মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
হাসানাত আবদুল্লাহ নির্দেশে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জেনারেটর জনসভায় কথা বলার ভয় কাটিয়ে ওঠার উপায় নৌ স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে ভারত: রীভা গাঙ্গুলি নাসের আল-খেলাইফি: জেলে থেকে ফরাসি ফুটবলের ‘সম্রাট’ এজেন্টদের টাকা দিয়ে মালয়েশিয়া গেলে পুনঃনিয়োগের অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটাক্ষ করলে ক্ষমা করা হবে না: কাদের র‌্যাব-৮ এর অভিযানে ১১,৫০০ কেজি নিষিদ্ধ পলিথিন উদ্ধার ট্রেন দুর্ঘটনা : তূর্ণা নিশীথার মাস্টার-সহকারী মাস্টার বরখাস্ত মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরিতে প্রতারণা : রাজস্ব কর্মকর্তার কারাদণ্ড ঘূর্ণিঝড় বুলবুল : কৃষি ফসলের ক্ষতি ২৬৩ কোটি টাকা চার দিনের সফরে আজ নেপাল গেলেন রাষ্ট্রপতি ট্রেন দুর্ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক শুধু কৃষিতে নির্ভর না করে শিল্প উৎপাদন বাড়াতে হবে: প্রধানমন্ত্রী রেল দুর্ঘটনা: সংশ্লিষ্টদের সতর্ক হওয়ার নির্দেশ ৬ ঘণ্টা পর চালু হলো ঢাকা-চট্টগ্রাম রেল যোগাযোগ ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের পরিবারকে ১ লাখ,আহতদের ১০ হাজার দেয়ার ঘোষণা নুসরাত হত্যা:ফাঁসির আসামিদের পাঠানো হলো কুমিল্লা কারাগারে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় দুর্ঘটনাস্থলে রেলমন্ত্রী দুই ট্রাভেল এজেন্সিতে র‌্যাবের অভিযান, ১০৫০ পাসপোর্ট জব্দ কসবায় ট্রেন সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক
২৮

মেয়র সাদিকের দ্বিতীয় বছরের মিশনে থাকছে নানা চমক

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৯  

নিজে দূর্নীতির বাইরে থাকা, কর্পোরেশনের দূর্নীতি শতভাগ বন্ধ করা,কাজে সচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করার মাধ্যমে জনসেবার গতি পরিধি বাড়ানো,সময়মত ময়লা বা বর্জ্য অপসারন করে নগরী পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা,কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধ সর্বোপরি দেশের শ্রেষ্ঠ মেয়র নির্বাচিত হওয়া; সব মিলিয়ে মেয়র হিসাবে প্রথম বছরটি সফল ভাবেই পার করেছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। যদিও এক বছরের কাজে পারফরমেন্সে আত্মতুষ্ট নন মেয়র নিজেই। তার সোজা স্যাপটা ভাষ্য প্রথম এক বছরে তেমন কিছুই করতে পারিনি আমি। তারপরও মেয়রের প্রথম বছরের সফলতা-ব্যর্থতা খন্ডিত হয়েছে পক্ষ-বিপক্ষ-প্রতিপক্ষ নানা মহলে। যুক্তি তর্ক খন্ডন করে সব মহল থেকেই এসেছে একটি ভাষ্য “এক বছরে সফল মেয়র সাদিক”। স্বভাবতই প্রশ্ন জাগে পরবর্তী সময় কেমন থাকবেন মেয়র,কি হবে তার দ্বিতীয় বছরের মিশন। জনসাধারনের এই জিজ্ঞাসার উত্তর নিজেই দিয়েছেন মেয়র। বলেছেন তার মিশনের কথা। নগরীর অবকাঠামোগত উন্নয়ন,মাষ্টার প্লান বাস্তবায়ন,জনসেবার পরিধি বৃদ্ধি ও দ্রুতায়ন,সর্বোপরী সবুজ ও সুন্দর নগরী গড়ার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখাই তার দ্বিতীয় বছরের মিশন বলে জানালেন মেয়র সাদিক। তবে গুরুত্বের খাতায় থাকছে অগ্রাধিকার দুটি প্রকল্প। একটি নগরীর রাস্তা ঘাটের সংস্কার ও উন্নয়ন অপরটি খাল উদ্ধার ও খনন প্রকল্প। নির্বাচনে কোন ইশতেহার না দেয়া এই মেয়র জানিয়েছেন আমি নির্বাচনের সময়ই বলেছিলাম জনগনের চাহিদাই আমার ইশতেহার। তাই বিশেষ কোন ওয়াদায় দায়বদ্ধ নই আমি। জনগনের নাগরিক সব অসুবিধাকেই মেয়র হিসাবে আমি দায়ভার মনে করি। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,সফলতার বিচার নগরবাসীর হাতে। প্রথম বছরে আমি নিজেকে সফল মেয়র হিসাবে দাবী করি না। তারপরও নগরবাসী বলছে আমার প্রথম বছরের কাজে তারা সন্তুষ্ট। দ্বিতীয় বছরে নগরবাসীর এই আস্থার জায়গাটা ধরে রাখতে চাই আমি। তাদের মাঝে আরো নতুন আশার সঞ্চার করতে চাই।

মেয়রের বরাত দিয়ে বিসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা বেলায়েত বাবলু বলেন, মেয়র তার বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানেই কিন্তু বলেছেন আমি প্রথম বছরে দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন করতে পারিনি। তবে আমি এই এক বছরে সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা কর্মচারীদের স্বভাব ও আচরন ঠিক করেছি। কারন আমি বিশ্বাস করি শুদ্ধি অভিযান ঘর থেকেই শুরু করতে হয়। ঘর ঠিক না থাকলে বাহিরও ঠিক থাকে না। জনসংযোগ কর্মকর্তা আরো বলেন দ্বিতীয় বছরের শুরুতেই মেয়র হাত দিবেন নগরীর রাস্তাঘাট নির্মান ও সংস্কার এবং নগরীর মৃত প্রায় খাল গুলো খনন ও উদ্ধার কাজে। এ দুটি প্রকল্প মন্ত্রনালয়ে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আশা করছি খুব শীঘ্রই বরাদ্ধ পাওয়া যাবে। আর তখনই নগরবাসী দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখতে পাবে।

এই বিভাগের আরো খবর