বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ বরিশালে জাল-ইলিশসহ ২২জেলে আটক নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাকেরগঞ্জে এনএসআই পরিচয়ে চাঁদাবাজি আটক-২ সাবেক সহকারী কর কমিশনারকে গ্রেপ্তার করল দুদক র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ পেলেই শাস্তি: আইনমন্ত্রী একাদশ সংসদের পঞ্চম অধিবেশন শুরু ৭ নভেম্বর যেখানে দুর্নীতি-টেন্ডারবাজি সেখানে অভিযান- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে বাকু যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
১৪

নেতৃত্বের বিকাশে ব্যর্থ বিএনপি, বাড়ছে রাজনৈতিক ভোগান্তি!

প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০১৯  

দুটি দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে কারাভোগ করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দুর্নীতি মামলায় জেল খাটলেও বিএনপি ভেবেছিল দলীয় নেত্রীর মুক্তির দাবিতে গণআন্দোলন সৃষ্টি করে তাকে মুক্ত করা হবে। কিন্তু আদতে ফলাফল তার বিপরীত। সাংগঠনিক দুর্বলতা, নেতৃত্বে বিভক্তি ও অতীত অপকর্ম এবং প্রশ্নবিদ্ধ রাজনৈতিক অবস্থানের কারণে দলটি বেগম জিয়ার মুক্তি আদায়ে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে ব্যর্থ হচ্ছে। যার কারণে বেগম জিয়াহীন বিএনপি রাজনৈতিক সংকটের অতল গহ্বরে হারিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

তারা বলছেন, বেগম জিয়ার কারাবরণের সাথে সাথে বিএনপির রাজনীতিও রাজপথ থেকে উধাও হয়ে গেছে। বিএনপি যে একক নেতৃত্বাধীন ও গণতন্ত্রহীন রাজনৈতিক দল সেটি আবারও প্রমাণ হলো।

বেগম জিয়ার কারাবরণ ও বিএনপির রাজনৈতিক দুর্দশার বিষয়ে জানতে চাইলে বিশিষ্ট রাজনৈতিক বিশ্লেষক সুভাস সিংহ রায় বলেন, ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে কৌশলী খেলায় বিএনপি সব সময় পরাজিত হয়েছে। বেগম জিয়াও পরাজিত হয়েছেন। নির্বাচন প্রতিহত করা এবং সরকার পতনের সহিংস আন্দোলন করে দেশবাসীর যেমন বিরাগভাজন হয়েছে, তেমনি নিজেদের সাংগঠনিক সামর্থ্যেরও চরম অপচয় করেছে বিএনপি। সরকার দৃঢ়তার সঙ্গে বিএনপি এবং তার সহযোগী জামায়াতের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড মোকাবিলা করে নিজেদের সক্ষমতার পরিচয় দিয়েছে। অন্যদিকে বিএনপি-জামায়াত নিজেদের অক্ষমতার পরিচয় দিয়েছে। সত্যি বলতে, অতীত অপকর্ম ও জনবিরোধী কর্মকাণ্ডের কারণে বিএনপির সাংগঠনিক শক্তি তলানিতে পৌঁছেছে।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি যে পরিবারকেন্দ্রীক ও অগণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল- পুনরায় তা প্রমাণ হলো। বেগম জিয়ার সাজার পর পলাতক ও দুর্নীতিবাজ তারেক রহমান বিএনপির দায়িত্ব নিয়েছেন। যার কারণে দলটি জনসমর্থন হারিয়েছে বলে আমি মনে করি। আর দলটির কেন্দ্রীয় নেতাদের মোসাহেবির কারণে নতুন নেতৃত্ব তৈরি হচ্ছে না, যার ফলে দলটি সংকট কাটিয়েও উঠতে পারছে না।

বিএনপির উত্তরণের বিষয়ে জানতে চাইলে দলটির বুদ্ধিজীবী খ্যাত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, বিএনপির রাজনৈতিক বিপর্যস্ততা তৈরি হয়েছে যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি করতে না পারার ব্যর্থতার কারণে। আজকে বেগম জিয়ার বিকল্প ও গ্রহণযোগ্য নেতা থাকলে দলটিকে এতো ভোগান্তিতে পড়তে হতো না। আশাকরি বিএনপি অচিরেই তা বুঝতে পারবে এবং গ্রহণযোগ্য নেতার হাতে দলের দায়িত্ব ন্যস্ত করবে, যিনি দলকে সঙ্কট থেকে উদ্ধার করতে পারবেন।

এই বিভাগের আরো খবর