সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
আ. লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ১৮ সেপ্টেম্বর বরিশাল নগরীতে আসছে স্মার্ট এলইডি লাইটিং বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের জন্মদিন আজ আজ থেকে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি বিশ্ব ওজন দিবস আজ শিগগিরই বন্দর-ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ত্রিপুরা-বাংলাদেশ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ৫ অক্টোবর সারাদেশে ৭৫ প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ এ পি জে আব্দুল কালাম স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত শেখ হাসিনা টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ বরিশালকে যানজট মুক্ত রাখতে কাজ করছে ট্রাফিক সদস্যরা- ডিসি ট্রাফিক সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করুন : প্রধানমন্ত্রী বরিশালে কাজী নজরুল ইসলামের ৪৩তম প্রয়াণ বার্ষিকী অনুষ্ঠিত রাজশাহীর পুলিশ একাডেমিতে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী গণপরিবহনে মাসিক বেতনে চালক নিয়োগের নির্দেশ হাইকোর্টের সারদার পথে প্রধানমন্ত্রী হাজিদের দেশে ফেরার শেষ ফ্লাইট আজ আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস আজ শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম আজ শুরু
৬২৬

বাকেরগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী মিজান

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি //

প্রকাশিত: ১০ জানুয়ারি ২০১৯  

৩০ শে ডিসেম্বর শেষ হলো একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আসছে মার্চ এ অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৯। ইতিমধ্যে বাকেরগঞ্জ উপজেলায় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে শোনা যাচ্ছে নানা গুঞ্জন। বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শামসুল আলম চুন্নু পর পর তিন বার নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আসছে। ব্যাক্তিগত ভাবেই তিনি এবার  নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে তরুণ নেতৃত্ব ও তার অনুগতর হাতে ছেড়ে দিতে পারেন বলে মনে করছেন অনেকেই। সে ক্ষেত্রে সবার আগেই ওঠে আসে বাকেরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সকল নেতা কর্মীদের কাছে সু-পরিচিত একজন সাদা মনের মানুষ সদালাপি, হাস্যজ্জল ও কর্মী বান্ধব নেতা হিসাবে অত্যান্ত সমাধৃত।

তিনি হলেন দক্ষিণ বাংলার রাজনৈতিক অভিবাবক শান্তি চুক্তির রূপকার জননেতা আবুল হাসানাত আব্দুল্লার আস্থাভাজন, সাবেক এম.পি সৈয়দ মাসুদ রেজার স্নেহভাজন ছিলেন, বর্তমান উপজেলা আ’লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুল আলম চুন্নু এবং সাধারণ সম্পাদক ও জননন্দিত পৌর মেয়র মো. লোকমান হোসেন ডাকুয়া’র অত্যান্ত কাছের মানুষ উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মিজানুর রহমান (মিজান)।

পাশাপাশি দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছেও তিনি একজন সৎ, যোগ্য, সমাজসেবক,  শিক্ষানুরাগী ও ভদ্র মানুষ হিসেবে সু-পরিচিত। বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুল আলম চুন্নু’র পরে দলের মধ্যে তিনিই বেশী উপযুক্ত ব্যক্তি বলে মনে করছে উপজেলার সকল শ্রেনি পেশার মানুষ। উল্লেখ্য পূর্বের একটি উপজেলা নির্বাচনে ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে বাঘ মার্কা নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

নিজ দলের সমর্থিত ৩ জন প্রার্থী থাকা সত্বেও বিপুল প্রতিদন্ধিতা গড়ে তুলে সামন্য ভোটের ব্যবধানে বিএনপির সমর্থিত একমাএ প্রার্থীর কাছে হেড়েও জনগনের কাছে তার জনপ্রিয়তার প্রমান দিয়েছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন থেকে অাওয়ামীলীগের একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে দলের জন্য কাজ করে অাসছেন।  মিজানুর রহমান ঢাকা ও চট্টগ্রামে নিজেস্ব ব্যবসা পরিচালনা করা সত্বেও দীর্ঘ দিন যাবৎ এলাকাতে থেকেই দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নিষ্ঠার সাথে অংশগ্রহণ করছেন।

এ ব্যাপারে মিজানুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দলের সব শ্রনীর নেতা কর্মী, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি  জনাব সামচুল অালম চুন্নু, সাধারণ সম্পাদক জনাব লোকমান হোসেন ডাকুয়া ও আমার রাজনৈতিক অভিভাবক আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ যদি আমাকে যোগ্য মনে করে উপজেলা নির্বাচনে নমিনেশন দেয় তাইলে অবশ্যই আমি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করব ইনশাল্লাহ। এজন্য উপজেলা আ’লীগ ও সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের সমর্থন ও সহযোহীতা কমনা করেন।

উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার জনগনের প্রত্যাশা মিজানুর রহমান দীর্ঘদিন থেকে  সমাজের বিভিন্ন কাজে বিশেষ করে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, খেলাধুলা, চিকিৎসাসহ নানা উন্নয়নমূলক কাজে ব্যক্তিগতভাবে সাধ্যমত সহযোগীতা করে আসছেন। সে জন্য সকলের প্রত্যাশা দল তাকে অবশ্যই মূল্যায়ন করবে।

এই বিভাগের আরো খবর