মঙ্গলবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ১ ১৪২৬   ১৭ মুহররম ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন আজ রোহিঙ্গা ভোটার: ইসি কর্মচারীসহ আটক ৩ রিফাত-মিন্নির নতুন ভিডিও, বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য ‘বিজ্ঞান-প্রযুক্তির বিকাশ ছাড়া দেশ উন্নয়ন করা সম্ভব নয়’ রোহিঙ্গা ভোটার খতিয়ে দেখতে চট্টগ্রামে কবিতা খানম আগামী ১০মাসের রোডম্যাপ তৈরি ও তার বাস্তবায়ন করবো - জয় ও লেখক ডেঙ্গুতে সরকারি হিসেবে ৬৮ জনের মৃত্যু আ. লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ১৮ সেপ্টেম্বর বরিশাল নগরীতে আসছে স্মার্ট এলইডি লাইটিং বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের জন্মদিন আজ আজ থেকে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি বিশ্ব ওজন দিবস আজ শিগগিরই বন্দর-ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ত্রিপুরা-বাংলাদেশ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ৫ অক্টোবর সারাদেশে ৭৫ প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ এ পি জে আব্দুল কালাম স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত শেখ হাসিনা টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ বরিশালকে যানজট মুক্ত রাখতে কাজ করছে ট্রাফিক সদস্যরা- ডিসি ট্রাফিক সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করুন : প্রধানমন্ত্রী

লবনাক্ততা রোধ প্রকল্পে ব্যয় বৃদ্ধি ১০ কোটি টাকা

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

 

 বরিশাল ও গোপালগঞ্জের কিছু এলাকায় উচ্চ জোয়ারের প্রভাবে সৃষ্ট বন্যা এবং লবনাক্ততা রোধ করতে ‘বরিশাল জেলার সাতলা বাগধা প্রকল্পের পোল্ডার পুনর্বাসন’ প্রকল্পের ১ম সংশোধন করার প্রস্তাব দিয়েছে বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড।
এই প্রকল্পটি প্রথম যখন অনুমোদন দেওয়া হয়েছিলো তখন ব‌্যয় ধরা হয় ৩৪ কোটি ৬৩ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। তবে এখন সংশোধন এনে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৫ কোটি ৪৪ লাখ ৩৪ হাজার টাকা। যাতে ব‌্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে ১০ কোটি ৮ লাখ ৬ হাজার টাকা।
প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল অপরিবর্তিত রেখেই প্রকল্পের ব‌্যয় সংশোধনের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ে মূল্যায়ন করার জন্য পাঠানো হয়েছে। এর মেয়াদ ধরা হয়েছিলো ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে ২০২০ সালের জুন মাস পর্যন্ত।
প্রকল্পটি মূলত ২টি জেলার পাঁচটি উপজেলাতে হবে। উপজেলাগুলো হচ্ছে- বরিশাল জেলার গৌরনদী, উজিরপুর এবং আগৈলঝাড়া। এছাড়া গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া ও টুংগিপাড়াতে এই প্রকল্পের কাজ হবে।
প্রস্তাবিত সংশোধনী ও প্রকল্পটির কার্যক্রম সম্পর্কে পরিকল্পনা কমিশন সূত্র থেকে জানা গেছে, প্রকল্প এলাকায় উচ্চ জোয়ারের প্রভাবে সৃষ্ট বন্যা এবং লবনাক্ততা রোধ করা, প্রকল্প এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ, বিদ্যমান নিষ্কাশন ব্যবস্থা উন্নতি করে জলাবদ্দতা নিরসন, সেচ কাজের উন্নয়নের মাধ্যমে এলাকাবাসীর জান-মাল রক্ষা, খাদ্যশস্য উৎপাদন বৃদ্ধি, পরিবেশ ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন সাধন করা সহ আরো অনেক কার্যক্রম করা হবে।
প্রকল্পটির সংশোধনের কারণ হিসেবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় জানায়, এই প্রকল্পের আওয়ায় যতটুকু বেড়ীবাঁধ মেরামত করার কথা তাতে মাটির পরিমাণ ছিলো ১ দশমিক ৯২ লাখ ঘনমিটার, কিন্তু এখনকার প্রস্তাবে রয়েছে ২ দশমিক শূন্য ৭ লাখ ঘনমিটার। এছাড়া প্রকল্পের আওতায় ভৌত কাজের নকশা পরিবর্তনের কারণে কাজের পরিমাণ ও ব্যয় বেড়েছে। এছাড়া রেট সিডিউল পরিবর্তনের কারণেও ব‌্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর