• রোববার   ১৩ জুন ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৯ ১৪২৮

  • || ০১ জ্বিলকদ ১৪৪২

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
স্কুল-কলেজে ছুটি আবার বাড়ল গণতন্ত্রের মুক্তি দিবস ১১ জুন মডেল মসজিদের মাধ্যমে ইসলামের মর্মবাণী বুঝবে মানুষ ইসলাম আমাদের মানবতার শিক্ষা দিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী খুন করে কি বেহেশতে যাওয়া যায়, প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন ‘লেবাস নয়, ইনসাফের ইসলামে বিশ্বাস করি’ একযোগে ৫০ মডেল মসজিদ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী করোনা থেকে রক্ষা পেতে সকল রাষ্ট্রকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে দক্ষিণাঞ্চলে বেশি করে সাইলো নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী গাইলেন, ‘ওকি গাড়িয়াল ভাই...’ ৬৬৫১ কোটি টাকা ব্যয়ে একনেকে ১০ প্রকল্প অনুমোদন ৬ দফার মাধ্যমেই বাঙালির স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী ঐতিহাসিক ছয়-দফা দিবস আজ ছয় দফার প্রতি অকুণ্ঠ সমর্থনে স্বাধীনতার রূপরেখা রচিত হয় দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৩৮ মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৭৬ বাঙালির মুক্তির সনদ ৬-দফাঃ শেখ হাসিনা প্রত্যেককে তিনটি করে গাছ লাগানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর জাম-আমড়া-সোনালু ও ডুমুরের চারা রোপণ করলেন প্রধানমন্ত্রী ৮৮ ডলার থেকে মাথাপিছু আয় ২২২৭ ডলার জলবায়ু সংকট নিরসনে যুক্তরাজ্য ভূমিকা রাখবে, আশা শেখ হাসিনার

দেশের প্রথম সুপার এক্সপ্রেসওয়ে যোগাযোগের নতুন দিগন্ত

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

দেশের প্রথম সুপার এক্সপ্রেসওয়ে ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা সুপার এক্সপ্রেসওয়ে। প্রায় ১১ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ সুপার এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে মাত্র এক ঘণ্টায় ঢাকা থেকে মাদারীপুর পৌঁছানো যাবে। 

গত বছরের ১২ মার্চ চালু হয় এ এক্সপ্রেসওয়ে। সুবিশাল রাস্তা ও অপরূপ নির্মাণশৈলীর এ সুপার এক্সপ্রেসওয়ে দেখতে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসছেন অসংখ্য মানুষ। বদলে যাওয়া অঞ্চলটি এখন হয়ে উঠেছে বিনোদন কেন্দ্র।

সরেজমিনে দেখা যায়, এক্সপ্রেসওয়ের দুটি সার্ভিস লেনের মাঝে দৃষ্টিনন্দন নানা প্রজাতির ফুল গাছ লাগানো হয়েছে। এতে সড়কের সৌন্দর্য বেড়েছে দ্বিগুণ। সুপার এক্সপ্রেসওয়ের মান ও সৌন্দর্য দেখে খুশি এলাকাবাসী। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এ এক্সপ্রেসওয়েতে পাঁচটি ফ্লাইওভার, ১৯টি আন্ডারপাস এবং প্রায় ১০০টি সেতু ও কালভার্ট রয়েছে। আন্তর্জাতিক মানের এক্সপ্রেসওয়েটির ফলে বরিশাল বিভাগের ছয় জেলা, খুলনা বিভাগের ১০ জেলা এবং ঢাকা বিভাগের ছয় জেলার মানুষ সরাসরি উপকৃত হবে।

ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের ৫৫ কিলোমিটারের মধ্যে ঢাকা থেকে মুন্সিগঞ্জের মাওয়া পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সড়ক জেলার সিরাজদিখান, শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলার মধ্য দিয়ে গেছে।

এ এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের ফলে সড়কের আশপাশে বিভিন্ন শিল্পকারখানা গড়ে উঠেছে। এক্সপ্রেসওয়েটিতে স্থানীয় ও ধীর গতি সম্পন্ন যানবাহনের জন্য দুটি পরিষেবা লেন রাখা হয়েছে, যাতে দ্রুতগতির যানবাহনগুলো নিরবচ্ছিন্নভাবে চলাচল করতে পারে। এক্সপ্রেসওয়েতে যানজট না থাকায় বাস ও ট্রাক দ্রুত গতিতে চলাচল করতে পারে।

ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা সুপার এক্সপ্রেসওয়েতে পাঁচটি ফ্লাইওভার, চারটি রেলওয়ে ওভারব্রিজ ও চারটি বড় আকারের ব্রিজ রয়েছে। এখানে উল্টো পথে চলাচলের সুযোগ নেই এবং ইচ্ছেমতো ফ্লাইওভারে ওঠা-নামার পথ রাখা হয়নি।