• বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৬ ১৪২৬

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের প্রাণভিক্ষার আবেদন খারিজ নিয়োগ পেলেন নতুন আইজিপি বেনজীর, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি যারা সাহায্য চাইতে পারবে না তাদের তালিকা করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী দেশে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়ে ১৬৪ কারাগারে বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ আদালতে বঙ্গবন্ধু হত্যা: আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ গ্রেফতার চিকিৎসকরা কেন চিকিৎসা দেবে না, এটা খুব দুঃখজনক : প্রধানমন্ত্রী দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নীতিমালা করার নির্দেশ রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান ঘরে বসে পড়াশোনা করতে হবে, শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রী
৫৩৮

বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে ৫শ’ বন্দির মাদক সেবন না করার শপথ

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৭ এপ্রিল ২০১৯  

মা মমতাজ বেগম মারা গেছেন বৃহস্পতিবার সকালে। শেষবারের মতো মায়ের মুখ দেখার সুযোগও হয়নি হাজতি কাওসার তালুকদারের (২৮)। এ যন্ত্রণায় অঝোরে কাঁদছিলেন তিনি। পেশায় অটোরিকশা চালক কাওসার ইয়াবাসেবী। দুই সপ্তাহ আগে চার পিস ইয়াবাসহ পুলিশ তাকে গ্রেফতার করায় তার ঠাঁই হয়েছে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের মাদক ওয়ার্ডে (কীর্তনখোলা-১)।

বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় মাদকবিরোধী সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। মাদক সেবন, বিক্রি ও পরিবহনের সঙ্গে যুক্ত প্রায় ৫শ’সহ আট শতাধিক বন্দি এ অনুষ্ঠানে অংশ নেন। অনুষ্ঠানে বরিশাল নগরীর চৌমাথা এলাকার বাসিন্দা কাওসার তালুকদার এ প্রতিবেদককে জানান, কয়েকজন বন্ধুর খপ্পরে পড়ে ৬-৭ মাস আগে নিয়মিত ইয়াবা সেবন শুরু করেন। মাদকসেবী হওয়ায় শেষবারের মতো মায়ের মুখও দেখা হলো না তার। তাই কাওসার শপথ নিয়ে বলেছেন, ‘ভালো হয়ে যাব, আর ইয়াবা সেবন করব না।’

অনুষ্ঠানে কথা হয় নগরীর হাটখোলার বাসিন্দা যুবক রুবেল মিয়ার সঙ্গে। পেশায় ভাঙাড়ি ব্যবসায়ী। রুবেলকে সাত দিন আগে পলাশপুর থেকে ইয়াবাসহ কাউনিয়া থানা পুলিশ গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। তিনিও মুক্তি পেয়ে মাদক ছেড়ে দেওয়ার শপথ নিয়েছেন।

নগরীর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রসুলপুরের বাসিন্দা গাঁজাসেবী মাসুদ সরদার (২৫) অটোরিকশা চালাতেন। ১৭ এপ্রিল পুলিশ গ্রেফতার করে চালান দেওয়ায় তিনি এখন কারাগারে। একমাত্র কন্যাসন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে মাসুদও শপথ করে বলেছেন, ‘নেশা ছাইড়া দিমু, নামাজ পড়মু, ভালোভাবে সংসার চালামু।’

গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে শুরু হয় মাদকবিরোধী সমাবেশ। জ্যেষ্ঠ কারা তত্ত্বাবধায়ক প্রশান্ত কুমার বণিকের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান বলেন, মাদক পরিবার ও সমাজকে ধ্বংস করে। তাই মাদকসেবীসহ সংশ্নিষ্টদের স্বাভাবিক জীবনে ফেরাতে কারাগারে প্রশিক্ষণ ও বিনোদনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি মাদকসেবীদের সংশোধনের সুযোগ গ্রহণ করতে বলেন। জেলা প্রশাসকের আহ্বানে মাদক-সংশ্নিষ্ট প্রায় ৫শ’ বন্দি মাদক সেবন, বিক্রি ও পরিবহন না করার শপথ নেন।

জ্যেষ্ঠ কারা তত্ত্বাবধায়ক প্রশান্ত কুমার বণিক বলেন, মাদকাসক্তসহ সংশ্নিষ্ট বন্দিদের কারাগারে আলাদা ওয়ার্ডে রাখা হয়। নিয়মিত চিকিৎসা দেওয়া হয়। তিনি জানান, বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রায় ১৫০০ বন্দির মধ্যে শতকরা ৩০ ভাগ মাদক-সংশ্নিষ্ট। সুস্থ জীবনে ফেরাতে কারাগারে নিয়মিত ধর্মীয় শিক্ষা, মোটিভেশন ও বিনোদনের মাধ্যমে তাদের মাদকমুক্ত রাখার ব্যবস্থা রয়েছে।

বরিশাল সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার সাজ্জাদ হোসেন বলেন, সমাজসেবা বিভাগের অপরাধী সংশোধন ও পুনর্বাসন সমিতির মাধ্যমে মাদক-সংশ্নিষ্টদের স্বাভাবিক জীবনে ফেরাতে বরিশাল কারাগারে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। যারা মুক্তি পাওয়ার পর স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চায় তাদের পুনর্বাসন করা হয়।

বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগার কর্তৃপক্ষের আয়োজনে মাদকবিরোধী সমাবেশ শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয় সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি সুজনের লেখা ও সুর করা গানের মধ্য দিয়ে। পরে নগরীর বিভিন্ন শিল্পী সঙ্গীত পরিবেশন করেন। এর আগে জেলা প্রশাসক বন্দিদের জন্য একটি টেলিভিশন উপহার দেন। বিশেষ অতিথি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু আরও দুটি টেলিভিশন দেওয়ার অঙ্গীকার করেন।

বরিশাল বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর