মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬   ১৫ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
স্বামী-স্ত্রীর পায়ে ১৮টি স্মার্টফোন ৬ দিনের অভিযানে বরিশাল বিভাগে ১৫৪ জেলের কারাদণ্ড অপমানে কাঁদলেন মৌসুমী সাগরে ফের ভারতীয় ১১ জেলে আটক বিয়ে-বিচ্ছেদের পর শরিয়তে সন্তান প্রতিপালনের অধিকার কার? মৃত্যুর আগে জাহ্নবীকে দেয়া মা শ্রীদেবীর দামি পরামর্শ যা ছিল বরিশাল স্টেডিয়ামে আসছে শ্রীলংকা যুদ্ধাপরাধ: আজ ৫ রাজাকারের রায় মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় গুরুত্ব স্পিকারের শাহজালালে বিপুল পরিমাণ ইউএস ডলার ও থাই বাথসহ আটক ১ বাবরি মসজিদের রায় ঘিরে অযোধ্যায় ১৪৪ ধারা বাংলাদেশের প্রথম হিজড়া ভাইস চেয়ারম্যান পিংকী হাইপ্রোফাইল দুর্নীতিবাজ: এবার বড় অভিযানে নামছে দুদক এক মঞ্চে ৯৩ বইয়ের মোরক উন্মচন করলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ১১১ ফুটের গ্রহাণু ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে! প্লে স্টোর থেকে আবারও ১৫ অ্যাপ বাতিল কেমন মানুষদের বুদ্ধি বেশি হয়? বিপিএলের চার স্পন্সর প্রস্তুত একসঙ্গে নোবেল জিতেছেন যে দম্পতিরা হাওরের জমি পাবে না রাঘব বোয়ালরা -রাষ্ট্রপতি
১৫

ভূমি সংক্রান্ত অভিযোগ জানান ১৬১২২ নম্বরে

প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৯  

আপনি কি সরকারি অফিসে কোনো ধরনের ভূমি সংক্রান্ত হয়রানি পোহাচ্ছেন? তাহলে এ অভিযোগ সরাসরি মন্ত্রণালয়ে জানান। স্বচ্ছ, জবাবদিহিতামূলক, দক্ষ ও আধুনিক ভূমি ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতে এ উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

বৃহস্পতিবার ভূমি সেবা সংশ্লিষ্ট হটলাইন কার্যক্রমের (কল সেন্টার) উদ্বোধন করেছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। এর মাধ্যমে ১৬১২২ নম্বরে ফোন করে দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে ভুক্তভোগীরা তাদের সমস্যার কথা জানাতে পারবেন। রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ভূমি সেবা হটলাইন উদ্বোধন করা হয়। ভূমি সচিব মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী এতে সভাপতিত্ব করেন।

ভূমিমন্ত্রী বলেন, জরুরি অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ, অভিযোগ দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি, সেবাগ্রহীতাদের কাছ থেকে অভিযোগ গ্রহণের উদ্দেশ্য নিয়ে কল সেন্টার চালু করা হলো। এর মাধ্যমে ভুক্তভোগীর অভিযোগ নেয়া। অভিযোগকারীর অভিযোগ সংশ্লিষ্ট এলাকার ভূমি অফিসে পাঠানো হবে। সংশ্লিষ্ট অফিসার যদি ১৫ দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান না করেন তাহলে তাকে হলুদ মার্ক দেয়া হবে। আর ৩০ দিনের মধ্যে সমাধান না করলে তাকে লাল তালিকাভুক্ত করা হবে। একই সঙ্গে বিষয় নিষ্পত্তিতে দেরি হচ্ছে কেন এ বিষয়ে তলব করতে হবে।

তিনি বলেন, এসব কিছু মন্ত্রণালয় থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে। চাইলে আমি নিজে কিংবা সচিব যেকোনো সময় এ বিষয়গুলোর অবস্থা দেখতে পারবো। অভিযোগকারীর নাম, ঠিকানা বা পরিচয় কোনো অবস্থাতেই প্রকাশ করা হবে না।

তিনি আরও বলেন, এটি কোনো এমার্জেন্সি সার্ভিস নয়, তাই কল করলে মোবাইল কোম্পানিগুলো প্রতি মিনিট যে চার্জ নেয় সেটি দিতে হবে। আর অফিস টাইম তথা সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত হট লাইন কার্যক্রম চলবে।

জানা গেছে, ভূমি মন্ত্রণালয়ের ৩০জন এজেন্ট/অপারেটর (প্রাথমিকভাবে পাঁচজন এজেন্ট/অপারেটর) বিশিষ্ট কল সেন্টার স্থাপন ও চালু করার জন্য বাংলাদেশ টেলিফোন শিল্প সংস্থা সহায়তা দিচ্ছে। অত্যাধুনিক পূর্ণাঙ্গ কল সেন্টারে ৩৬ ইউনিটের সিসিটিভি সিস্টেম, ডিজিটাল এলআইডি ইন্টার‍্যাক্টিভ মনিটরসহ আনুষঙ্গিক অনেক আধুনিক যন্ত্রপাতি থাকবে। কল সেন্টার স্থাপনের প্রাথমিক খরচ প্রায় ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

এই বিভাগের আরো খবর