বুধবার   ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৭ ১৪২৬   ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
এনামুল বাছিরের পদোন্নতির আবেদন হাইকোর্টে খারিজ জাপানের সঙ্গে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ হবে : বাণিজ্যমন্ত্রী সমৃদ্ধ দেশ গড়তে সুস্থ যুব সমাজের বিকল্প নেই : প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ ডাকঘর সঞ্চয়ের সুদহার পুনর্বিবেচনা করা হবে : অর্থমন্ত্রী মুঠোফোন প্রতারক জিনের বাদশা গ্রেফতার করোনাভাইরাস নিয়ে গুজবে কান দিবেন না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাগর তীরে উঁচু স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিএনপি জ্বালাও-পোড়াও না করলে দেশ আরো এগিয়ে যেত : তথ্যমন্ত্রী শহীদ দিবসে জঙ্গি হামলার কোনো সম্ভাবনা নেই : ডিএমপি কমিশনার দেশে ব্রয়লারসহ কোন পশু-পাখির মধ্যে করোনা পাওয়া যায়নি : আইইডিসিআর বিশ্ববাসীর কাছে বাংলাদেশ এখন অনুকরণীয়: শ ম রেজাউল ওআইসিকে শক্তিশালী করতে চাই: ড. মোমেন ধর্ষকদের ধরিয়ে দিন, কঠোর ব্যবস্থা নেবো: প্রধানমন্ত্রী টাকা না থাকলে এত উন্নয়ন কাজ করছি কীভাবে : প্রধানমন্ত্রী সব ব্যথা চেপে রেখে দেশের জন্য কাজ করছি : প্রধানমন্ত্রী ট্রেনে খোলা খাবার বিক্রি ও প্লাস্টিকের কাপ নিষিদ্ধ হচ্ছে চলতি বছরে জিপিএ-৪ কার্যকর হচ্ছে মজুদ গ্যাসে চলবে ২০৩০ সাল পর্যন্ত : খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী গুজব-অপপ্রচার রোধে কাজ করছে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি : তথ্যমন্ত্রী সব কারখানায় ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার স্থাপনের নির্দেশ
৪৫৩

জুম্মার দিন ও রাতের বিশেষ মুহূর্ত ও আমল

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২২ নভেম্বর ২০১৮  

 

সূর্য ওঠার উজ্জ্বল দিনগুলোর মধ্যে উত্তম হলো জুম্মান দিন। এদিনে হজরত আদম আলাইহিস সালামকে সৃষ্টি করা হয়, তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয় এবং জান্নাত থেকে বের করা হয়ও এদিনেই। (মুসলিম)

এদিনে যে ব্যক্তি সুন্দরভাবে ওজু করে জুম্মার (নামাজের) দিকে যায়, নিরবে খুতবা শোনে, সে এ জুম্মা থেকে পরবর্তী জুম্মা ছাড়াও আরো অতিরিক্ত ৩ দিনের গোনাহ থেকে মুক্তি পায়। (মুসলিম)

আর যারা এ জুম্মার নামাজ পড়া থেকে নিজেদেরকে বিরত রাখে আল্লাহ তাদের অন্তরে মোহর মেরে দেন এবং তাদেরকে গাফেলদের অন্তর্ভূক্ত করে নেন।’ (মুসলিম)

মনে রাখতে হবে: সপ্তাহের দিনগুলোর মধ্যে সেরা দিন যেহেতু জুম্মার দিন। হাদিসে এ জুম্মার দিন ও রাতের বিশেষ মুহূর্তের ঘোষণা এসেছে। বান্দা এ সময় আল্লাহর কাছে যা প্রার্থনা করে আল্লাহ ওই বান্দাকে তা দান করেন। জুম্মার দিন ও রাতের এ সময় সম্পর্কে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন-

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল।লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ সময়ের ফজিলত বর্ণনা করে বলেন, ‘নিশ্চয় শুক্রবার একটি প্রহর (সময়) আছে, যে সময় কোনো মুসলিম দাঁড়িয়ে নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে যে কোনো কল্যাণের দোয়া করবে, আল্লাহ তাআলা অবশ্যই তাকে তা দান করবেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজ হাতের দিকে ইশারা করে ওই সময়টি খুবই সংক্ষিপ্ত বলে দেখান।’ (বুখারি ও মুসলিম)

তবে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জুমআর দিন ও রাতের বিশেষ মুহূর্তটি নির্ধারণ করে দেননি। তবে সাহাবায়ে কেরাম ও তাবেয়িগণ এ বিষয়ে ভিন্ন ভিন্ন মত প্রকাশ করেছেন।

অধিকাংশের মতে, জুমআর দিন সূর্যাস্তের ঠিক পূর্ব মুহূর্তটি দোয়া কবুলের সময়। এ সময়টিতে যদি কোনো ব্যক্তি মাগরিবের নামাজের প্রস্তুতি নিয়ে নামাজের অপেক্ষায় বসে দোয়ায় মশগুল থাকে তবে আল্লাহ তাআলা ওই ব্যক্তির দোয়া কবুল করবেন।

অনেকে বলেছেন, ‘জুম্মার দিন ইমাম যখন খুতবা প্রদান শুরু করে, সে সময় থেকে জুমআর নামাজের সালাম ফেরানো পর্যন্ত সময়টিতে রয়েছে সে মুহূর্তটি।

প্রিয়নবি জুমআর দিনে তার প্রতি দরূদ প্রেরণের বিশেষ আমলে প্রতি উৎসাহ দিয়েছেন। হাদিসে পাকে এসেছে-

হজরত আওস ইবনে আওস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘তোমাদের দিনগুলোর মধ্যে উত্তম দিন হলো জুম্মার দিন। এদিন তোমরা আমার প্রতি বেশি বেশি দরূদ পাঠাও (পড়)। নিঃসন্দেহে তোমাদের পাঠানো (পঠিত) দরূদ আমার ওপর পেশ করা (পাঠানো) হয়।’ (আবু দাউদ)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে জুম্মার দিন ও রাতের বিশেষ মুহূর্ত লাভের প্রিয়নবি নির্দেশিত আমল করার জন্য খুতবা শোনা থেকে শুরু করে মাগরিব পর্যন্ত জিকির-আজকার, তাসবিহ-তাহলিল, দরূদ-ইসতেগফার এবং নামাজে কাটানোর তাওফিক দান করুন। আমিন।

এই বিভাগের আরো খবর