বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ২ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীকে জার্সি উপহার দিলেন ফিফা সভাপতি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফিফা প্রেসিডেন্টের সৌজন্য সাক্ষাৎ বাউল সম্রাট লালন ফকিরের তিরোধান দিবস আজ একদিন পিছিয়ে আজ হেমন্তের শুরু ২০ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুবলীগের নেতাদের বৈঠক যে কারণে প্রেমিক বা প্রেমিকা হিসাবে সাংবাদিকরাই সেরা! বাংলাদেশে কাজ করার অনেক জায়গা আছে: ফিফা সভাপতি সৌদিতে বাসে আগুন ধরে ৩৫ ওমরাহযাত্রী নিহত রাজধানীতে `ফইন্নী গ্রুপের` ৬ সদস্য আটক স্পিকারের সঙ্গে সার্বিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাৎ ক্লাসিকোর ভেন্যু পাল্টানোর অনুরোধ লা লিগার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৮ কাউন্সিলর নজরদারিতে যেমন ছিল নবিজির জীবনের শেষ মুহূর্তটি দলের নাম ভাঙিয়ে অন্যায় করতে দেবেন না মেয়র সাদিক কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ বরিশালে জাল-ইলিশসহ ২২জেলে আটক নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন
৫১৬৭

সরকারের সাড়ে তিন লাখ শূন্য পদে শীঘ্রই নিয়োগ

প্রকাশিত: ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে প্রায় সাড়ে তিন লাখ পদ শূন্য রয়েছে। তীব্র জনবল সঙ্কটে স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড ব্যাহত হচ্ছে। এ সঙ্কট থেকে শিগগিরই বেরিয়ে আসার উপায় খুঁজছে সরকার।

জানা গেছে, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সচিব সভায় খালি থাকা ১১তম থেকে ২০তম গ্রেডের পদে জরুরি জনবল নিয়োগের বিষয়টি তোলা হয়। সভায় জনবল সংকটের কথা উঠলে বিকল্প কমিশন গঠনের প্রস্তাব আসে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এ ব্যাপারে গণমাধ্যমকে বলেছেন, গ্রেডগুলোর বিদ্যমান শূন্য পদ পূরণের আলাদা কমিশন গঠন করা যায় কি না, সে বিষয়ে বিধিবিধান পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে একটি ধারণাপত্র তৈরির করা হবে। এ জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিবকে (সমন্বয় ও সংস্কার) দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ১১ থেকে ২০তম গ্রেডেই বেশি পদ শূন্য রয়েছে। এমন অনেক পদ রয়েছে যেগুলোতে লিখিত পরীক্ষার দরকার হয় না। সেগুলোতে শুধু মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমেই জনবল নিয়োগ দেওয়া সম্ভব বলেও জানান তিনি।

জানা গেছে, বর্তমানে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে সাড়ে ১৩ লাখ পদ রয়েছেন বলে জানা গেছে। ২০০৯ সালেও শূন্য পদে দ্রুত নিয়োগ দিতে একাধিক কমিশন করার কথা ওঠে। তবে শেষ পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখেনি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ও শিক্ষক নিয়োগে আলাদা কমিশন গঠনের প্রস্তাব দিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

সম্প্রতি সচিব সভায় আলাদা কমিশন গঠন করা ছাড়াও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদপ্তর ও সংস্থার শূন্য পদে নিয়োগ কার্যক্রম চালু রাখার সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া দাপ্তরিক কাজে আরও গতি আনতে ই-নথি কার্যক্রম বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে।

এই বিভাগের আরো খবর