস্য উদঘাটন হয়।

এই বিভাগের আরো খবর