রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২১ ১৪২৬   ১১ শা'বান ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান ঘরে বসে পড়াশোনা করতে হবে, শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রী করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার করোনায় আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল
১০৭

সরকারকে গয়েশ্বরের ধন্যবাদ, ক্ষুব্ধ বিএনপির হাইকমান্ড

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২২ মার্চ ২০২০  

করোনাভাইরাস ইস্যুতে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। এ নিয়ে লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ দলীয় হাইকমান্ড ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে।

বিএনপি হাইকমান্ডের অভিমত, হঠাৎ গয়েশ্বরের সুর বদলের পেছনে নিশ্চয়ই কোন ব্যক্তিস্বার্থ লুকায়িত আছে। তার এই সুর বদল কি দলত্যাগের আভাস কি না, সেটি নিয়েও ধোঁয়াশায় পড়েছে দলটির হাইকমান্ড।

দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে, দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর সরকার তা প্রতিরোধে নিরলসভাবে কাজ করছে। গ্রহণ করেছে জনগণের সুরক্ষায় নানা ইতিবাচক পদক্ষেপও। অথচ বিএনপি ও ২০ দলের নেতাকর্মীরা তা অস্বীকার করে উল্টো সরকারকে দোষারোপ করছে। বলছে, জনগণের কল্যাণে শেখ হাসিনার সরকার দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নেয়নি। এমতাবস্থায় রোববার (১৫ মার্চ) ঢাকা জজকোর্ট প্রাঙ্গণে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতার পাশাপাশি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। একইসঙ্গে বলেন, সরকার বিশেষ একটা দিবস নিয়ে ব্যস্ত ছিল। ভেবেছিলাম বিষয়টিকে তারা গোপন করবেন। কিন্তু না, তারা তা করেনি। এজন্য সরকারকে ধন্যবাদ। একইসঙ্গে এই বিএনপি নেতা বিষয়টিকে দলীয় দৃষ্টিকোণ থেকে না দেখে সবার সহযোগিতাও কামনা করেন।

গয়েশ্বরের এমন মন্তব্য মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে রাজনৈতিক মহলে। সবাই তার হঠাৎ বদলে যাওয়া রাজনৈতিক আচরণে কিছুটা বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। খোদ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও তার আচরণে অবাক হয়ে জরুরী এক স্কাইপে কলে দলের হাইকমান্ডের কাছে এর নেপথ্য কারণ জানতে চান। কিন্তু কেউই এর সদুত্তর দিতে পারেননি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন তারেক রহমান। গয়েশ্বরের নাড়ির খবর জানতে প্রয়োজনে গোপনে খোঁজ-খবর রাখতে মির্জা ফখরুলদের আদেশ দিয়েছেন তারেক।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে যোগাযোগ করা হয় বিএনপির নীতিনির্ধারকদের সঙ্গে। তারা এই প্রতিবেদককে বলেন, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ অন্যান্য নেতারাও অবাক হয়েছেন গয়েশ্বরের এমন আচরণে। সবারই ধারণা, তার নিজস্ব কোন মতলব আছে। নাহলে গয়েশ্বর এভাবে সরকারের প্রশংসা করেন না। তবে বিষয় যাই-ই হোক না কেন, এটি রাজনৈতিক আদর্শের পরিপন্থী। তারেক রহমান এতে মনঃক্ষুণ্ণ হয়েছেন। তাই এখনি যদি গয়েশ্বর নিজেকে না শুধরে নেন, তবে এর ফল হবে ভয়াবহ।

এই বিভাগের আরো খবর