মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬   ১৫ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
স্বামী-স্ত্রীর পায়ে ১৮টি স্মার্টফোন ৬ দিনের অভিযানে বরিশাল বিভাগে ১৫৪ জেলের কারাদণ্ড অপমানে কাঁদলেন মৌসুমী সাগরে ফের ভারতীয় ১১ জেলে আটক বিয়ে-বিচ্ছেদের পর শরিয়তে সন্তান প্রতিপালনের অধিকার কার? মৃত্যুর আগে জাহ্নবীকে দেয়া মা শ্রীদেবীর দামি পরামর্শ যা ছিল বরিশাল স্টেডিয়ামে আসছে শ্রীলংকা যুদ্ধাপরাধ: আজ ৫ রাজাকারের রায় মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় গুরুত্ব স্পিকারের শাহজালালে বিপুল পরিমাণ ইউএস ডলার ও থাই বাথসহ আটক ১ বাবরি মসজিদের রায় ঘিরে অযোধ্যায় ১৪৪ ধারা বাংলাদেশের প্রথম হিজড়া ভাইস চেয়ারম্যান পিংকী হাইপ্রোফাইল দুর্নীতিবাজ: এবার বড় অভিযানে নামছে দুদক এক মঞ্চে ৯৩ বইয়ের মোরক উন্মচন করলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ১১১ ফুটের গ্রহাণু ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে! প্লে স্টোর থেকে আবারও ১৫ অ্যাপ বাতিল কেমন মানুষদের বুদ্ধি বেশি হয়? বিপিএলের চার স্পন্সর প্রস্তুত একসঙ্গে নোবেল জিতেছেন যে দম্পতিরা হাওরের জমি পাবে না রাঘব বোয়ালরা -রাষ্ট্রপতি
৪৩

বিএনপিকে বাদ দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি ঐক্যফ্রন্টের!

প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০১৯  

ঐক্যফ্রন্টকে নিয়ে বিশেষ কোনো তৎপরতা না থাকায় অতিষ্ঠ হয়ে নির্বাচনকালীন জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বিএনপি নেতাদের অনুপস্থিতিতে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের কর্মসূচির নিয়েছে। জানা গেছে, আগামী ১৩ অক্টোবর ফ্রন্টের সর্বোচ্চ ফোরামের বৈঠক থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হবে।

বিষয়টি ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রব নিশ্চিত করেছেন। ফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের মতিঝিলের চেম্বারে আসম আবদুর রব ছাড়াও তানিয়া রব, আবদুল মালেক রতন, গণফোরামের আবু সাইয়িদ, সুব্রত চৌধুরী, জগলুল হায়দার আফ্রিক, বিকল্পধারার শাহ আহমেদ বাদল, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ফ্রন্টের দপ্তর প্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু বিএনপির কোনো নেতা বৈঠকে যোগ দেননি। এমনকি তাদের এ বৈঠকে আমন্ত্রণও করেনি ঐক্যফ্রন্ট।

নির্বাচনে চরম ফল বিপর্যয়ের পর সংসদে যোগদান, ফ্রন্ট থেকে একটি দলের বের হয়ে যাওয়া, শীর্ষ নেতার নির্বাচনী জোট হিসেবে ফ্রন্টকে আখ্যা দেয়াসহ কয়েকটি কারণে বেশকিছু দিন ধরে ঐক্যফ্রন্টে অস্থিরতা চলছিল। টানাপোড়েন প্রকাশ্যে আসে বিএনপির মাধ্যমেও। ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে গা ছাড়া মনোভাব পোষণ করে বিএনপি। এমন প্রেক্ষাপটে ফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে বিএনপি নেতাদের অনুপস্থিতি ফ্রন্টের অনিশ্চিত ভবিষ্যতের ইঙ্গিত বহন করে।

এদিকে ফ্রন্টের বৈঠকে বিএনপির অনুপস্থিতির বিষয়ে কোনো কথাই বলতে রাজি নয় ফ্রন্টের নেতারা। তারা বলছেন, ফ্রন্টে যাদের আগ্রহ আছে তারাই ফ্রন্টকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। নতুন করে কাউকে আগ্রহী করে তুলতে নারাজ জোটের নেতারা।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঐক্যফ্রন্টের একজন নেতা বলেন, বিএনপি এখন কেবল নিজেকে নিয়েই ব্যস্ত আছে। অথচ নির্বাচনের আগে তাদের আচরণ এমন ছিলো না। তারা না হয় নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত আছে, কিন্তু আমাদেরও তো রাজনৈতিক ভাবাদর্শ আছে। ফলে ফ্রন্ট নিয়ে তাদের অনাগ্রহ মোটেই সমীচীন নয়। যেহেতু তারা গা ছাড়া মনোভাব প্রকাশ করছে তাই তাদের নিয়ে আমাদেরও কোনো মাথা ব্যথা নেই।

এই বিভাগের আরো খবর