রোববার   ১৯ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৬ ১৪২৬   ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
মানবতার কল্যাণ কামনায় শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে লাখো মুসল্লি তুরাগতীরে পুরো পরীক্ষাই পেছাবে, নতুন সূচি আজ : শিক্ষামন্ত্রী ফাইভজির স্বপ্ন বাস্তবে পরিণত হবে শিগগির: অর্থমন্ত্রী ঢাকা সিটি ভোট পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি করার সিদ্ধান্ত ইসির এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পিছিয়ে ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় সোমবার মান্নানের জানাজা এমপি আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে গভীর শোক রাষ্ট্রপতির পদ্মা সেতুর ২২তম স্প্যান বসছে এ মাসেই আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক এমপি মান্নানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক বয়ানে চলছে দ্বিতীয় দিনের ইজতেমা,কাল আখেরী মোনাজাত বিপিএলে প্রথম শিরোপার স্বাদ পেলো রাজশাহী আদালতে মজনুর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাউন্ড সিস্টেমে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা যাবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি শুরু ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনে উত্তীর্ণদের সনদ ১৯ জানুয়ারি প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ২৫ জানুয়ারি থেকে এক মাস কোচিং সেন্টার বন্ধ আমরা ক্রসফায়ারকে সাপোর্ট করতে পারি না : ওবায়দুল কাদের
১২

বঙ্গবন্ধু বিপিএল হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ‘রোডম্যাপ’

প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯  

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) থেকে মাঠে গড়াচ্ছে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিবিপিএল)। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এবারের আসরে এসেছে আমূল পরিবর্তন। এরইমধ্যে রোববার (৮ ডিসেম্বর) শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বর্ণিল আয়োজনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

ছয় মৌসুম পর এবারের আসর দিয়ে আগের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে চুক্তির সমাপ্তি টেনেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এর বদলে সাতটি দলের জন্য ছয়টি আগ্রহী কোম্পানকে যুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে কুমিল্লা ওয়ারির্স ছাড়া বাকি ছয় দল বিসিবি’র অধীনে তাদের স্পন্সরদের দ্বারা পরিচালিত হবে। 

বিসিবি একাই এত বড় আয়োজন সামলাতে পারবে কিনা কিংবা আগের আসরের মতো তারকা সমাবেশ ঘটাতে পারবে কিনা এই নিয়ে শুরু থেকে আশংকা করছিলেন অনেকে। বিশেষ করে এবি ডি ভিলির্স, ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথদের না পাওয়ার বিষয়টা আগেই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। 

জাতীয় দল কিংবা অন্য কোনো কারণে টি-টোয়েন্টির অনেক বড় তারকা এবারের আসরে থাকছেন না ঠিকই, তবে এটাই আবার স্থানীয় ক্রিকেটারদের প্রতিভার বিকাশ ঘটানোর সুযোগ হয়ে এসেছে। বিশেষ করে ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে এই টুর্নামেন্ট দিয়ে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন স্থানীয়রা।
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে এবারের আসরে স্থানীয় ক্রিকেটারদের দিকে বিশেষ নজর দিচ্ছে বিসিবি। এ ব্যাপারে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘এবারের বিশেষ বিপিএলে যারা খেলবে তারা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দোয়ারে কড়া নাড়ছে। এছাড়া সামনে অনেক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ আছে। ফলে সেখানে আমাদের পারফরম্যান্সের দিকে বিশেষ নজর রাখতে হবে। আমাদের যেসব জায়গায় সমস্যা আছে, সেসব জায়গা নিয়ে কাজ করছি। এসব জায়গায় খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সের দিকে টিম ম্যানেজমেন্ট এবং আমরা নজর রাখব। আশা করি বিপিএলেই আমরা ভালো কিছু পাবো। এখান (বিপিএল) থেকে যদি আমরা কিছু খেলোয়াড় পাই, সেটা হবে বোনাস।’

প্রধান নির্বাচক আরও বলেন, ‘অনেক ভালো বিদেশি খেলোয়াড় আসছে। তাদের সঙ্গে খেলে আমাদের স্থানীয় খেলোয়াড়রা অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবে। সংক্ষিপ্ত পরিসরের ক্রিকেট যেখানে প্রতিটি মুহূর্তই চ্যালেঞ্জ, এমন খেলায় সেভাবেই যুক্ত হতে হবে। যারা টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের সঙ্গে এখনও মানিয়ে নিতে পারেনি তাদের জন্য এটা বিশাল সুযোগ। যেহেতু সামনে বিশ্বকাপ, আমরা স্কোয়াড নিয়ে কাজ করছি। এটা তরুণ খেলোয়াড়দের জন্য বড় সুযোগ। তারা ভালো খেললে দলের জন্যই ভালো।’

এবারের বিপিএলকে স্থানীয় খেলোয়াড়দের সংক্ষিপ্ত পরিসরের ক্রিকেটের জন্য গড়ে তোলার কাজে ব্যবহার করা হবে বলে অনেকবারই জানিয়েছে বিসিবি। এমনকি এজন্য প্রতিটি স্কোয়াডে একজন করে লেগ স্পিনার ও ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বল করতে সক্ষম এমন পেসার রাখা প্রতিটি দলে বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। তবে এখন যখন আসর মাঠে গড়ানোর মুহূর্ত চলে এসেছে, দলগুলোর পক্ষে এই শর্ত মেনে চলা সম্ভব বলে মনে হয় না।

এবারের আসরের শিরোপা জেতার লড়াইয়ে নামবে- ঢাকা প্লাটুন, খুলনা টাইগার্স, রাজশাহী রয়্যালস, রংপুর রেঞ্জার্স, সিলেট থান্ডার, কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স এবং চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ৩৯ দিনের এই টুর্নামেন্টে মোট ম্যাচ থাকছে ৪৭টি।  এ উপলক্ষে বিসিবি’র একাডেমি প্রাঙ্গণ খেলোয়াড়দের উপস্থিতিতে গমগম করছে।

বঙ্গবন্ধু বিপিএল হবে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। এমনটাই মনে করেন এবারের আসরের একমাত্র স্থানীয় কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। তার ধারণা, প্রতিটি দলই ম্যাচ বাই ম্যাচ পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাবে। দু’বারের বিপিএলে শিরোপাজয়ী কোচ বলেন, ‘কোনো সন্দেহ নেই যে এবারের আসর হবে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। আমাদের কাছে বাকি সবকিছুর চেয়ে জয়টাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই আমরা আমাদের চাহিদা অনুযায়ী খেলোয়াড় নিয়েছি।’

যেহেতু এবার ম্যাচ জেতানোর মতো বিদেশি খেলোয়াড়ের ঘাটতি রয়েছে, তাই স্থানীয়দের দিকেই বাড়তি নজর দিচ্ছেন সালাউদ্দিন। যেহেতু এবার প্রতি দলের একাদশে চারজন করে বিদেশি খেলোয়াড় খেলতে পারবেন, তাই বাকি সাতজনের দিকেই বাড়তি নজর থাকবে দলগুলোর। শুধু দলগুলোই নয়, জাতীয় দলের নির্বাচকরাও সাত দলের ‘সাত’ ক্রিকেটারের দিকে নজর রাখবে। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে মাথায় রেখেই করা হবে।

এই বিভাগের আরো খবর