রোববার   ২০ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ২০ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
রাজীবের মোহাম্মদপুরের বাসায় অভিযান পরিচালনা করছে র‌্যাব অস্ত্র ও মাদকসহ রাজীবকে আটক করেছে র‌্যাব কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজিব গ্রেফতার আসছে ‘জলের গান’র অ্যালবাম, থাকছে বারী সিদ্দিকীর গান বছর শেষ হলেই বাতিল হচ্ছে ২ হাজার রুপির নোট ঢাকায় আসছেন নিউইয়র্ক সিটির ৫ সিনেটর বাকেরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত দাইয়ুস জান্নাতে যাবে না ড্রাগনের রক্ত বয়ে চলেছে যে গাছ! বালিশকাণ্ডের মতো কলঙ্কজনক কাজ যেন না হয় :পরিকল্পনামন্ত্রী দলে অনুপ্রবেশকারীদের জায়গা দেওয়া হবে না: নাসিম দোয়া পাওয়ার জন্য রাজনীতি করি : শামীম ওসমান আর্থিক সংকটে দুদিন বন্ধ জাতিসংঘ ওজন কমাতে খান মিষ্টি আলু ফেসবুক সমাজের `পঞ্চম স্তম্ভ`: জাকারবার্গ দুর্নীতি ও মাদক নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত অভিযান চলবে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বৈজ্ঞানিক সরঞ্জাম বিতরণ করেণ পংকজ নাথ কেরানি থেকে ধর্মীয় গুরু, আশ্রমে মিলল ৫০০ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ! মদিনায় দুর্ঘটনায় নিহতদের ১১ জন বাংলাদেশি দীর্ঘদিন ধরেই পদ্মায় ইলিশ ধরছিলেন ভারতীয় জেলেরা!

বিএনপির এমপিদের একহাত নিলেন গয়েশ্বর!

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০১৯  

বিএনপির কারান্তরীণ চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিতে কোনো আন্দোলন গড়ে তুলতে না পেরে দিকভ্রান্ত হয়ে পড়েছে বিএনপি। সম্প্রতি কারামুক্তির উপায় হিসেবে বিএনপির এমপিরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে প্যারোলে মুক্তির প্রসঙ্গ সামনে আনেন। যার দরুন রাজনৈতিক মহলে সমালোচিত হচ্ছে বিএনপি।

যদিও বিএনপির শীর্ষ নেতারা বলছেন, কোনোভাবেই বেগম জিয়ার মুক্তি প্যারোলে নিতে রাজি নয় বিএনপি। এ নিয়ে দলের মধ্যে বাড়ছে বিভ্রান্তি। একপক্ষ বলছে প্যারোল, অন্যপক্ষ বলছে ‘না’।

এমন প্রেক্ষাপটে বিএনপির এমপিদের প্যারোল নিয়ে বালখিল্যে বিরক্তি প্রকাশ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। জানা গেছে, দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ড নিয়ে কারাবন্দী খালেদা জিয়াকে দেখে এসে বিএনপির সাত সংসদ সদস্য তার জামিনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। তারা এটাও বলেন যে মুক্তি পেলে খালেদা জিয়া বিদেশে যাবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে শনিবার (৫ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন, ‘অতি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আমাদের দলের সাংসদরা ইতিমধ্যে ম্যাডামের সাথে হাসপাতালে দেখা করেছেন। উনাদেরকে নিয়ে অনেকে অনেক কথা বলছে। উনারা যে খুব বেশি আন্তরিক ম্যাডামের মুক্তির জন্য, সেটা আমাদের সামনে এবং জনগণের সামনে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছেন। আর সেটি করতে গিয়ে- ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) যে আপসহীন উপাধিটা আছে- এটা খারিজ করতে গিয়ে ধরা পড়েছে।’

তিনি আরও বলেন, যে উদ্দেশ্যে তাদের সংসদে পাঠানো হলো তা না করে তারা ম্যাডামের কাছে গিয়ে প্যারোলের বার্তা নিয়ে এসেছেন- এটা তাদের জন্য লজ্জার। তারা অথর্ব রাজনীতির উদাহরণ দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। আসলে তাদের নিয়ে কথা বলার মতো আগ্রহও হারিয়ে ফেলেছি আমরা। তাদের কাছে যে প্রত্যাশা জনগণের ছিলো তা ধূলায় মিশিয়ে দিয়েছে। কোথায় তারা মুক্তির জন্য বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করবে, তা না করে তারা প্যারোলের বার্তা নিয়ে এসেছেন। এটি নিতান্তই লজ্জার।

এই বিভাগের আরো খবর