শনিবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৫ ১৪২৬   ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
ঢাকা সিটি ভোট পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি করার সিদ্ধান্ত ইসির এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পিছিয়ে ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় সোমবার মান্নানের জানাজা এমপি আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে গভীর শোক রাষ্ট্রপতির পদ্মা সেতুর ২২তম স্প্যান বসছে এ মাসেই আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক এমপি মান্নানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক বয়ানে চলছে দ্বিতীয় দিনের ইজতেমা,কাল আখেরী মোনাজাত বিপিএলে প্রথম শিরোপার স্বাদ পেলো রাজশাহী আদালতে মজনুর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাউন্ড সিস্টেমে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা যাবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি শুরু ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনে উত্তীর্ণদের সনদ ১৯ জানুয়ারি প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ২৫ জানুয়ারি থেকে এক মাস কোচিং সেন্টার বন্ধ আমরা ক্রসফায়ারকে সাপোর্ট করতে পারি না : ওবায়দুল কাদের পোশাক রপ্তানিকে ছাড়িয়ে যাবে আইসিটি : জয় বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু কাল বিশ্ব ইজতেমার ২য় পর্বে ময়দানে আসতে শুরু করেছেন মুসল্লিরা অন্ধকার ভেদ করে আলোর পথে বাংলাদেশ: সংসদে প্রধানমন্ত্রী
১৩

তৈরি পোশাক খাতে আরো প্রণোদনার উদ্যোগ, বিদেশ যাচ্ছেন চার কর্মকর্তা

প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯  

তৈরি পোশাক খাতে প্রণোদনার অবস্থা দেখতে সরকারি চার কর্মকর্তা বিদেশ যাচ্ছেন। যুগ্ম-সচিব ও উপ-সচিব পর্যায়ের এই চার কর্মকর্তা ভারত, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ড সফর করবেন। তারা এই চার দেশ সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখবেন এসব দেশে তৈরি পোশাক খাতে বর্তমানে কী ধরনের প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে।

সূত্র জানিয়েছে, সরকার দেশের অন্যতম বৈদেশিক আয়ের খাত তৈরি পোশাক খাতে আরো প্রণোদনা দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে চার সদস্যের সরকারি প্রতিনিধিরা দেশগুলো ভ্রমণ  করবেন। প্রতিনিধিদলটি তাদের সফর শেষে ১৫ দিনের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দাখিল করবে। তাদের প্রতিবেদনে ওপর ভিত্তি করে দেশের তৈরি পোশাক খাতকে নতুন করে সহায়তা দেয়া হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানিয়েছেন, তৈরি পোশাক খাতের রফতানি ইতিমধ্যে কমে গেছে। এ পরিস্থিতিতে রফতানিমুখী তৈরি পোশাক মালিক সমিতি (বিজেএমইএ) পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এ শিল্পকে অসম প্রতিযোগিতার হাত থেকে তাদের যেন আরো বেশি করে আর্থিক প্রণোদনা দেয়া হয়। এ বিষয়ে সম্প্রতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বৈঠক করেছেন।

সূত্র জানায়, তৈরি পোশাক শিল্প মালিকরা প্রায়ই এ খাতের অন্যন্য প্রতিদ্বন্দ্বি দেশগুলোর উদাহরণ দিয়ে বলেন, ভারত ও ভিয়েতমান তাদের তৈরি পোশাক খাত অনেক ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। এই দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পগুলোকে অসম প্রতিযোগিতায় পড়তে হচ্ছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর অবস্থা পর্যালোচনা করা প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এ বিষয়টি নিয়ে কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলেরর  বৈঠকে সিদ্ধান্তও হয়েছে। এই কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে অবস্থানরত বাংলাদেশের দূতাবাসের সহায়তা ওসব দেশগুলো তৈরি পোশাক খাতে কী ধরনের প্রণোদনা দিচ্ছে তার তথ্য সংগ্রহ করবেন। এই তথ্যগুলো তারা প্রতিবেদন আকারে আমাদের কাছে জমা দেবেন। সেগুলোর ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে দেশের তৈরি পোশাক খাতে কী ধরনের সহায়তা দেয়া হবে।

সূত্র জানায়, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই চার কর্মকর্তা আগামী সপ্তাহে চারটি দেশ সফর করবেন। আশা করা যায়, এ মাসের শেষদিকে তাদের কাছ থেকে একটি চূড়ান্ত প্রতিবেদন পাওয়া সম্ভব হবে।

 

উল্লেখ্য, তৈরি পোশাক খাতেই সরকারের পক্ষ প্রায় সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। সর্বশেষ ইউরোপ, আমেরিকা এবং কানাডায় তৈরি পোশাক খাতে ১ শতাংশ নগদ সহায়তা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে গার্মেন্ট সেক্টরে চার ধরনের নগদ প্রণোদনা দেয়া হয়ে থাকে। রফতানিমুখী দেশীয় বস্ত্র খাতে শুল্ক বন্ড ও ডিউটি ড্র-ব্যাকের পরিবর্তে বিকল্প নগদ সহায়তা বাবদ ৪ শতাংশ প্রণোদনা দেয়া হয়। বস্ত্র খাতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের অতিরিক্ত সুবিধা (প্রচলিত নিয়মের) বাবদ ৪ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে।

এছাড়াও নতুন পণ্য/নতুন বাজার (বস্ত্র খাত) সম্প্রসারণ সহায়তা(আমেরিকা/কানাডা/ইইউ ছাড়া) বাবদও ৪ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। ইউরো জোনে বস্ত্র খাতের রপ্তানিকারকদের জন্য (বিদ্যমান ৪ শতাংশের অতিরিক্ত) ২ শতাংশ দেয়া হচ্ছে। এর সঙ্গে সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১ শতাংশ যোগ হওয়ায় এ খাতে নগদ প্রণোদনার পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ১৫ শতাংশে। এর ফলে এ খাতে সরকারের ব্যয় আরো এক দফা বেড়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের হিসাব মতে, ১ শতাংশ নগদ প্রণোদনা নতুন করে যোগ হওয়ায় সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে প্রায় ২ হাজার ৯০০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে বাজেটে প্রণোদনা এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে ২ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা।
 

এই বিভাগের আরো খবর