• বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৯ ১৪২৭

  • || ২০ রজব ১৪৪২

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৬১৪ সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ ধরা বন্ধ করতে হবে: বনমন্ত্রী ৪ কোটি ডোজ করোনার টিকা সংগ্রহ করা হবে: জাহিদ মালেক ১০ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী মানুষকে খাদ্য সরবরাহ-সময়মতো ভ্যাকসিন দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৭, শনাক্ত ৫১৫ মুক্তিযুদ্ধকে অসম্মান করেছে বিএনপি: সেতুমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর নীতির ভিত্তিতেই বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি: ড. মোমেন প্রেস ক্লাবের সংঘর্ষে ছাত্রদলের ১৩ জন রিমান্ডে ঢাবির ১২ শিক্ষার্থীকে স্থায়ী বহিষ্কার দেশবিরোধী একটি মহল সরকার হটানোর ষড়যন্ত্র করছে: কাদের করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৮, শনাক্ত ৫৮৫ মুশতাকের মৃত্যুর কারণ তদন্তে বেরিয়ে আসবে: তথ্যমন্ত্রী আজ থেকে ২ মাস ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ দেশে কোনো গরিব মানুষ থাকবে না : তথ্যমন্ত্রী বেসরকারি চিকিৎসা সেবা ব্যয় নির্ধারণ শিগগিরই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাটকা সংরক্ষণে কাল থেকে ৬ জেলায় মাছ ধরা নিষিদ্ধ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৮, শনাক্ত ৩৮৫ আমরা শিক্ষিত ও দক্ষ মানবসম্পদ গড়তে বদ্ধপরিকর: প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ৬০ কর্মদিবস পর পরীক্ষা: শিক্ষামন্ত্রী

যা থাকছে ‘সুরক্ষা’ প্ল্যাটফর্মে

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২১  

কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের টিকা জনগণের কাছে পৌঁছে যাওয়া আর সময়ের ব্যাপার মাত্র। টিকার বন্টন সুষ্ঠুভাবে করতে ইতোমধ্যে ‘সুরক্ষা’ নামক একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা হয়েছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের তৈরি করা এই প্ল্যাটফর্মটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে হস্তান্তর করা হয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে। সুরক্ষা প্ল্যাটফর্মের সব বিষয় থাকছে এই প্রতিবেদনে।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এটা মূলত একটা ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন। ভ্যাকসিন বন্টনের ‘ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ বলতে পারেন। আইসিটি বিভাগের প্রোগ্রামারদের একটি দল নিজস্ব উদ্যোগ ও ব্যবস্থাপনায় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’ সফটওয়্যারটি প্রস্তুত করেছে। প্রস্তুতকৃত সুরক্ষা সফটওয়ারটি সরকারের কোনো অর্থ ব্যয় ছাড়া প্রস্তুত করা হয়েছে এবং এটি ব্যবহারের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে সরবরাহ করা হচ্ছে। নাগরিক নিবন্ধন ও ভ্যাকসিন দেওয়াসহ ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রমের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সুরক্ষা সফটওয়ারটি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ব্যবহার করতে পারবে।  

এ সিস্টেমটির উন্নয়ন এবং পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিভাগ, তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি), এটুআই এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর একসঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে।

সুরক্ষার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে পলক বলেন, ‘সেলফ রেজিস্ট্রেশন’র মাধ্যমে এতে অনলাইনে নিবন্ধন ও ভ্যাকসিন কার্ড ডাউনলোডের ব্যবস্থা রয়েছে। ভ্যাকসিন গ্রহণ ও দেওয়ার তথ্য অনলাইনের মাধ্যমে যাচাই ও মনিটরিং করা যাবে। ভ্যাকসিনের দুইটি ডোজ সম্পন্ন হওয়ার পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে সুরক্ষা সিস্টেম হতে অনলাইনের মাধ্যমে টিকা গ্রহণের সার্টিফিকেট পাওয়া যাবে। জাতীয় পরিচয়পত্রের গেটওয়ে ‘পরিচয়’র মাধ্যমে নিবন্ধনকৃত ব্যক্তির পরিচয় যাচাই-বাছাই করা হবে। নিরাপদ নিবন্ধন নিশ্চিতকল্পে নিবন্ধনকৃত ব্যক্তির মোবাইল নম্বরে OTP বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড পাঠানোর ব্যবস্থা রয়েছে। ক্ষুদে বার্তা বা এসএমএসের মাধ্যমে নিবন্ধনকৃত ব্যক্তিকে ভ্যাকসিন দেওয়ার তারিখ ও তথ্য দেওয়া যাবে। নাগরিকের ভ্যাকসিন ডোজ গ্রহণ সম্পর্কিত তথ্য QR code scan এর মাধ্যমে নেওয়া এবং সংরক্ষণের ব্যবস্থা ও এতে আছে। নাগরিকদের টিকা দেওয়ার সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য থাকবে সুরক্ষায়।  
পলক বলেন, ভ্যাকসিন দেওয়া সম্পর্কিত বিভিন্ন তালিকা, পরিসংখ্যান ও প্রতিবেদন প্রস্তুতের ব্যবস্থা আছে সুরক্ষাতে।  জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর এবং জন্ম তারিখ ব্যবহার করে নিবন্ধন সম্পন্ন করা যাবে।

‘সুরক্ষা’ ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম যেভাবে ব্যবহার করতে হবে:
ক) www.surokkha.gov.bd ওয়েব পোর্টালে প্রবেশ করতে হবে।
খ) ‘নিবন্ধন’ বাটনে ক্লিক করে নাগরিক শ্রেণী সিলেক্ট পূর্বক জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর এবং জন্ম তারিখ দিতে হবে। তারপর যাচাই বাটনে ক্লিক করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিচয় নিশ্চিত করতে হবে। পরিচয় যথাযথ হলে বাংলা ও ইংরেজিতে নাম ফর্মে দেখা যাবে। দীর্ঘমেয়াদি রোগ, কোমরবিডি আছে কিনা হ্যাঁ অথবা না সিলেক্ট করতে হবে।
গ) নিবন্ধনকারী নাগরিকের পেশা এবং সরাসরি কোভিড-১৯ কাজের সঙ্গে জড়িত কিনা তা নির্বাচন করতে হবে।
ঘ) মোবাইলে ভ্যাকসিনের তথ্য ও ভেরিফিকেশন এসএমএস পেতে চান তা নিবন্ধনের সময় দিতে হবে।
ঙ) ফর্মে বর্তমান ঠিকানা ও টিকা কেন্দ্র নির্বাচন করতে হবে।
চ) সব শেষে মোবাইলে প্রাপ্ত OTP দিয়ে নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে।
ছ) নিবন্ধন সম্পন্ন হয়ে গেলে ‘টিকা কার্ডসংগ্রহ’ বাটনে ক্লিক করে কার্ড সংগ্রহ করতে হবে।
জ) নিবন্ধিত মোবাইল নম্বরে নির্ধারিত সময়ে এমএমএসের মাধ্যমে টিকা দেওয়ার তারিখ ও কেন্দ্র জানানো হবে।
ঞ) টিকা কেন্দ্রে যাওয়ার সময় প্রিন্টেড টিকা কার্ড ও জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি সঙ্গে নিতে হবে।