• রোববার   ০৭ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২৩ ১৪২৭

  • || ২৩ রজব ১৪৪২

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
৭ মার্চের ভাষণে সব নির্দেশনা দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬০৬ ইতিহাস বিকৃতকারী মহল কূটকৌশল করে ৭ মার্চ পালন করছে: কাদের ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালির মুক্তির ডাক: রাষ্ট্রপতি মুশতাককে নিয়ে বিএনপি মায়াকান্না করছে : তথ্যমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০, শনাক্ত ৫৪০ স্বল্প আয় থেকে উন্নয়নশীল দেশে পদার্পণ বড় সুখবর: ড. মোমেন বিএনপির ৭ মার্চের কর্মসূচি ভণ্ডামি: কাদের বাংলাদেশের ঝুড়ি এখন খাদ্যে পরিপূর্ণ : কৃষিমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে থাকলে বাংলাদেশের ভবিষ্যত পাল্টে যাবে:আইনমন্ত্রী করোনার টিকা নিলেন প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়নে গবেষণা ও বিজ্ঞানের বিবর্তন অপরিহার্য: প্রধানমন্ত্রী সীমান্তে হত্যাকাণ্ড দুঃখজনক: জয়শঙ্কর ২৪ ঘণ্টায় আরও সাতজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬১৯ বিএনপি এখন মায়াকান্না করছে: কাদের প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম মারা গেছেন ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৬১৪ সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ ধরা বন্ধ করতে হবে: বনমন্ত্রী ৪ কোটি ডোজ করোনার টিকা সংগ্রহ করা হবে: জাহিদ মালেক ১০ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষে বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

মুহাম্মাদ সা.-এর নাম শুনলেই যে দরূদ পড়বেন

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২১  

দরূদ পড়ার ফজিলত ও প্রাপ্তি অনেক বেশি। আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারিমের যেমন দরূদ পড়তে বলেছেন; তেমনি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর প্রতি বেশি বেশি দরূদ পড়ার নসিহত পেশ করেছেন।

আবার কারো সামনে যদি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নাম উচ্চারিত হয়, তবে তার ওপর দরূদ পড়া আবশ্যক হয়ে যায়। কিন্তু কারো সামনে যদি তাঁর নাম উচ্চারিত হয় কিংবা তার আলোচনা হয় তবে কোন দরূদ পড়বেন?

হ্যাঁ, মমিন মুসলমানের জন্য আবশ্যক করণীয় হলো, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নাম শোনার সঙ্গে সঙ্গে তার ওপর দরূদ পাঠানো। ন্যূনতম ছোট্ট এ দরূদটি পড়া। তাহলো-
- صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَ سَلَّم
উচ্চারণ : ‘সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম।’

দরূদ পড়ার গুরুত্ব
হজরত আলি ইবনু আবি ত্বালিব রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যার সামনে আমার আলোচনা করা হয় বা আমার নাম উচ্চারণ করা হয় কিন্তু তারা আমার ওপর দরূদ পড়ে না; তারা হলো কৃপণ। অর্থাৎ রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নাম শোনার সঙ্গে সঙ্গে অন্ততঃ ‘সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম’ বলা। (তিরমিজি, মিশকাত, ইবনে মাজাহ)

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘তার নাক ভূলুন্ঠিত হোক বা ধ্বংস হোক; যার সামনে আমার নাম উচ্চারিত হল আর সে আমার উপর দরূদ পড়লো না। নাউজুবিল্লাহ। (মিশকাত, তিরমিজি)

আর যারা দরূদে ইবরাহিমসহ অন্যান্য দরূদ পড়তে পারেন; চাইলে তারা সেসব দরূদও পড়তে পারেন। কেননা রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রতি দরূদ পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন স্বয়ং আল্লাহ তাআলা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নাম শোনার সঙ্গে সঙ্গে ছোট হোক আর বড় হোক দরূদ পড়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।