সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৭ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
বাচ্চাকে মারধর করায় থানা ঘেরাও হনুমানের! জাতীয় নারী দাবায় শীর্ষস্থানে রানী হামিদ ইউজিসির কাঠগড়ায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ ভিসি ক্যাসিনোতে মিলল ধর্মীয় উপাসনা সামগ্রী! বিজয়নগর সায়েম টাওয়ার থেকে ১৭ জুয়ারী আটক ১৩ নেপালিকে মোটা অংকের বেতনে রাখা হয় জুয়া চালাতে স্পা সেন্টার থেকে আটক ১৬ নারী, ৩ পুরুষ আরও ১০ লক্ষ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান করা হবে- পলক আবুধাবি থেকে নিউইয়র্কের পথে প্রধানমন্ত্রী অজুহাতে কাজ আটকে রাখলে কঠোর ব্যবস্থা: গণপূর্তমন্ত্রী ব্যাংক নোটের আদলে টোকেন ব্যবহার করা যাবে না ঢাকা আসছেন বিশ্ব ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও জাতিসংঘের দূত খিলক্ষেতে বোমা হামলা: ৫ জেএমবির ১২ বছরের দণ্ড আরামবাগ-দিলকুশা ক্লাবে জুয়ার সরঞ্জাম উদ্ধার ভিক্টোরিয়া ক্লাব থেকে নগদ টাকা ও মদের বোতল উদ্ধার সৌদিতে শিরশ্ছেদ করে ১৩৪ জনের মৃত্যুদণ্ড শিশুদের কোলবালিশের ভেতর থেকে ১০ কেজি গাঁজা উদ্ধার! মতিঝিলে ৪ ক্লাবে পুলিশের অভিযান রিমান্ডে খালেদ ও শামীমের কাছ থেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য ঢাকায় বাংলাদেশ-ভারত নৌবাহিনী প্রধানের সাক্ষাত
১০

যেসব অভ্যাস দাঁত সুস্থ রাখে

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

নিজের দাঁতগুলো সুন্দর চকচকে হবে এ আশা সবারই। কিন্তু তা কি আর সবার ক্ষেত্রে হয়? অতিরিক্ত মিষ্টি, আইসক্রিম, কেক, পেস্ট্রি, চকোলেট খেয়ে ছোটরা যেমন নষ্ট করে তেমনি বড়রা ফাস্ট ও জাঙ্ক ফুড এবং ধূমপানে নষ্ট করে ফেলে নিজের অতি প্রয়োজনীয় দাঁতকে।

দাঁতের ফাঁকে খাদ্যের কণা ঢুকে থাকাটা স্বাভাবিক। কিন্তু খাবারের এই কণাগুলো দাঁতের ফাঁকে একটি আঠালো স্তর তৈরি করে যা থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয় দাঁত। ঠিকঠাক যত্ন না নিলে এই ক্ষতি ক্রমেই বাড়তে থাকে।

দন্ত বিশেষজ্ঞদের মতে, মুখে দুর্গন্ধ, দাঁতে ব্যথা, মাড়ি থেকে রক্তপাত, মাঝে মাঝেই দাঁত নড়ে যাওয়া, দাঁতের ফাঁকে পাথর জমে যাওয়া এসব লক্ষণে বোঝা যায় দাঁতের আয়ু কমতে শুরু করেছে। দৈনন্দিন জীবনে কিছু খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আর যত্ন নিলেই এই সমস্যা আয়ত্তে আনা সম্ভব।

তারা আরও বলেন, দাঁতের ক্ষতি কিছুটা বেশি হয়ে গেলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন দ্রুত। অনেক সময় দাঁতের ছোটখাট সমস্যা আমরা অবহেলা করি, আর এর থেকেই দাঁতের সমস্যা মারাত্মক রূপ ধারণ করে।

এবার জেনে নেওয়া যাক কোন কোন অভ্যাস সুস্থ দাঁতের বন্ধু-

* নিয়মিত দু’বার ব্রাশ করলে একটি ব্রাশ তিন সপ্তাহের পর ভালো কাজ দেয় না। তাই তিন সপ্তাহ অন্তর অন্তর বদলে ফেলুন আপনার টুথ ব্রাশটি।

* ব্রাশ করার সময় খুব বেশি চাপ দিয়ে যেমন নয়, তেমনি খুব আলগা ভাবেও নয়। নরম অথচ দাঁতের ফাঁকে পৌঁছতে পারে এমন ব্রাশ ব্যবহার করুন।

* খাবার গ্রহণের পর অবশ্যই ভাল করে মুখের ভেতরের অংশ ধুয়ে নিতে হবে। এমনকি মিষ্টি, ঠাণ্ডা পানীয় ও চকোলেট খাওয়ার পরও ভাল করে মুখ ধোয়ার অভ্যাস করান শিশুদেরকেও।

* অতিরিক্ত চা-কফি ও ধূমপান বন্ধ করুন। এসব থেকে দাগ পড়ে দাঁতের সৌন্দর্য্য নষ্ট করে। আর তামাকের দাগ সহজে ওঠেও না। তাই দূরে থাকুন ধূমপান থেকে।

* বাজারচলতি পেস্ট নয়, দাঁতের অবস্থা বুঝে পেস্ট ব্যবহার করুন। এর জন্য পরামর্শ নিন চিকিৎসকের।

* দাঁতের গঠনগত কোন ত্রুটি বা সমস্যা থাকলে প্রথম থেকে সতর্ক হউন। শিশুদের দাঁতে কম বয়সেই কোন সমস্যা ধরা পড়লে তার জন্যও দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করুন।

* লবঙ্গ দাঁতের জন্য খুবই ভাল। তাই মাঝে মধ্যেই মুখে রাখতে পারেন লবঙ্গ।