বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
ক‌রের টাকায় দে‌শের উন্নয়ন হয় এটা পরীক্ষীত- মেয়র সা‌দিক কলকাতা টেস্ট দেখতে আমন্ত্রণ জানিয়ে শেখ হাসিনাকে মোদীর চিঠি কৃষি জমি রক্ষায় কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী চার বছরের মধ্যে দারিদ্র্র্যের হার কমবে : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে ঋণ দিতে দৌড়ঝাঁপ করছে বিদেশিরা : প্রতিমন্ত্রী আজ ঝালকাঠির দুই বিচারক হত্যা দিবস পিকেএসএফ উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী আয়কর মেলা: ১১৩ কোটি থেকে লক্ষ্যমাত্রা তিন হাজার কোটি টাকা রোহিঙ্গা নিপীড়নে এবার সুচি’র বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনায় মামলা টেস্ট বিশ্বকাপ অভিষেকে টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ আয়কর মেলা শুরু আজ রোহিঙ্গা সমস্যার পেছনে জিয়াউর রহমানের হাত ছিল: প্রধানমন্ত্রী খেলাপি ঋণ অবশ্যই আদায় করা হবে: অর্থমন্ত্রী ধেয়ে আসছে ‘বুলবুলে’র চেয়েও ভয়ানক ঘূর্ণিঝড় ‘নাকরি’ বরিশালের বর্ধিত এলাকার কাঁচাসড়ক অচিরেই পাকা করার উদ্যোগ দেশের কল্যাণে প্রয়োজনে বাবার মতো জীবন দেবো: শেখ হাসিনা বিমানে উড়ে বাংলাদেশ এল ২২৫টি গরু! বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ ২৭ পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও অর্থ সহায়তা দেশে রফতানি বাড়াতে দরকার পরিবহন খাতে উন্নয়ন: বিশ্বব্যাংক মা হারানো সেই শিশুর দায়িত্ব নিলেন উপমন্ত্রী শামীম
৪৩৫

শতদেশ ভ্রমণের গল্প শোনালেন আসমা আজমেরী

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯  

বাংলাদেশের সবুজ পাসপোর্টে ঘুরে ঘুরে তিনি ১০০টি দেশে এঁকে দিয়েছেন পদচিহ্ন। খুলনার মেয়ে কাজী আসমা আজমেরী পর্যটক হিসেবে বিরল এ নজির গড়েছেন অবলীলায়। দেশ ভ্রমণের পিপাসা তাঁর মেটেনি, আরো ঘুরতে চান। দেখতে চান সারা বিশ্বের বৈচিত্র্য।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অডিটরিয়ামে বসে গতকাল বুধবার বিকেলে আসমা আজমেরী শোনালেন শতদেশ ভ্রমণের গল্প। ব্যতিক্রমী এই আয়োজন ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি ভ্রমণপিপাসুরা আসমার মুখে শুনেছেন নানা রকম প্রতিকূলতার কথা। জেনেছেন পর্যটন সম্ভাবনা ও দেশ ভ্রমণের নানা তথ্য। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম প্রধান জাকির হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, সিনিয়র রিসার্চ ফেলো কাজী সামিও শীশসহ গবেষণা সংসদের সদস্যরা।

কাজী আসমা আজমেরী জানান, বয়স যখন খুবই কম তখন এক আত্মীয় বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করায় জানতে চেয়েছিলেন ভ্রমণ বিষয়ে। তখন শুনতে হয়েছিল ‘তুমি তো মেয়ে, পারবে না।’ অনেকটা চ্যালেঞ্জ নিয়ে ২০০৭ সালে থাইল্যান্ড ভ্রমণের মধ্য দিয়ে শুরু হয় আসমার বিশ্বভ্রমণ। একপর্যায়ে ভিয়েতনাম যাওয়ার পর বাংলাদেশি পাসপোর্ট দেখে প্রায় ২৬ ঘণ্টা আটকে রেখেছিল এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষ। সেদিনের ভোগান্তির পর আসমা সিদ্ধান্ত নেন নারী হলেও সারা বিশ্ব একাই ঘুরবেন, আর এ ভ্রমণ হবে বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়েই। এভাবেই ১০০ দেশ দেখা হয়ে গেছে তাঁর।

তিনি বলেন, ‘অনেকটি দেশ দেখার পরে নিউজিল্যান্ড গিয়ে ভালো লেগে যায়। তখন সেখানেই থেকে যাই। রেড ক্রিসেন্টে চাকরি হয়ে যায়। এখন বছরের পাঁচ-ছয় মাস টাকা জমাই, এরপর দেশ ভ্রমণে বের হয়ে যাই। ছয়টি মহাদেশে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছে, শুধু ভিসা পাওয়ার পদ্ধতি না জানার কারণে অ্যান্টার্টিকায় যেতে পারিনি।’

তরুণ শিক্ষার্থীদের তিনি বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে যারা ভ্রমণ করতে চাও তারা মানসিক শক্তি বাড়াও। কারণ অর্থের চেয়ে এখানে মানসিক শক্তি বড় বিষয়। বিশেষ করে মেয়েদের ক্ষেত্রে। আমি দেখেছি যে দেশে মেয়েরা কোনো কাজ করে না, সেই দেশ দরিদ্র। আর যেখানে মেয়েরা কাজ করছে তারা উন্নত এবং উন্নতির পথে রয়েছে। বাংলাদেশে এখন মেয়েরা কর্মক্ষেত্রে আছে বলেই দ্রুত গতিতে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।’

এই বিভাগের আরো খবর