• শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
সুযোগ আছে, করোনা সংকটেও বিনিয়োগ আনতে হবে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জাপানের প্রধানমন্ত্রী আবের ফোন করোনায় আরও ৩৩ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৫৪ কামাল বেঁচে থাকলে সমাজকে অনেক কিছু দিতে পারতো: শেখ হাসিনা সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৫০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৯১৮ করোনায় আরও ৪৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৯৫ ঈদ-বন্যা ঘিরে করোনা সংক্রমণের হার বাড়তে পারে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণ, ‘নব্য জেএমবির সদস্য’ আটক করোনায় আরও ৩৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০০৯ ১২ কোটি টাকা আত্মসাত করে গ্রেফতার যমুনা ব্যাংকের ম্যানেজার থানায় বিস্ফোরণে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা নেই : পুলিশ ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ২৯৬০, মৃত্যু ৩৫ হাতের তালু দিয়ে আকাশ ঢাকা যায় না: বিএনপিকে কাদের দেশে একদিনে ৩৭ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৭৭২ সাবরিনার অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে ৪ জনকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫৪, শনাক্ত ২২৭৫ কোরবানি পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৫২০ তিন দিনের রিমান্ডে শারমিন
৪৫

তৈরি পোশাক খাতে আরো প্রণোদনার উদ্যোগ, বিদেশ যাচ্ছেন চার কর্মকর্তা

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯  

তৈরি পোশাক খাতে প্রণোদনার অবস্থা দেখতে সরকারি চার কর্মকর্তা বিদেশ যাচ্ছেন। যুগ্ম-সচিব ও উপ-সচিব পর্যায়ের এই চার কর্মকর্তা ভারত, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ড সফর করবেন। তারা এই চার দেশ সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখবেন এসব দেশে তৈরি পোশাক খাতে বর্তমানে কী ধরনের প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে।

সূত্র জানিয়েছে, সরকার দেশের অন্যতম বৈদেশিক আয়ের খাত তৈরি পোশাক খাতে আরো প্রণোদনা দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে চার সদস্যের সরকারি প্রতিনিধিরা দেশগুলো ভ্রমণ  করবেন। প্রতিনিধিদলটি তাদের সফর শেষে ১৫ দিনের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দাখিল করবে। তাদের প্রতিবেদনে ওপর ভিত্তি করে দেশের তৈরি পোশাক খাতকে নতুন করে সহায়তা দেয়া হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানিয়েছেন, তৈরি পোশাক খাতের রফতানি ইতিমধ্যে কমে গেছে। এ পরিস্থিতিতে রফতানিমুখী তৈরি পোশাক মালিক সমিতি (বিজেএমইএ) পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এ শিল্পকে অসম প্রতিযোগিতার হাত থেকে তাদের যেন আরো বেশি করে আর্থিক প্রণোদনা দেয়া হয়। এ বিষয়ে সম্প্রতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বৈঠক করেছেন।

সূত্র জানায়, তৈরি পোশাক শিল্প মালিকরা প্রায়ই এ খাতের অন্যন্য প্রতিদ্বন্দ্বি দেশগুলোর উদাহরণ দিয়ে বলেন, ভারত ও ভিয়েতমান তাদের তৈরি পোশাক খাত অনেক ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। এই দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পগুলোকে অসম প্রতিযোগিতায় পড়তে হচ্ছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর অবস্থা পর্যালোচনা করা প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এ বিষয়টি নিয়ে কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলেরর  বৈঠকে সিদ্ধান্তও হয়েছে। এই কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে অবস্থানরত বাংলাদেশের দূতাবাসের সহায়তা ওসব দেশগুলো তৈরি পোশাক খাতে কী ধরনের প্রণোদনা দিচ্ছে তার তথ্য সংগ্রহ করবেন। এই তথ্যগুলো তারা প্রতিবেদন আকারে আমাদের কাছে জমা দেবেন। সেগুলোর ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে দেশের তৈরি পোশাক খাতে কী ধরনের সহায়তা দেয়া হবে।

সূত্র জানায়, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই চার কর্মকর্তা আগামী সপ্তাহে চারটি দেশ সফর করবেন। আশা করা যায়, এ মাসের শেষদিকে তাদের কাছ থেকে একটি চূড়ান্ত প্রতিবেদন পাওয়া সম্ভব হবে।

 

উল্লেখ্য, তৈরি পোশাক খাতেই সরকারের পক্ষ প্রায় সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। সর্বশেষ ইউরোপ, আমেরিকা এবং কানাডায় তৈরি পোশাক খাতে ১ শতাংশ নগদ সহায়তা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে গার্মেন্ট সেক্টরে চার ধরনের নগদ প্রণোদনা দেয়া হয়ে থাকে। রফতানিমুখী দেশীয় বস্ত্র খাতে শুল্ক বন্ড ও ডিউটি ড্র-ব্যাকের পরিবর্তে বিকল্প নগদ সহায়তা বাবদ ৪ শতাংশ প্রণোদনা দেয়া হয়। বস্ত্র খাতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের অতিরিক্ত সুবিধা (প্রচলিত নিয়মের) বাবদ ৪ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে।

এছাড়াও নতুন পণ্য/নতুন বাজার (বস্ত্র খাত) সম্প্রসারণ সহায়তা(আমেরিকা/কানাডা/ইইউ ছাড়া) বাবদও ৪ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। ইউরো জোনে বস্ত্র খাতের রপ্তানিকারকদের জন্য (বিদ্যমান ৪ শতাংশের অতিরিক্ত) ২ শতাংশ দেয়া হচ্ছে। এর সঙ্গে সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১ শতাংশ যোগ হওয়ায় এ খাতে নগদ প্রণোদনার পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ১৫ শতাংশে। এর ফলে এ খাতে সরকারের ব্যয় আরো এক দফা বেড়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের হিসাব মতে, ১ শতাংশ নগদ প্রণোদনা নতুন করে যোগ হওয়ায় সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে প্রায় ২ হাজার ৯০০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে বাজেটে প্রণোদনা এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে ২ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা।
 

জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর