সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৭ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
পৃথিবীতে এত ধর্ম কেন? ৫০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদকবিক্রেতা আটক কাজাখস্তান গেলেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী দিনে ১০ হাজারের বেশি কনটেইনার হ্যান্ডেলিং হচ্ছে বন্দরে বিএনপির ৩ নেতাকে নিয়মিত টাকা দিতেন জি কে শামীম বরিশালে কারেন্ট জাল জব্দ, আটক ৩ এক মাসে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে ২০ লাখ : বিটিআরসি সেই ডিসির নারী কেলেঙ্কারির সত্যতা বাচ্চাকে মারধর করায় থানা ঘেরাও হনুমানের! জাতীয় নারী দাবায় শীর্ষস্থানে রানী হামিদ ইউজিসির কাঠগড়ায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ ভিসি ক্যাসিনোতে মিলল ধর্মীয় উপাসনা সামগ্রী! বিজয়নগর সায়েম টাওয়ার থেকে ১৭ জুয়ারী আটক ১৩ নেপালিকে মোটা অংকের বেতনে রাখা হয় জুয়া চালাতে স্পা সেন্টার থেকে আটক ১৬ নারী, ৩ পুরুষ আরও ১০ লক্ষ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান করা হবে- পলক আবুধাবি থেকে নিউইয়র্কের পথে প্রধানমন্ত্রী অজুহাতে কাজ আটকে রাখলে কঠোর ব্যবস্থা: গণপূর্তমন্ত্রী ব্যাংক নোটের আদলে টোকেন ব্যবহার করা যাবে না ঢাকা আসছেন বিশ্ব ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও জাতিসংঘের দূত
২৫

বাবুগঞ্জে বিনাধান (আউস) ১৯ কর্তন ও মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

বরিশালের বাবুগঞ্জের চাঁদপাশা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে বাংলাদেশ পরমানু গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উদ্ভাবিত উচ্চফলনশীল বিনাধান-এর সম্প্রসারনের লক্ষ্যে ধান কর্তন ও কৃষকদের নিয়ে মাঠ দিবস-২০১৯ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (২২ই আগস্ট) দুপুরে বিনা ধান কর্তন ও মাঠ দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

চাঁদপাশা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান স্বপনের সভাপতিত্বে মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বরিশাল অঞ্চল কৃর্ষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক সাইনুর আজম খান,বিশেষ অতিথি ছিলেন বরিশাল বিজ প্রত্যায়ন এজেন্সী (ডিএসসিও) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ,বাবুগঞ্জ উপজেলা কৃর্ষি কর্মকর্তা মোসাম্মৎ মরিয়ম আক্তার, রহমতপুর বিনা উপকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. বাবুল আকতার,ফলজ গবেষনা সম্প্রসারন বিভাগের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এমদাদুল হক, কৃষক আমিনুল ইসলাম ও কৃষক আঃ জলিল।

এসময় কৃষক আঃ জলিল বলেন, যদিও আমাদেরকে বিনা ধান-১৯ (আউস) এর বিজ কৃর্ষি বিভাগ থেকে সরবরাহ করা হয়েছে মাত্র ৯০ থেকে ১’শ দিনের মধ্যে আমরা ভালো ফলন পেয়েছে কিন্তু দেখা যায় ফলন উৎপাদন করতে গিয়ে দৈনিক আমাদের ৬’শ টাকা লেবার খরচ পরে যায় আর সেখানে ধান বিক্রি করতে গিয়ে ৪’শ টাকা দরে মন বিক্রি করতে হয় তাহলে তো আমাদের মত কৃষক বাচবে না।

আমাদের ফলন ভালো হয়েছে এতে আমরা খুশি হয়েছি। অপরদিকে কৃর্ষি বিভাগ যদি কৃষকদের কাছ থেকে বিজ ক্রয় করেন তাহলে হয়ত কৃষক বেছে থাকতে পারবে।

কৃষকরা বলেন যে পরিমান বিনা ধানের ফলন হয়েছে এতে তাদের একর প্রতি ৪০ মনের মত ধান পাওয়া যাবে তারা ৭ একর জমিতে বিনাধান-১৯ (আউস) চাষ করেছে।

কৃষক জাকির হোসেন মোল্লা বলেন, আগে তার ২৮ শতাংশ জমিতে ১০ থেকে ১২ মন আমন পাওয়া যেত। তাছাড়া বাকি সময় জমি অনাবাদি পড়ে থাকত।

এখন বিনাধান-১৯ চাষ করার পাশাপাশি আমরা আউস.মশুর ও আমন সহ তিন ফসল ফলাই যার ফলে এখন জমি অনাবাদি পড়ে থাকে না।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বরিশাল আঞ্চলিক কৃর্ষি সম্প্রসারনের অতিরিক্ত পরিচালক সাইনুর আজম খান বলেন, বর্তমান সরকার একজন কৃষি বান্ধব সরকার।

আমাদের দেশে ৩’শ মেট্রিক টন চালের প্রয়োজন আমাদের এবার ৪’শ মেট্রিক টন চাল উৎপাদন হয়েছে।

অন্যদিকে এত পরিমান চাল রাখার মত সরকারের সেরকম কোন গুদাম না থাকার কারনে কৃষকদের কাছ থেকে সরকার ধান ক্রয় করেনি। ধান ক্রয় করে সরকার সেই ধান রাখবে কোথায়।

তিনি কৃষকদের বলেন আপনারা জমিতে ভাল ফসল পেতে হলে ভালমানের বিজ যন্ত্র সহকারে রাখার আহবান জানান।

এর পূর্বে বিনা ধান কৃর্ষি বিভাগ থেকে সহায়তা পাওয়া বিজ থেকে তাদের যে ফসল হয়েছে সেখান থেকে কৃর্ষি কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে কর্তন করে পরে তা মাড়াই করে ধান ভিন্ন করা হয়।

এই বিভাগের আরো খবর