সোমবার   ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৪ ১৪২৬   ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
২০ বছর পর আজ ঢাকায় আসছেন নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী খালেদার প্যারোলে মুক্তির কোনো আবেদন পাইনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী উহান ফেরত শিক্ষার্থীরা নজরদারিতেই থাকবেন : আইইডিসিআর রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্দোনেশিয়ার সহায়তা চাইলেন ড. মোমেন ইউএনও’দের মাধ্যমে রাজাকারের তালিকা করা হবে : মোজাম্মেল হক মানবপাচারে অভিযুক্ত এমপির বিষয়ে দুদককে তদন্তের আহ্বান কাদেরের হত্যা মামলায় ৯ জনের যাবজ্জীবন বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটারকে নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা মশা মারার পর্যাপ্ত ঔষধ মজুত আছে : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী রহমত আলীর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট রহমত আলী আর নেই নিঃস্বার্থভাবে জনগণের কাজ করুন, নেতাকর্মীদের শেখ হাসিনা কে ভোট দিল কে দিল না তা বিবেচনা করে না আ. লীগ : প্রধানমন্ত্রী আ.লীগ উন্নয়নে বিশ্বাসী: প্রধানমন্ত্রী চীন থেকে দেশে আসা সবাই সুস্থ : আইইডিসিআর বিএনপি এখন টেলিফোনে প্রেমালাপ শুরু করেছে : নানক মুজিববর্ষে দেশের প্রতিটি ঘর আলোকিত হবে: নাসিম দাখিল পরীক্ষায় নকল করায় ৬ ছাত্র বহিষ্কার খালেদার মুক্তি নিয়ে বিএনপি-ই দ্বিধান্বিত: তথ্যমন্ত্রী ৩৫ এলাকায় ফ্রি ওয়াই-ফাই পাচ্ছেন কক্সবাজারবাসী
৮১

নেইমার নাটকে ‘ভিলেন’ রিয়াল মাদ্রিদ!

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

নেইমারকে কিনতে আগ্রহী তিন ক্লাব জায়ান্টের মধ্যে সবচেয়ে চুপচাপ আছে রিয়াল মাদ্রিদ। যেখানে বার্সেলোনা এরইমধ্যে দু’দফা প্রস্তাব দিয়ে প্রত্যাখ্যাত হয়েছে, সেখানে রিয়াল টু শব্দটিও করছে না। তবে রিয়াল যে এখনও লড়াইয়ে আছে তা অন্তত নিশ্চিত। রিয়াল আসলে অপেক্ষায় আছে সঠিক সময় ও সুযোগের।

দলবদলের বাজার বন্ধ হবে আর মাত্র ১৩ দিন পর। এই সময়ের মধ্যেই নেইমারকে কিনতে হবে। এজন্যই পিএসজির সঙ্গে তাড়াহুড়ো করে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে বার্সা। অপরদিকে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণেই সন্তুষ্ট রিয়াল মাদ্রিদ। কারণ বার্সেলোনা এখনও সফল হয়নি। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের এই ব্যর্থতা নিশ্চিতভাবেই আশার আলো দেখাচ্ছে রিয়ালকে। তবে নেইমার নাটকে নতুন প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে হাজির হয়েছে জুভেন্টাস, যা বার্সা ও রিয়াল উভয়ের জন্যই দুশ্চিন্তার কারণ।

প্রশ্ন হচ্ছে, নেইমারকে পেতে কেন এত কাড়াকাড়ি? ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের নেতিবাচক দিক অনেক। ইনজুরি প্রবণতা তার সবচেয়ে বড় সমস্যা। মাঠের বাইরের কুকীর্তিও কম নয়। কিন্তু তার সবচেয়ে বড় গুণ হলো, তিনি এমন একজন খেলোয়াড় যিনি প্রায় একাই একটা ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে সক্ষম। আর তার ফুটবলীয় দক্ষতার তো তুলনা খুব কমই আছে।

আদতে বার্সেলোনাকে ঠেকাতেই নেইমারের দিকে হাত বাড়িয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। আরেকটা বিষয় হলো, উভয় ক্লাবেরই আক্রমণভাগের দুর্বলতা। এদিক থেকে দেখলে নেইমারের মতো খেলোয়াড়ের প্রয়োজন দুই ক্লাবেরই। কিন্তু ব্যাপারটা যখন দরকষাকষির, তখন কিছুটা চালাকির আশ্রয় নিচ্ছে রিয়াল। কারণ নেইমার বার্সার সাবেক খেলোয়াড় আর মেসির কাছের বন্ধু। তাকে কেনার জন্য বার্সার আগ্রহ তাই একটু বেশিই। 

যদিও শোনা যাচ্ছে, মেসিকে খুশি রাখতেই নেইমারকে কেনার ‘নাটক’ করছে বার্সা। একই কথা কিন্তু রিয়ালের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। মাদ্রিদের জায়ান্টরা পল পগবার দিকে হাত বাড়িয়েও এখন চুপ করে আছে। তার মানে, পগবাকে কেনার নাটক করে আসলে তারা নেইমারকেই কিনতে চায়। এর আগে তিনবার (২০১৩, ২০১৭ এবং ২০১৮) নেইমারকে কিনতে ব্যর্থ হয়েছিল রিয়াল। এজন্যই এবার গোপন তৎপরতা চালানোর পথ বেছে নিয়েছে ‘লস ব্ল্যাঙ্কোস’রা। 

রিয়ালের কর্তাব্যক্তিরা এমন ভাব ধরে বসে আছেন যেন নেইমার শুধুই বার্সার চিন্তা, অথচ গোপনে তারা ঠিকই পিএসজির সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে বার্সার দুই অফার পিএসজি ফিরিয়ে দেওয়ার পর কথাটা আরও গুরুত্ব পাচ্ছে। নেইমারের জন্য পিএসজির ২৫০ মিলিয়ন ইউরোর অযৌক্তিক দাম হাকানো কিংবা অন্য কারো সঙ্গে বিনিময়ে রাজি না হওয়া কিংবা ধারে পাঠাতেও রাজি না হওয়ার পেছনে রিয়ালের হাত আছে বলে ইউরোপের একাধিক সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে।

তবে এখন নেইমারকে ধারে বার্সায় পাঠাতে রাজি পিএসজি। তবে এজন্য চড়া মূল্য দিতে হবে কাতালান জায়ান্টদের। ১ মৌসুম পর ২২২ মিলিয়ন ইউরো শোধ করলেই কেবল চুক্তিতে সম্মত হবে পিএসজি। এটাই রিয়ালকে সমান সুযোগ এনে দিয়েছে। আর এই নাটকে ভিলেন হিসেবে হাজির হয়েছেন রিয়াল প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। পিএসজির সঙ্গে রিয়ালের সুসম্পর্ককে হাতিয়ার বানাতে চান তিনি। অন্যদিকে এখানেই পিছিয়ে আছে বার্সা। ফরাসি চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নদের সম্পর্ক খারাপের কারণ অবশ্য নেইমারই।

পিএসজি যখন নেইমারের জন্য ২৫০ মিলিয়ন ইউরো দাম হাকিয়ে বসলো, রিয়াল তখনই তাদের পরিকল্পনা সাজিয়ে ফেলেছে। রিয়ালের ভিনিসিয়ুস জুনিয়র, থিবাউ কুর্তোয়া এবং কাসেমিরোর দিকে নজর পড়েছে পিএসজির। যদিও এদের কাউকেই বেচতে চায় না রিয়াল। তবে তাদের হাতে অন্য অপশন (যেমন, গ্যারেথ বেল, হামেস রদ্রিগেজ কিংবা লুকা মদ্রিচ) আছে, যা বার্সার হাতে নেই। কারণ, বার্সার কোনো খেলোয়াড় নেইমার ‘ডিল’র অংশ হতে রাজি নয়। সবচেয়ে বড় অপশন ফিলিপ্পে কৌতিনহো তো ক্লাব ছেড়ে এরইমধ্যে ধারে চলে গেছেন বায়ার্ন মিউনিখে।

এদিকে যাকে নিয়ে এত নাটক, সেই নেইমার কিন্তু পিএসজি ছাড়তে মরিয়া। প্রিয় ঠিকানা ক্যাম্প ন্যুয়ে যদি নাও হয়, তবু রিয়াল মাদ্রিদ হলেও তার চলবে। নিজ মুখে কিন্তু একবারও বার্সায় ফেরার কথা বলেননি নেইমার। বার্সা এখন পিএসজি থেকে নেইমারকে ধারে আনার চেষ্টা করছে, এমন পরিস্থিতিতে রিয়াল চুপচাপ পরবর্তী চাল গুছিয়ে নিচ্ছে। এসব দেখে মনে হচ্ছে, এই প্রথমবারের মতো ‘অপারেশন নেইমার’ সফল করতে চলেছেন পেরেজ।

এই বিভাগের আরো খবর