বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
রাজধানীতে `ফইন্নী গ্রুপের` ৬ সদস্য আটক স্পিকারের সঙ্গে সার্বিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাৎ ক্লাসিকোর ভেন্যু পাল্টানোর অনুরোধ লা লিগার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৮ কাউন্সিলর নজরদারিতে যেমন ছিল নবিজির জীবনের শেষ মুহূর্তটি দলের নাম ভাঙিয়ে অন্যায় করতে দেবেন না মেয়র সাদিক কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ বরিশালে জাল-ইলিশসহ ২২জেলে আটক নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
৪৬

প্রতারণা করেই কোটিপতি এই দম্পতি!

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

খুলনার সাবেক ডিসির গাড়িচালক আমিনুল ইসলাম। বর্তমানে আমিনুল কয়েক কোটি টাকার মালিক। যা হাতিয়ে নিয়েছেন নগরীর কিছু অসহায় ও সহজ-সরল নারীর কাছ থেকে। তার এ কাজে সহায়তা করেন স্ত্রী রেহানা পারভীন।

রোববার দুপুরে খুলনা প্রেস ক্লাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানান ভুক্তভোগী কয়েকজন নারী। ভুক্তভোগীদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নগরীর টিবি ক্রস রোডের বাসিন্দা নাজমুন নাহার লিপি।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ডিসির সাবেক গাড়িচালক আমিনুল ইসলাম ও তার স্ত্রী রেহেনা পারভীন বিভিন্ন পদে চাকরি দেয়ার নামে এবং খুলনার সরকারি বিভিন্ন স্কুলে ভর্তির নামে আমাদের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন। দুজনের যোগসাজশে নারীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেন লাখ লাখ টাকা। আর টাকা নিয়ে রেহানা আত্মগোপনে রয়েছেন।

অপরদিকে আমিনুল তার সব অপকর্ম তৎকালীন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল আউয়ালের কাছে স্বীকার করেন। তৎকালীন ডিসি আমিন উল আহসান আব্দুল আউয়ালকে নিয়োগ দেন। তার অপকর্ম প্রমাণ হওয়ায় তাকে জেলা প্রশাসনের কার্যালয় থেকে দিঘলিয়ায় বদলি করা হয়। এরপর বদলি করা হয় বিভাগীয় কমিশনারে কার্যালয়ে। বর্তমানে তিনি সেখানে কর্মরত।

আমিনুল তার স্ত্রী রেহানাকে তালাক দিয়েছেন এমন মিথ্যা বুলি দিয়ে নাটক মঞ্চস্থ করছেন। যে কারণে কিছু অসহায় নারী টাকা না পেয়ে পথে পথে ঘুরছেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, আমিনুল টাকা নেয়ার সময় কাউকে কাউকে চেকও দেন। তাও আবার স্ত্রীর নামে। যে কারণে তিনি তার স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন বলে নিজে রক্ষা পাওয়ার চেষ্টা করছেন। ভুক্তভোগীদের মধ্যে কেউ কেউ ভুয়া চেক প্রত্যাখ্যানের (ডিজঅনার) মামলাও করেন।

বিজ্ঞ আদালত থেকে রেহানার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি আত্মগোপনে থাকায় যেমন পুলিশ তাকে গ্রেফতারে ব্যর্থ হচ্ছে, তেমনি আমিনুল স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন বলে পার পাওয়ার অপকৌশল হাতে নিয়েছেন।

আমিনুল ও রেহানার প্রতারণার আরেকটি কৌশল হচ্ছে, রেহানার রয়েছে একাধিক জাতীয় পরিচয়পত্র। একই নাম আর একই নম্বরে একাধিক কার্ড তৈরি করে যেখানেই যান সেখানেই একটি আসল জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে বলেন, এই নাও আমার অরিজিনাল আইডি কার্ড। এটি থাকলেতো আমাকে বিশ্বাস করা যায়! এভাবেই নারীদের তারা প্রতারিত করছেন।

যাদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে তাদের কেউ কেউ অন্যের বাড়িতে কাজ করেন। একজন তার বাবার কাফনের কাপড়ের টাকাও আমিনুল ও রেহানাকে দেন। একজন বৃদ্ধাকে বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দেয়ার কথা বলেও টাকা নিয়েছেন। তারা যে বাড়িতে ভাড়া থাকতেন সেই বাড়ির মালিকের ছেলেকেও চাকরি দেয়ার কথা বলে টাকা নেন। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা চলছে।

নাজমুন নাহার নিজেও রেহানার বিরুদ্ধে ভুয়া চেক প্রত্যাখ্যানের মামলা করলে তার বিরুদ্ধে রায় হয়। টাকা হারিয়ে অনেকেই আজ নিঃস্ব। তারা তাদের পাওনা টাকা ফেরত পেতে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মাবিয়া রোজি, রুনা হ্যাপি লিপি, রুবি, হাওয়া শারমিন হালিমা, ফাতেমা রিনা, শামিম সুরমা, মনোয়ারা হাসিনা সালমা প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো খবর